‘স্বাস্থ্য উন্নয়ন’ নিয়ে হয়ে গেল ভার্চুয়াল সম্মেলন

চিকিৎসা নির্ভরতা কমে সরকার ও ব্যক্তির ব্যয় কমাবে ‘হেলথ প্রমোশন’।

নিজস্ব প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 22 Nov 2023, 12:56 PM
Updated : 22 Nov 2023, 12:56 PM

বাংলাদেশে হৃদরোগ, ক্যান্সার, ডায়াবেটিসের মত অসংক্রামক রোগের প্রকোপ আশঙ্কাজনক হারে বাড়ছে। দেশে মোট মৃত্যুর প্রায় ৭০ শতাংশের জন্য দায়ী এসব অসংক্রামক রোগ।

‘হেলথ প্রমোশন’ কার্যক্রমের মাধ্যমে রোগ প্রতিরোধ ব্যবস্থা জোরদার করা গেলে এ অবস্থার উন্নতি হবে এবং চিকিৎসা নির্ভরতা কমে সরকার ও ব্যক্তির ব্যয় কমে আসবে।

‘হেলথ প্রমোশন ইন বাংলাদেশ’ শীর্ষক এক ভার্চুয়াল সম্মেলনে এসব পরামর্শ এসেছে বক্তাদের কাছ থেকে। মঙ্গলবার প্রজ্ঞা (প্রগতির জন্য জ্ঞান), বাংলাদেশ ইউনির্ভাসিটি অব হেলথ সায়েন্স, ওয়ার্ক ফর এ বেটার বাংলাদেশ (ডব্লিউবিবি) ট্রাস্টসহ ১৭টি সংগঠন সম্মিলিতভাবে এ সম্মেলনের আয়োজন করে।

এতে স্বাস্থ্য উন্নয়ন বিষয়ে সচেতনতা বাড়ানো এবং করণীয় সম্পর্কে আলোচনা করেন জনস্বাস্থ্যবিদ, চিকিৎসক, আইনজীবি, শিক্ষকসহ বিভিন্ন জনস্বাস্থ্য ও পরিবেশবাদী সংগঠনের প্রতিনিধি ও বিশেষজ্ঞরা।

সম্মেলনে স্বাস্থ্য উন্নয়নসহ দেশের সার্বিক স্বাস্থ্য ব্যবস্থা উন্নয়নে পাঁচ দফার সম্মিলিত ঘোষণা দেওয়া হয় বলে সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছে প্রজ্ঞা।

এতে বলা হয়, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার বরাত দিয়ে হেলথ প্রমোশন বা স্বাস্থ্য উন্নয়নের গুরুত্ব তুলে ধরেন বক্তারা। স্বাস্থ্য উন্নয়ন বলতে এমন একটি প্রক্রিয়াকে বোঝানো হয়, যার দ্বারা মানুষ নিজের স্বাস্থ্য ও স্বাস্থ্যের নির্ধারকসমূহের ওপর নিয়ন্ত্রণ বাড়াতে এবং নিজ স্বাস্থ্যের উন্নতি লাভের সক্ষমতা অর্জন করতে পারে।

সাধারণভাবে তামাকপণ্যের ব্যবহার, কায়িক পরিশ্রম বা ব্যায়ামের অভাব, অ্যালকোহল গ্রহণ, স্বাস্থ্যসম্মত খাবার গ্রহণের অভাব এবং বায়ু দূষণের মতো বিষয়গুলোকে অসংক্রামক রোগের মূল ঝুঁকি হিসেবে চিহ্নিত করা হয়।

তবে এসব স্বাস্থ্য ঝুঁকি প্রায় সম্পূর্ণভাবে এড়ানো বা নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব বলেই অসংক্রামক রোগজনিত মৃত্যুকে প্রতিরোধযোগ্য মৃত্যু হিসেবে বিবেচনা করা হয়।