৩০০ উইকেট ছোঁয়ার দিনে খরুচে মুস্তাফিজ

সাকিব আল হাসানের পর বাংলাদেশের দ্বিতীয় বোলার হিসেবে স্বীকৃত টি-টোয়েন্টিতে তিনশ উইকেটের মাইলফলক ছুঁয়েছেন বাঁহাতি এই পেসার।

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 31 March 2024, 04:19 PM
Updated : 31 March 2024, 04:19 PM

বল হাতে নিয়েই ওভারে ১৮ রান দিলেন মুস্তাফিজুর রহমান। পরে ঘুরে দাঁড়ানোর আভাস দিলেও ছন্দ ধরে রাখতে পারলেন না তিনি। দিল্লি ক্যাপিটালসের বিপক্ষে একটি শিকার ধরে স্বীকৃত টি-টোয়েন্টিতে তিনশ উইকেটের মাইলফলক স্পর্শ করলেন বটে। কিন্তু অকাতরে রান দিয়ে বিবর্ণ একটি দিন পার করলেন চেন্নাই সুপার কিংসের এই পেসার।

বিসাখাপাত্নামে রোববার দিল্লির বিপক্ষে নিজেকে মেলে ধরতে পারেননি মুস্তাফিজ। ৪৭ রান দিয়ে নেন একটি উইকেট। যেখানে ৬ চারের সঙ্গে হজম করেন তিনি একটি ছক্কা। সঙ্গে করেন দুটি ‘নো’ বলও।

পাওয়ার প্লের শেষ ওভারে মুস্তাফিজকে বোলিংয়ে আনে চেন্নাই। চার মেরে তাকে স্বাগত জানান ডেভিড ওয়ার্নার। পরের বলটি হয় ‘ফ্রন্ট ফুট নো’, লেগ বাই থেকে আসে এক রান। স্ট্রাইক পেয়ে টানা তিন চার মারেন পৃথ্বী শ। প্রথম দুটি ফাইন লেগ দিয়ে, তৃতীয়টি কাভার দিয়ে। শেষ দুই বলে সিঙ্গেল আসে, যার একটি লেগ বাই। ওভারে আসে মোট ২০ রান।

নিজের পরের ওভারে মুস্তাফিজ ঘুরে দাঁড়ান দারুণভাবে। ওয়ার্নারকে ফিরিয়ে ভাঙেন দিল্লির ৯৩ রানের উদ্বোধনী জুটি, গড়েন টি-টোয়েন্টিতে তিনশ উইকেট নেওয়ার কীর্তি।

স্বীকৃতি টি-টোয়েন্টিতে তিনশ উইকেট নেওয়া বাংলাদেশের দ্বিতীয় বোলার তিনি। দেশ সেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসানের এই সংস্করণে উইকেট ৪৮২টি।

দশম ওভারের তৃতীয় বলটি মুস্তাফিজ করেন অফ স্টাম্পের বাইরে স্লোয়ার। রিভার্স স্কুপ খেলেন ওয়ার্নার। শর্ট থার্ডম্যানে এক হাতে চোখধাঁধানো ক্যাচ নেন মাথিশা পাথিরানা। স্রেফ ৪ রান দিয়ে ওভার শেষ করেন মুস্তাফিজ।

এরপর তাকে আবার আক্রমণে আনা হয় ১৮তম ওভারে; একটি করে ছক্কা ও চার মারেন রিশাভ পান্ত। একটি লেগ বাই সিঙ্গেলসহ ওভারে আসে ১৪ রান।

কোটার শেষ ওভারেও সেরাটা দিতে পারেননি মুস্তাফিজ। চার হজম করে শুরু করা ওভারে আরেকটি ‘ফ্রন্ট ফুট নো’ বল করেন তিনি। ওভারে দেন ১২ রান।

মুস্তাফিজের বাজে দিনে দারুণ খেলেন ওয়ার্নার ও পান্ত। ৩ ছক্কা ও ৫ চারে ৩৫ বলে ৫২ রান করেন অস্ট্রেলিয়ান ওপেনার। ভারতের কিপার-ব্যাটসম্যানের ব্যাট থেকে আসে ৩ ছক্কা ও চারটি চারে ৩২ বলে ৫১ রান। ভয়ঙ্কর সড়ক দুর্ঘটনার পর আইপিএল দিয়ে মাঠে ফেরা পান্ত তৃতীয় ম্যাচেই পেলেন ফিফটির স্বাদ।

সঙ্গে পৃথ্বী শর ২৭ বলে ৪৩ রানের সৌজন্যে চেন্নাইয়ের বিপক্ষে বড় পুঁজি গড়ে দিল্লি। টস জিতে ব্যাটিং নিয়ে ৫ উইকেট হারিয়ে তারা করে ১৯১ রান।