‘জাহাজবাড়ি’ থেকে গ্রেপ্তার আরও ৪ জন রিমান্ডে

রাজধানীর কল্যাণপুরের ‘জঙ্গি আস্তানা’ ‘জাহাজবাড়ি’ থেকে গ্রেপ্তার আরও চারজনকে জিজ্ঞাবাদের জন্য দুইদিন করে হেফাজতে নেওয়ার অনুমতি দিয়েছে আদালত।

আদালত প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 28 July 2016, 02:13 PM
Updated : 28 July 2016, 02:13 PM

ঢাকার মহানগর হাকিম নূরুন্নাহার ইয়াসমিন তাদের রিমান্ড আবেদনের শুনানি শেষে বৃহস্পতিবার এ আদেশ দেন।

রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদের অনুমতি পাওয়া চারজন হলেন, মো. মাজহারুল ইসলাম (৪২), মো. মাহফুজুল (২৭), মো. মমিন উদ্দিন (৪৫) ও মো. জাকির হোসেন (৪০)।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে আদালত পুলিশের এক কর্মকর্তা বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে জানান, এ চারজনের মধ্যে তিনজন বাড়ির মালিকের আত্মীয়, আর আরেকজন দারোয়ান।

আদালত পুলিশের প্রসিকিউশন বিভাগের জ্যেষ্ঠ সহকারী কমিশনার মিরাশ উদ্দিন বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে জানান, মিরপুর থানার এসআই বজলার রহমান এই চারজনকে আদালতে পাঠিয়ে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পাঁচদিনের রিমান্ড চান।

 এ সময় তাদের পক্ষে জামিন চাওয়া হলে শুনানি শেষে তা নাকচ করেন বিচারক।

এর আগে ‘নাম ঠিকানা যাচাই না করে জঙ্গিদের বাড়ি ভাড়া দেওয়ার অভিযোগে’ জাহাজবাড়ি নামে পরিচিত তাজ মঞ্জিলের মালিকের স্ত্রী মমতাজ পারভীনকে দুইদিনের রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য গত বুধবার অনুমতি দেন একই বিচারক।

মমতাজ পারভীনকে ৫৪ ধারায় আটক গ্রেপ্তার করেছিল পুলিশ।

নতুন চারজনকেও ৫৪ ধারায় গ্রেপ্তার করা হয়েছে জানিয়ে রিমান্ড আবেদনে বলা হয়, গ্রেপ্তাররা কল্যাণপুরের ৫ নম্বর সড়কের ৫৩ নম্বরের ওই বাড়িতে (তাজ মঞ্জিল, জাহাজবাড়ি) অবস্থান করছিলেন। তাদের কথাবার্তা সন্দেহজনক হওয়ায় এবং তাদের সঙ্গে জঙ্গিদের সংশ্লিষ্টতা ছিল বলে মনে হওয়ায় তাদের ৫৪ ধারায় গ্রেপ্তার করা হয়।

ঘটনার সুষ্ঠু তদন্তের স্বার্থে জঙ্গিদের বিষয়ে তথ্য সংগ্রহের জন্য পুলিশ হেফাজতে নিয়ে জিজ্ঞাবাদ করা প্রয়োজন।

কল্যাণপুরে তাজ মঞ্জিল নামের ছয় তলা ওই ভবনের পঞ্চম তলায় অভিযানে গিয়ে সোমবার রাতে হামলার মুখে পড়েন পুলিশ সদস্যরা। পরে মঙ্গলবার ভোরে সেখানে সোয়াটের বিশেষ অভিযানে নিহত হন সন্দেহভাজন নয় জঙ্গি। আহত অবস্থায় ধরা হয় একজনকে।

জঙ্গিরা ওই বাসায় ভাড়া নিয়ে জুন মাসের প্রথম দিক থেকে থাকা শুরু করে বলে জানিয়েছিল পুলিশ।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক