রাওয়ালপিন্ডির রান উৎসবে যোগ দিলেন ইমাম-শফিক

দ্বিতীয় দিনে অবিচ্ছিন্ন জুটিতে ১৮১ রান তুলে ফেলেছেন পাকিস্তানের এই দুই ওপেনার।

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 2 Dec 2022, 02:20 PM
Updated : 2 Dec 2022, 02:20 PM

সাম্প্রতিক সময়ে বিশ্বব্যাপী টেস্ট ক্রিকেটে দলীয় সংগ্রহ কমেছে উল্লেখযোগ্য হারে। আগের মতো নিয়মিত বড় স্কোর গড়তে দেখা যায় না তেমন একটা। তবে কন্ডিশনের কারণে এক্ষেত্রে ব্যতিক্রম পাকিস্তান। দীর্ঘদিন আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে দূরে থাকা দেশটিতে এখনও দাপট দেখাচ্ছেন ব্যাটসম্যানরা। যার উজ্জ্বল উদাহরণ চলতি রাওয়ালপিন্ডি টেস্ট। দুই দিনে হয়ে গেছে ৮৩৮ রান!

পাকিস্তানের বোলারদের তুলোধুনো করে ওভারপ্রতি সাড়ে ৬ করে রান তুলেছে ইংল্যান্ড। চার সেঞ্চুরির সৌজন্যে স্রেফ ১০১ ওভারে ৬৫৭ রানের সংগ্রহ দাঁড় করেছে বেন স্টোকসের দল। টেস্ট ইতিহাসে ন্যুনতম ১০০ ওভার ব্যাটিং করা ইনিংসে এর চেয়ে দ্রুত রান তোলার নজির নেই আর একটিও।

অমন ঝড় তোলেননি স্বাগতিক দলের দুই ওপেনার আব্দুল্লাহ শফিক ও ইমাম উল হক। তবে কার্যকারিতার দিক থেকে কমও করেননি। দ্বিতীয় দিন শেষে অবিচ্ছিন্ন উদ্বোধনী জুটিতে ১৮১ রান তুলে ফেলেছেন তারা। দুই জনই দাঁড়িয়ে আছেন সেঞ্চুরির দুয়ারে।

সব উইকেট হাতে রেখে ৪৭৬ রানে পিছিয়ে তৃতীয় দিনের খেলা শুরু করবে পাকিস্তান।

রাওয়ালপিন্ডি ক্রিকেট স্টেডিয়ামের উইকেটের এমন আচরণ দেখে বিস্মিত পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের চেয়ারম্যান রমিজ রাজা। দ্বিতীয় দিনের প্রথম সেশন শেষে সংবাদ মাধ্যমে এই উইকেটকে বিব্রতকর হিসেবে উল্লেখ করেন তিনি।

“এটি আমাদের জন্য বিব্রতকর। বিশেষ করে যখন আপনার ক্রিকেট বোর্ডের চেয়ারম্যান একজন সাবেক ক্রিকেটার। এটি ক্রিকেটের জন্য কোনো ভালো বিজ্ঞাপন নয়। আমরা এর চেয়ে ভালো ক্রিকেটীয় জাতি।”

৭৫ ওভারে ৪ উইকেটে ৫০৬ রান নিয়ে দ্বিতীয় দিনের খেলা শুরু করে ইংল্যান্ড। নাসিম শাহর করা দিনের দ্বিতীয় বলেই ছক্কা মারেন স্টোকস। তবে বেশি দূর যেতে পারেননি তিনি। ওই ওভারের শেষ বলে দারুণ এক স্লোয়ারে ইংলিশ অধিনায়ককে বোকা বানান নাসিম। বোল্ড হয়ে সাজঘরে ফেরা স্টোকস স্রেফ ১৮ বলে করেন ৪১ রান।

প্রথম ওভারেই সাফল্য পাওয়া পাকিস্তান প্রথম সেশনেই বাকি ৫ উইকেট তুলে নেয়। দ্বিতীয় দিনে ২৬ ওভার খেলে ৬ উইকেট হারিয়ে ১৫১ রান করে ইংল্যান্ড। আগের দিন ৮০ বলে সেঞ্চুরি করা হ্যারি ব্রুক থামেন ১৫৩ রানের ইনিংস খেলে। তার ১১৬ বলের ইনিংসে ১৯ চারের সঙ্গে ছিল ৫টি ছয়।

দুই অভিষিক্ত মারকুটে ব্যাটসম্যান উইল জ্যাকস ও লিয়াম লিভিংস্টোন বড় কিছু করতে পারেননি। শেষ দিকে ৩ চার ও ১ ছয়ে অলি রবিনসনের ৩৭ রানে সাড়ে ছয়শ পার করে ইংল্যান্ড।।

পাকিস্তানের পক্ষে সর্বোচ্চ ৪ উইকেট পান অভিষিক্ত লেগ স্পিনার জাহিদ মাহমুদ। তবে ৩৩ ওভারে ২৩৫ রান খরচ করেন তিনি। ওভারপ্রতি রান খরচের হার ৭.১২! টেস্ট ইতিহাসে এক ইনিংসে ন্যুনতম ২৫ ওভার করা বোলারদের মধ্যে এটিই সবচেয়ে খরুচে বোলিংয়ের রেকর্ড।

বিশাল রানের বোঝা মাথায় নিয়ে ব্যাট করতে নামে পাকিস্তান। প্রথম সেশনের ৬ ওভার নির্বিঘ্নেই কাটান দুই ওপেনার। লাঞ্চ বিরতির পর প্রথম ওভারেই সুযোগ তৈরি করেন বাঁহাতি স্পিনার জ্যাক লিচ। কিন্তু উইকেটের পেছনে ইমামের ক্যাচ গ্লাভসে রাখতে পারেননি অলি পোপ।

লিচের পরের ওভারে ইনিংসের প্রথম ছক্কা মেরে পোপসহ পুরো ইংল্যান্ড দলের আফসোস বাড়িয়ে দেন ইমাম। অন্য প্রান্তে শুরু থেকেই সাবলীল ছিলেন শফিক। চা-বিরতি পর্যন্ত আর কোনো সুযোগ তৈরি করতে পারেননি ইংল্যান্ডের বোলাররা।

তৃতীয় সেশনের প্রথম ওভারে সেই আগের ঘটনার পুনরাবৃত্তি। জেমস অ্যান্ডারসনের করার ওভারের পঞ্চম বলটি শফিকের গ্লাভসে লেগে যায় উইকেটের পেছনে। বাম দিকে ঝাঁপিয়ে সেটি ধরেন পোপ। কিন্তু রিপ্লেতে দেখা যায় তার গ্লাভসে ঢোকার আগে মাটি ছুঁয়েছিল বল। অল্পের জন্য বেঁচে যান শফিক।

দিনের বাকি অংশ নিরাপদে কাটিয়ে দেন পাকিস্তানের দুই ওপেনার। আলোকস্বল্পতায় ১১ ওভার বাকি থাকতে শেষ হয় দিনের খেলা। শফিক ৮৯ ও ইমাম ৯০ রান নিয়ে তৃতীয় দিন ব্যাটিংয়ে নামবেন।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

ইংল্যান্ড ১ম ইনিংস: ১০১ ওভারে ৬৫৭ (আগের দিন ৫০৬/৪) (ব্রুক ১৫৩, স্টোকস ৪১, লিভিংস্টোন ৯, জ্যাকস ৩০, রবিনসন ৩৭, লিচ ৬*, অ্যান্ডারসন ৬; নাসিম ২৪-০-১৪০-৩, আলি ২৪-১-১২৪-২, হারিস ১৩-১-৭৮-১, জাহিদ ৩৩-১-২৩৫-৪, সালমান ৫-০-৩৮-০, শাকিল ২-০-৩০-০)

পাকিস্তান ১ম ইনিংস: ৫১ ওভারে ১৮১/০ (শফিক ৮৯*, ইমাম ৯০*; অ্যান্ডারসন ৮-২-১৬-০, রবিনসন ৫-০-২১-০, লিচ ১৯-৪-৬৮-০, জ্যাকস ১২-২-৫০-০, রুট ৪-১-৯-০, স্টোকস ৩-০-১৫-০)

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক