প্রাইভেট কার ধাওয়া করে ২ ছিনতাইকারীকে ধরল পুলিশ

প্রাইভেট কার ধাওয়া করে দুই ছিনতাইকারী এবং বাসে আগুন দেওয়ার ঘটনায় দুইজনকে হাতেনাতে ধরেছে পুলিশ।

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 28 Nov 2023, 03:55 PM
Updated : 28 Nov 2023, 03:55 PM

রাজধানীর ধানমন্ডি এলাকায় ছিনতাই করে প্রাইভেট কারে করে পালিয়ে যাওয়ার সময় ধাওয়া করে দুই  ছিনতাইকারীকে ধরার খবর দিয়েছে পুলিশ।

বুধবার দুপুরে ডিএমপি মিডিয়া সেন্টারে এক সংবাদ সম্মেলনে অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার খ. মহিদ উদ্দিন এ তথ্য জানান।

এছাড়া পল্লবীতে বাসে আগুন দেওয়ার সময় হাতেনাতে দুইজনকে গ্রেপ্তারের কথাও জানিয়েছেন তিনি।

মহিদ উদ্দিন জানান, সোমবার রাত ১টার দিকে দুই ভাই হাজারীবাগ থেকে রিকশায় করে পান্থপথে যাচ্ছিলেন। পথে ধানমন্ডি আবাহনী মাঠের পেছনে ওয়াসা অফিসের সামনে একটি প্রাইভেট কার তাদের রিকশার গতিরোধ করে।

প্রাইভেট কার থেকে তিন ছিনতাইকারী নেমে চাপাতির ভয় দেখিয়ে তাদের কাছ থেকে মোবাইল ফোন, টাকা ছিনিয়ে নেয় উল্লেখ করে এই পুলিশ কর্মকর্তা বলেন, “তাদের ডাক-চিৎকারে ধানমন্ডি থানার টহলরত পুলিশ ঘটনাস্থলে ছুটে আসে এবং সাথে সাথে ডিএমপির কন্ট্রোল রুমে জানিয়ে প্রাইভেট কারের পেছনে ধাওয়া করে।

“পুলিশের ধাওয়া খেয়ে ছিনতাইকারীরা ধানমন্ডি ২৭ নম্বর দিয়ে মিরপুর রোড হয়ে গাবতলীর দিকে যাওয়ার সময় ধানমন্ডি থানা পুলিশও তাদের পিছু নেয়। সেই সাথে কন্ট্রোল রুম থেকে তথ্য পেয়ে অন্য থানার টহল পুলিশও তৎপর হয়ে উঠে। এক পর্যায়ে প্রাইভেট কারটি কল্যাণপুর পৌঁছলে পুলিশের ব্যারিকেডের সামনে পড়লে দুইজন পালিয়ে গেলেও অপর দুইজন ধরা পড়ে।”

অন্য দুই ছিনতাইকারী ও চক্রের অন্য সদস্যদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে জানিয়ে মহিদ উদ্দিন বলেন, এই চক্রটি বেশ কয়েকমাস ধরে প্রাইভেট কারে করে রাজধানীর বিভিন্ন জায়গায় ছিনতাই করে আসছিল। তাদের ধরিয়ে দেওয়ার জন্য ২০ হাজার টাকা পুরস্কারও ঘোষণা করা হয়েছে।

পল্লবীতে ২ অগ্নিসংযোগকারী গ্রেপ্তার

এদিকে সোমবার সন্ধ্যায় পল্লবী থানাধীন ১২ নম্বর সেকশনে কেএফসির সামনে শিকড় পরিবহন নামের একটি বাসে আগুন দেওয়ার সময় দুইজনকে গ্রেপ্তার করা হয়। এরা হলেন- আসাদুল তালুকদার (৩০) এবং ইউসুফ শেখ (২৭)।

অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার খ. মহিদ উদ্দিন জানান, টহলে থাকা পল্লবী থানা পুলিশ স্থানীয়দের সহায়তায় তাদের হাতেনাতে গ্রেপ্তার করে। কয়েকজন পালিয়ে যায়।

তিনি বলেন, “গ্রেপ্তারের পর তারা জানিয়েছে, স্থানীয় বিএনপি নেতা মামুন বাসে আগুন লাগানোর জন্য তাদের সঙ্গ ৫ হাজার টাকায় চুক্তি করে।

“তিন চার দিন আগে মোহনা টিভির গলিতে তারা শলাপরামর্শ করে এবং টাকার চুক্তি হয়। সেসময় তাদের হাতে ৫ হাজার টাকা নগদ এবং পেট্রোল ভর্তি বোতল তুলে দেওয়া হয়।”

তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে বলে জানান তিনি।