‘মুগুর পা’ নিয়ে শিশুর জন্ম, চিকিৎসার সামর্থ্য নেই পরিবারের

“মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে আবেদন, আমার সন্তানের চিকিৎসার যেন ব্যবস্থা হয়,” বলছিলেন শিশুটির বাবা।

চট্টগ্রাম ব্যুরোবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 17 Jan 2023, 03:07 PM
Updated : 17 Jan 2023, 03:07 PM

সন্তানের জন্ম পরিবারের জন্য আনন্দের; কিন্তু চট্টগ্রামের মীরসরাই উপজেলার বারৈয়ারহাটে এক শিশুর জন্মের পর আনন্দের বদলে তাকে নিয়ে গভীর দুশ্চিন্তায় পড়েছেন তার বাবা-মা।

বারৈয়ারহাট পৌর সদরের সেফা ইনসান নামের একটি ক্লিনিকে মঙ্গলবার কন্যা শিশুটির জন্ম হয়েছে দুটি ‘মুগুর পা’ এবং দুটি অতিরিক্ত পা নিয়ে; তার মেরুদণ্ডে আছে জটিলতা।

শিশুটির বাবা সাইদুল ইসলাম ভাড়ায় মোটরসাইকেল চালান, মা নাছরিন আক্তার গৃহিনী। ফটিকছড়ি উপজেলার ভূজপুর থানার বাগান বাজার ইউনিয়নের হাতির খেদা গ্রামে তাদের বসবাস। 

দুই বছর আগে সাইদুল ও নাছরিনের আরেকটি সন্তান জন্মের পরপরই মারা যায়। তাই এবার তারা অনেক আশা নিয়ে সংসারে নতুন অতিথির অপেক্ষায় ছিলেন।

সেফা ইনসান হাসপাতালের ডা. এস এ ফারুক বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “শিশুটির দুটি পা মুগুর পা (কাবফুট- দুটি পায়ের পাতাই ভিতরের দিকে বাঁকানো)। পা দুটির পাশ থেকে আরো দুটি পায়ের মত আছে।

“তার মেরুদণ্ডে মেনিনগোসিল আছে। তাদের বলেছি চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে যেতে। সেখানে বিভিন্ন বিভাগের বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরা আছেন। তাদের সমন্বিত পরামর্শে চিকিৎসা প্রয়োজন। এটা বড় সরকারি হাসপাতাল ছাড়া সম্ভব নয়।”

শিশুটির বাবা সাইদুল ইসলাম মঙ্গলবার রাতে বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে জানান, আপাতত সন্তানকে নিয়ে মীরসরাইয়ে এক আত্মীয়র বাসায় তারা আছেন।

“আমার তেমন কিছু নেই। মা অসুস্থ। আমি ভাড়ার মোটারসাইকেল চালিয়ে সংসার সামলাই। এখন কীভাবে মেয়ের চিকিৎসা করাব সেটা জানি না। সরকার চাইলে আমার মেয়ের চিকিৎসা সম্ভব। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে আবেদন, আমার সন্তানের চিকিৎসার যেন ব্যবস্থা হয়।”

খরচ যোগানোর সামর্থ্য না থাকায় চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালেও মেয়েকে নিয়ে যাবেন কিনা, তা নিয়ে দুশ্চিন্তায় আছেন বলে জানান সাইদুল। 

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক