সুপার ফুড তিসির ভালো ও মন্দ

প্রতিদিন যতটুকু ফাইবার বা আঁশ জাতীয় খাবার খাওয়া জরুরি, চার চামচ তিসি দানা খেলে সেই চাহিদার ২৭ শতাংশ পূরণ হয়।

নিউজ ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 12 Dec 2023, 08:47 AM
Updated : 12 Dec 2023, 08:47 AM

এক কালে তিসির তেলের খুব চাহিদা ছিল। এখন তিসি অনেকে আর না চিনলেও অনলাইনের স্বাস্থ্য পরামর্শ অনুসারীদের কাছে দেশে ও বিদেশে জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে ফ্ল্যাক্স সিডস বা তিসি।

শরীরের নানা রোগের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তোলে বলে একে বলা হয় সুপার ফুড। মেনোপজের নানা শারীরিক ও মানসিক সমস্যা থেকে রেহাই পেতেও ফ্ল্যাক্স সিডস উপকারী ভূমিকা রাখে।

এছাড়া কোষ্ঠকাঠিন্য ও মানসিক ক্লান্তি লাঘবে উপকার দিতে পারে তিসি বীজ। প্রতিদিন পরিমাণ মত ফ্ল্যাক্স সিডস খাওয়ার অভ্যাস করলে ত্বক ভালো থাকবে, শরীরে আঘাত থাকলে তাও সেরে যাবে দ্রুত।

ফ্ল্যাক্স সিডস রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ করে। হাইপারটেনশন কমিয়ে হৃদযন্ত্রের স্বাস্থ্য ভালো রাখতে কাজ করে। নিয়ম করে এই বীজ খেলে শরীরে এলডিএল বা খারাপ কোলেস্টরেল কমে আসে এবং এইচডিএল বা ভালো কোলেস্টরেল বাড়তে থাকে।

প্রতিদিন যতটুকু ফাইবার বা আঁশ জাতীয় খাবার খাওয়া জরুরি, চার চামচ তিসি দানা খেলে সেই চাহিদার ২৭ শতাংশ পূরণ হয়। তিসি দানা ক্যান্সারের ঝুঁকিও কমিয়ে আনতে পারে বলে দেখা গেছে কোনো কোনো গবেষণায়।

তবে পরিমাণ বুঝে না খেলে অনেকের শরীর মানিয়ে নিতে পারবে না।বিরল হলেও কারো কারো বেলায় তিসি খেলে এলার্জি দেখা দিতে পারে। কারো ক্ষেত্রে দেখা দিতে পারে হরমোনজনিত পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া। যদি গর্ভকালের দ্বিতীয় অথবা তৃতীয় তিন মাসে তিসির তেল সেবন করা হয়, তখন অকাল প্রসবের ঝুঁকিও থাকে।

কারো কারো আবার ফ্ল্যাক্স সিডস বা এর তেল সেবনের কারণে ডায়রিয়া হতে পারে। যদি তিসি খাওয়ার সময় প্রয়োজন মত পানি না খাওয়া হয়, তবে এই বীজ উল্টো কোষ্ঠকাঠিন্যের কারণ হয়ে ওঠে।

সংবাদসূত্র: হেলথ ডটকম

(প্রতিবেদনটি প্রথম ফেইসবুকে প্রকাশিত হয়েছিল ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২৩ তারিখে: ফেইসবুক লিংক)