করের আওতা দেশজুড়ে সম্প্রসারণের তাগিদ

রিটার্ন দাখিলেও দক্ষিণ এশিয়ার বাংলাদেশ ‘সবচেয়ে পিছিয়ে’।

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 26 Nov 2022, 07:27 PM
Updated : 26 Nov 2022, 07:27 PM

শুধু ঢাকা ও চট্টগ্রাম নগরী নয়; করের আওতা উপজেলা পর্যন্ত সম্প্রসারণের তাগিদ এল এক সেমিনারে। 

শনিবার রাজধানীর গুলশান ক্লাবে ইন্টারন্যাশনাল বিজনেস ফোরাম অব বাংলাদেশ (আইবিএফবি) আয়োজিত এক সেমিনারে বক্তারা এ তাগিদ দেন। 

সেমিনারে ‘বাংলাদেশের আয়কর আইনের ১০০ বছর: প্রত্যাশা এবং অর্জন’ শীর্ষক প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন চার্টার্ড অ্যাকাউন্ট্যান্ট স্নেহাশীষ বড়ুয়া। 

তিনি বলেন, “সাম্প্রতিক বছরগুলোতে উচ্চ প্রবৃদ্ধির মাধ্যমে বাংলাদেশের অর্থনীতি ব্যাপক উন্নয়ন করলেও আমরা কর জিডিপির হারে অনেক পিছিয়ে আছি। এমনকি দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর মধ্যেও আমাদের কর জিডিপির হার সবচেয়ে কম। এই অঞ্চলে জিডিপির তুলনায় কর আহরণ ১০ শতাংশের কম একমাত্র বাংলাদেশে।“

একইভাবে রিটার্ন দাখিলেও দক্ষিণ এশিয়ার মধ্যে বাংলাদেশ ‘সবচেয়ে পিছিয়ে’ উল্লেখ করে তিনি বলেন, “যেমন নেপাল ও ভারতে রিটার্ন দাখিল ৭০ শতাংশের বেশি, ভুটানে ৪৪ শতাংশ; এমনকি পাকিস্তানেও ৩৩ শতাংশ রিটার্ন দাখিল করলেও বাংলাদেশে মাত্র ৩১ শতাংশ।”

তিনি জানান, করের আওতায় আনার ক্ষেত্রেও বাংলাদেশ পিছিয়ে আছে। এ সংখ্যা ভারতে ৫ কোটি ৮৯ লাখ, পাকিস্তানে ১ কোটি ৩ লাখ। বাংলাদেশের করনেট মাত্র ৭৪ লাখ লোকের।

তিনি বলেন, “বর্তমানে দেশে যে করনেট রয়েছে, তাও শুধু ঢাকা ও চট্টগ্রামভিত্তিক। দেশে যে রাজস্ব আহরণ হয়, তার ৭৪ শতাংশ ঢাকা এবং ১৬ শতাংশ রাজস্ব আহরণ করা হয় চট্টগ্রাম থেকে। অর্থাৎ ঢাকা-চট্টগ্রাম থেকেই ৯০ শতাংশ রাজস্ব আহরণ করা হয়। আর সারা দেশ থেকে আহরিত হয় মাত্র ১০ শতাংশ।

“অথচ দেশে উন্নয়নের নীরব বিপ্লব ঘটে যাচ্ছে সারা বাংলাদেশে। জেলা ও উপজেলা পর্যায় থেকেই বিপুল পরিমাণ কর আহরণের অবস্থা তৈরি হয়েছে।”

মফস্বলেও অনেক মানুষের আয় বেড়েছে জানিয়ে স্নেহাশীষ বলেন, “যেমন- ঈশ্বরদীতে গেলে আপনি চিনতে পারবেন না, এত পরিবর্তন হয়ে গেছে। প্রায় একই রকম পরিবর্তন বাংলাদেশের প্রায় প্রতিটি শহরে হয়েছে।“

অনুষ্ঠানে পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান বলেন, রাষ্ট্র পরিচালনার জন্য কর প্রদান বাধ্যতামূলক এবং আমাদের সকলকে এ বিষয়ে এগিয়ে আসা উচিত।

এনবিআরের সাবেক চেয়ারম্যান মুহাম্মদ আবদুল মজিদ বলেন, “বিচক্ষণ কর আইন চালু হলে অর্থনীতিতে বৈষম্য কমে আসবে। রাষ্ট্রের কল্যাণের জন্য কর প্রদানে আমাদের দায়িত্বশীল হতে হবে।”

আইবিএফবি সভাপতি হুমায়ুন রশিদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সেমিনারে সাবেক অ্যাটর্নি জেনারেল হাসান আরিফ আলোচক হিসেবে অংশ নেন।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক