রোজায় দুইবার টিসিবি পণ্য পাবে স্বল্প আয়ের কোটি পরিবার: বাণিজ্য প্রতিমন্ত্রী

গতবারও রমজান মাসে দুইবার ভর্তুকি মূল্যে পণ্য দিয়েছিল সরকার। স্বাভাবিক সময়ে যা প্রতি মাসে একবার দেওয়া হয়।

নিজস্ব প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 14 Feb 2024, 03:33 PM
Updated : 14 Feb 2024, 03:33 PM

স্বল্প আয়ের এক কোটি পরিবারকে রমজান মাসে দুইবার ভর্তুকি মূল্যে খাদ্য সহায়তা দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন বাণিজ্য প্রতিমন্ত্রী আহসানুল ইসলাম টিটু।

বুধবার রাজধানীর মতিঝিলে মেট্রোপলিটন চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি (এমসিসিআই) আয়োজিত মধ্যাহ্নভোজ সভায় যোগ দিয়ে তিনি বলেন, টিসিবির কার্ডধারীরা তেল, চিনি, ছোলা, মসুর ডাল ও খেজুর- এই পাঁচ পণ্য পাবে রমজান মাসে।

গতবারও রোজায় দুইবার ভর্তুকি মূল্যে পণ্য দিয়েছিল সরকার। স্বাভাবিক সময়ে যা প্রতি মাসে একবার দেওয়া হয়।

দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণে খবরদারির পরিবর্তে সরকার সবার সহযোগী হতে চায় মন্তব্য করে আহসানুল ইসলাম বলেন, “ব্যবসায়ীদের জনবান্ধব হতে হবে, ব্যবসায়ীরা কেন যেন সরকারবান্ধব হয়ে পড়ছে। আগে যেখানে সরকারের সঙ্গে বিভিন্ন বিষয়ে বার্গেইন করত, এখন তা করতে পারছে না। ব্যবসায়ীদের জনস্বার্থ দেখতে হবে।”

আগামী মাস থেকে বাজার ব্যবস্থাপনায় দৃশ্যমান পরিবর্তন আসছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, “উপজেলা, জেলা ও বিভাগীয় শহরে পণ্যের দাম কেমন তা ওয়েবসাইটে প্রকাশ করা হবে। ঢাকা শহরের বিভিন্ন স্থানের পণ্যমূল্য থাকবে। উৎপাদন ও খুচরা বাজারে পণ্যের দর জানতে পারবেন ভোক্তারা।”

চাল দিয়ে এটি শুরু হবে জানিয়ে প্রতিমন্ত্রী বলেন, “বস্তার গায়ে ধানের জাত, উৎপাদনের তারিখ ও মূল্য লেখা থাকবে। ভোক্তা অধিদপ্তর ও বিভিন্ন সংস্থা তা তদারকি করবে।”

বাজার ব্যবস্থাপনা ‘স্মার্ট’ করতে বিভিন্ন উদ্যোগ সরকার নিয়েছে। এর মধ্যে চাঁদাবাজ ও সড়কে বিভিন্ন শ্রেণির দৌরাত্মের দিকে ইঙ্গিত করে তিনি বলেন, “অনেককেই ধরা হয়েছে। রাষ্ট্রের বিভিন্ন সংস্থা কাজ করছে। আগামী মাসেই তা দেখতে পারবেন। বাজার ব্যবস্থাপনা ভালো করতে বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের মধ্যে সমন্বয় করা হচ্ছে।”

দুষ্টের দমন চান ব্যবসায়ীরা

ইস্পাত শিল্প প্রতিষ্ঠান বিএসআরএমের হেড অব করপোরেট অ্যাফেয়ার্স সৌমিত্র কুমার বলেন, “রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরো (ইপিবি) ও বাংলাদেশ ব্যাংকের রপ্তানি হিসাবে পার্থক্য রয়েছে। এটা দূর করা প্রয়োজন। সৎ ব্যবসায়ীরা ভালোভাবে ব্যবসা করতে চান। মোটা দাগে সবাইকে দোষী সাব্যস্ত করা হচ্ছে।

“আমরা চাই দুষ্টের দমন ও শিষ্টের লালন নীতিতে চলুক সরকার।”

দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণে সারা বছরই অভিযান পরিচালনার দাবি করে ব্যারিস্টার নিহাদ কবির বলেন, “রামজান এলেই ভোক্তা অধিদপ্তর ও ম্যাজিস্ট্রেটদের অভিযান পরিচালনা বেশি দেখা যায়। শুধু এ এক মাস নয়, সারা বছরই অসৎদের ধরা হোক। তা সৎ ব্যবসায়ীদের জন্যও ভালো।”

তথ্যপ্রযুক্তি সেবা খাতের বাণিজ্য সংগঠন বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব সফটওয়্যার অ্যান্ড ইনফরমেশন সার্ভিসেস-বেসিসের সাবেক সভাপতি সৈয়দ আলমাস কবীর বলেন, “শুধু ১৫ শতাংশ ভ্যাট কেটে রাখায় তথ্যপ্রযুক্তি খাতের অনেক ব্যবসায়ী ও ফ্রিল্যান্সাররা দেশে রপ্তানি আয় হিসেবে বৈদেশিক মুদ্রার পুরোটা আনছেন না। কারণ, তাদের এই অর্থ পুনরায় দেশের বাইরে প্রয়োজনে ব্যয় করতে খরচ বেড়ে যায়।

“‘খরচ বাঁচাতে আয়ের মাত্র ২০ থেকে ৩০ শতাংশ দেশে আনছেন তারা। বাকি অর্থ বিদেশেই কোনো ব্যাংক হিসাবে রাখছেন। জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) এ বিষয়ে নীতিমালা ঠিক করলে সবার জন্য সুবিধা হয়।”

পাকিস্তানের চেয়ে ভালো নির্বাচন

সাম্প্রতিক বিষয়ে আলোচনা করা প্রয়োজন মন্তব্য করে বাণিজ্য প্রতিমন্ত্রী আহসানুল ইসলাম বলেন, “পাকিস্তানের চেয়ে বাংলাদেশে অনেক ভালো নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। মাত্র এক মাসের ব্যবধানে দুটি দেশে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। কিন্তু এখনো তাদের (পাকিস্তান) মধ্যে সংকট ও হানাহানি চলছে।”

মানবাধিকার, গণতন্ত্র ও নির্বাচন বিষয়ে পশ্চিমা বিশ্বের দেশগুলোর নাম না বলে তিনি বলেন, “সম্প্রতি আমার সঙ্গে একটা দেশের রাষ্ট্রদূত গণতন্ত্র ও মানবাধিকার নিয়ে কথা বলেছিলেন। গতকাল মঙ্গলবার রাতে এক অনুষ্ঠানে সেই রাষ্ট্রদূতের কাছে পাকিস্তানের নির্বাচনের বিষয়ে জানতে চাইলাম।’

“দেখা গেল তিনি এ বিষয়ে কথা বলতে উৎসাহী নন। বললেন, লিভ ইট। পরাশক্তিগুলো বাইরে থেকে দেশের অভ্যন্তরের পার্থক্য বোঝে না, এটা দৃশ্যমান।”

ভবিষ্যতে সবার সহযোগিতায় এ দেশে আরও ভালো নির্বাচন ও গণতন্ত্র চর্চা সম্ভব বলে মন্তব্য করেন প্রতিমন্ত্রী।

এমসিসিআই সভাপতি কামরান টি রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন মেঘনা গ্রুপের চেয়ারম্যান মোস্তফা কামাল, প্রাণ গ্রুপের চেয়ারম্যান আহসান খান চৌধুরী, ট্রান্সকম গ্রুপের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) ও এমসিসিআই সহ-সভাপতি সিমিন রহমান।