চার স্পিনার খেলানোর ইঙ্গিত ইংল্যান্ডের

অভিষেকের অপেক্ষায় থাকা অফ স্পিনার শোয়েব বাশির দ্বিতীয় টেস্টের জন্য দলের ভাবনায় আছে বলে জানালেন কোচ ব্রেন্ডন ম্যাককালাম।

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 30 Jan 2024, 03:35 PM
Updated : 30 Jan 2024, 03:35 PM

ভারতে টেস্ট ম্যাচের উইকেট মানেই যেন স্পিনারদের জন্য স্বর্গ। এর ব্যতিক্রম হয়নি ভারত ও ইংল্যান্ডের হায়দরাবাদ টেস্টেও। সেখানে যথারীতি দাপট দেখান দুই দলের স্পিনাররা। সিরিজের বাকি ম্যাচগুলোতেও পিচে বেশি টার্ন থাকলে ইংল্যান্ড তাদের সব স্পিনারকে একসঙ্গে খেলাতে দ্বিধা করবে না বলে জানালেন কোচ ব্রেন্ডন ম্যাককালাম। 

টার্নি উইকেটে প্রথম টেস্টে দুর্দান্ত এক জয়ে পাঁচ ম্যাচের সিরিজে এগিয়ে আছে ইংল্যান্ড। ওই ম্যাচে সফরকারীরা একমাত্র পেসার হিসেবে খেলায় মার্ক উডকে। দুই ইনিংস মিলিয়ে ২৫ ওভার বোলিং করে কোনো উইকেট তিনি পাননি। 

একাদশে ছিলেন তিন স্পিনার জ্যাক লিচ, রেহান আহমেদ ও টম হার্টলি। স্রেফ এক টেস্টের অভিজ্ঞতা নিয়ে এই ম্যাচ খেলতে নামেন রেহান। হার্টলির হয় অভিষেক। বাঁহাতি এই স্পিনারই দ্বিতীয় ইনিংসে ৭ উইকেট নিয়ে বল হাতে ইংলিশদের জয়ের নায়ক।

২০২১ সালে সবশেষ ভারত সফরেও চেন্নাইয়ে প্রথম টেস্টে জিতেছিল ইংল্যান্ড। ওই ম্যাচের মতো সিরিজের বাকি ম্যাচগুলোর পিচেও দেখা গিয়েছিল বড় টার্ন। এবারও তেমনটা হলে ইংল্যান্ড তাদের চার স্পিনার নিয়ে মাঠে নামতে প্রস্তুত, নিউ জিল্যান্ডের এসইএনজেড রেডিওর সঙ্গে আলাপচারিতায় বললেন ম্যাককালাম। 

ইংল্যান্ড দলে চতুর্থ স্পিনার হিসেবে আছেন শোয়েব বাশির। স্রেফ ৬টি প্রথম শ্রেণির ম্যাচ খেলে এই সিরিজের দলে ডাক পাওয়া অফ স্পিনার ভিসা জটিলতায় ভারতে পৌঁছান দেরিতে, প্রথম টেস্টের মাঝে। দ্বিতীয় টেস্টের জন্য দলের ভাবনায় তিনি ভালোভাবেই আছেন বলে জানালেন ম্যাককালাম। 

“সে (বাশির) আবু ধাবির ক্যাম্পে আমাদের সঙ্গে ছিল। তার স্কিলে আমরা সত্যিই মুগ্ধ। সে দলের সঙ্গে মানানসই। টম হার্টলির মতো প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে তার অভিজ্ঞতা কম, তবে আমাদের ভাবনা তার স্কিল এখানে দলকে সাহায্য করতে পারে।”

“সে একদম সঠিক সময়েই এসেছে। যখন সে (হায়দরাবাদে) পৌঁছায়, ছেলেরা চিৎকার করে অভিবাদন জানায় তাকে এবং টেস্ট জয়ের বিশেষ মুহূর্তের সাক্ষী হয় সে। পরের ম্যাচের জন্য সে আমাদের ভাবনায় থাকবে। প্রথম টেস্টে যেমনটা দেখেছি, সিরিজের বাকি ম্যাচগুলোতে উইকেট এমন স্পিন সহায়ক হতে থাকলে আমরা সব স্পিনার খেলাতে কিংবা ভারসাম্য ধরে রাখতে ভয় পাব না।” 

প্রথম টেস্টে হার্টলি শেষের নায়ক হলেও বল হাতে ম্যাচে তার শুরুটা ভালো ছিল না। প্রথম বলেই হজম করেন ছক্কা। প্রথম ইনিংসে ৯ ওভারের প্রথম স্পেলে ৬৩ রান দিয়ে উইকেটশূন্য থাকেন তিনি। তারপরও তার ওপর আস্থা রেখে, তাকে যেভাবে সামলেছেন অধিনায়ক বেন স্টোকস, তা নজর কেড়েছে ম্যাককালামের। 

“প্রথম ইনিংসে ভারতীয় ব্যাটারদের চাপের মুখে থাকা সত্ত্বেও দীর্ঘ স্পেল বোলিং করিয়ে বেন স্টোকস যেভাবে টম হার্টলিকে সামলেছে, আমার মনে হয় এটাই নেতৃত্বের আসল গুণ। শুধু টম নয়, স্কোয়াডে যারা আছে তাদের সবার জন্য পরিষ্কার বার্তা ছিল যে, আমরা যখন স্বাধীনভাবে খেলার কথা বলি, ম্যাচ এগিয়ে নেওয়ার এবং পার্থক্য তৈরি করার চেষ্টা করি, তখন কাউকে দূরে সরিয়ে দেওয়া হবে না বা বিপদের আভাস পেলে ছুড়ে ফেলা হবে না। অধিনায়কের চমৎকার সিদ্ধান্ত ছিল এটি। এটাই টমকে অনুভব করিয়েছে যে, সে দলের অংশ।”