নিয়োগ পরীক্ষায় প্রশ্ন ফাঁস: মাউশি কর্মকর্তা গ্রেপ্তার

প্রশ্নফাঁসের ঘটনায় গত মে মাসের ওই নিয়োগ পরীক্ষা বাতিল করে মাউশি।

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 25 July 2022, 09:47 AM
Updated : 25 July 2022, 09:47 AM

নিয়োগপরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁসের সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তরের (মাউশি) এক কর্মকর্তাকে গ্রেপ্তার করেছে গোয়েন্দা পুলিশ।

চন্দ্র শেখর হালদার ওরফে মিল্টন নামের ওই ব্যক্তি ৩১তম বিসিএসের শিক্ষা ক্যাডারের কর্মকর্তা।

রোববার রাতে ঢাকার সেগুনবাগিচা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করে মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) তেজগাঁও বিভাগ।

মাউশির বিভিন্ন পদে নিয়োগ পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁসের অভিযোগে এ নিয়ে মোট পাঁচজনকে গ্রেপ্তার করা হল বলে জানান গোয়েন্দা পুলিশ প্রধান মোহাম্মদ হারুন অর রশীদ।

বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে তিনি বলেন, “গত ১৩ মে প্রশ্ন ‘ফাঁসের’ ঘটনার পর কয়েকজনকে গ্রেপ্তার করা হয়। তাদের (গ্রেপ্তার ব্যক্তি) দেওয়া তথ্য যাচাইবাছাই করে প্রশ্নপত্র ফাঁসের সঙ্গে চন্দ্র শেখর হালদারের সংশ্লিষ্টতা পাওয়া যায়, এরপর তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।“


গোয়েন্দা তেজগাঁও জোনাল টিমের অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার মো. শাহাদাত হোসেন সুমা বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে জানান, ওইদিন মাউশির ৫১৩টি পদে নিয়োগের জন্য লিখিত পরীক্ষা নেওয়া হয়। পরীক্ষা চলার সময়েই ইডেন কলেজ কেন্দ্র থেকে থেকে চাকরি প্রার্থী সুমন জোয়ার্দার নামে একজনকে গ্রেপ্তার করা হয়। তার প্রবেশপত্রের উল্টো পিঠে ৭০টি এমসিকিউ (নৈর্ব্যত্তিক) প্রশ্নের উত্তর লেখা ছিল।

এরপর সুমনের দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে পটুয়াখালীর খেপুপাড়া মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ের গণিতের শিক্ষক সাইফুল ইসলামকে গ্রেপ্তার করে গোয়েন্দা পুলিশ।

শাহাদাত হোসেন বলেন, “মামলার পর রিমান্ডে নিলে সুমন ও সাইফুল প্রশ্নফাঁসের বিষয়টি স্বীকার করেন।“

পরে প্রার্থী সুমন এবং শিক্ষক সাইফুলের দেওয়া তথ্যে অভিযানে নেমে গত ১৪ মে পটুয়াখালী সরকারি কলেজের প্রভাষক রাশেদুল, মাউশির উচ্চমান সহকারী আহসান হাবীব ও অফিস সহকারী নওশাদকেও গ্রেপ্তার করা হয়।

ওই ঘটনার এক সপ্তাহ পরে সেই নিয়োগ পরীক্ষা বাতিল করে মাউশি।

Also Read: প্রশ্নপত্র ফাঁস: মাউশির অফিস সহকারী নিয়োগ পরীক্ষা বাতিল

Also Read: প্রশ্ন ফাঁস: মাউশি ও কলেজের ৪ কর্মীসহ গ্রেপ্তার ৫

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক