প্রাপ্তবয়স্ক রেটিং নিয়ে নেটফ্লিক্সে আসছে মনরোর বায়োপিক ’ব্লন্ড’

মেরিলিন মনরোর ট্রমা এবং যৌন নিপীড়নের শিকার হওয়া কিশোরবেলা উঠে এসেছে এই বায়োপিকে।

গ্লিটজ ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 9 Sept 2022, 03:28 PM
Updated : 9 Sept 2022, 03:28 PM

এই মাসেই ওটিটি প্লাটফর্ম নেটফ্লিক্সে দেখা যাবে হলিউডের আবেদনময়ী অভিনয়শিল্পী মেরিলিন মনরোকে নিয়ে দীর্ঘ প্রতিক্ষিত আত্মজৈবনিক সিনেমা ব্লন্ড।

নেটফ্লিক্সে আসছে ২৮ সেপ্টেম্বর সিনেমাটি মুক্তি পাচ্ছে এনসি-১৭ বা ’নো চাইল্ড সেভেনটিন অ্যান্ড আন্ডার’ রেটিং নিয়ে।

অর্থ্যাৎ প্রাপ্তবয়স্কদের দেখার উপযোগী এই সিনেমা ১৭ বছর ও এর নিচে কারো জন্য নয়।

এর আগে সচরাচর সিনেমায় এ ধরনের রেটিং দিতে দেখা যায়নি নেটফ্লিক্সকে।

তবে ভেনিসে এই সিনেমার প্রদর্শন শেষ হওয়ার পর টানা কয়েক মিনিট ধরে দাঁড়িয়ে হাততালি দেন উপস্থিত বোদ্ধারা।

৮ সেপ্টেম্বর ভেনিস চলচ্চিত্র উৎসবে হয়ে গেল অস্ট্রেলিয়ার অ্যান্ড্রু ডমিনিক পরিচালিত এই সিনেমার ওয়ার্ল্ড প্রিমিয়ার।

ডেইলিমেইলের প্রতিবেদনে বলছে, এ বছর ভেনিস চলচ্চিত্র উৎসবে দেখানো আর কোনো সিনেমার বেলাতে এমন ১৪ মিনিট ধরে করতালি মেলেনি।

বিশ শতকের অসামান্য আবেদনময়ী মেরিলিন মনরোর ট্রমা এবং যৌন নিপীড়নের শিকার হওয়া কিশোরবেলা উঠে এসেছে এই বায়োপিকে।

রূপ ও রহস্যে মোড়া মেরিলিন মনরো আজও সেলুলয়েডের দর্শকদের মনে জ্বলজ্বলে; তাকে এবার পর্দায় ফুটিয়ে তুলেছেন চলচ্চিত্রে কিউবান অভিনেত্রী আনা ডি আরমাস।

এবার গ্রীষ্মে মুক্তি পেয়েছে ব্লন্ড সিনেমার টিজার। আর এরপরই সিনেমায় আনা ডি আরমাসের কিউবান উচ্চারণ নিয়ে ট্রল শুরু হয় অনলাইনে। এই সিনেমায় কেন্দ্রীয় চরিত্রে তার চুক্তিবদ্ধ হওয়া নিয়েও বিতর্কের কমতি ছিল না।

এই সময় আরমাসের পাশে এসে দাঁড়িয়েছে মনরোর রেখে যাওয়া সম্পত্তির বর্তমান মালিক প্রতিষ্ঠান।

তাদের ভাষ্যে, মেরিলিন মনরোর লাস্যময়ী রূপ, মানবিকতা আর দুর্বলতা ফুটিয়ে তুলেছেন আরমাস।

পরিচালক ডমিনিক তার ব্লন্ড সিনেমাটিকে একটি ’মাস্টারপিস’ আখ্যা দিতে চান। আর সেই সঙ্গে আরমাসের কণ্ঠের দক্ষতা নিয়ে যে কোনো সংশয়কে উড়িয়ে দিতে চান তিনি।

এলএ টাইমসকে তিনি বলেন, ”ওর অভিনয় দেখার আগ পর্যন্ত উদ্বেগ কাজ করছিল আমার মধ্যে।

”এরপর কি নিয়ে উদ্বিগ্ন হব তাই যেন ভুলে গেলাম আমি।”

অর্ধশতাব্দির বেশি সময় মানে ষাট বছর পর মনরোকে পর্দায় জীবন্ত উপস্থাপন করা আরমাস অবশ্য এই সিনেমার মুখ্য চরিত্রে একজন লাতিন অভিনেত্রীকে নেওয়ার সিদ্ধান্তকে ‘যুগান্তকারী’ বলতে চান।

অভিনয়শিল্পী ব্রাড পিটও আরমাসের মনরো হয়ে ওঠায় মুগ্ধ।

ডমিনিক পরিচালিত ‘দ্য অ্যাসেসিনেশন অফ জেসি জেমস বাই দ্য কাওয়ার্ড রবার্ট ফোর্ড’ সিনেমায় অভিনয়ের জন্য ২০০৭ সালে ভেনিসে সেরা অভিনেতার পুরস্কার পাওয়া ব্র্যাড পিট ব্লন্ড সিনেমার প্রযোজকও।

আরমাসকে নিয়ে এন্টারটেইনমেন্ট টুনাইটকে ব্র্যাড পিট বলেন, “এই চরিত্রে অভূতপূর্ব কাজ করেছে সে। এমন অভিনয় করা সহজ নয়।”

বিতর্ক অবশ্য ব্লন্ড সিনেমার পিছু ছাড়েনি কখনই।

২০১৯ সালে নির্মাণ কাজ শেষ হওয়া এই সিনেমাকে ঘিরে নেটফ্লিক্স ও পরিচালক অ্যান্ড্রু ডমিনিকের টানাপোড়ন চলছিল এমন গুঞ্জনও রয়েছে।

তিন ঘণ্টার নিচে এই সিনেমাকে বানাতে চাননি ডমিনিক। এমনকি সিনেমার অনেক দৃশ্যও কেটে বাদ দিতে আপত্তি তুলেছিলেন তিনি।

আরও খবর

Also Read: মেরিলিন মনরোর বাড়ির দাম ৬৯ লাখ ডলার!

Also Read: বিপাশা কবির যখন মেরিলিন মনরো

Also Read: ব্লন্ডের টিজারে নতুন মনরো আনা দে আরমাস

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক