‘নিরাপত্তা নিশ্চিত করে’ তবেই বিআরটির কাজ

বিআরটিসহ ঢাকায় চলমান সব প্রকল্পের পরিচালকদের বৈঠকে ডেকেছেন মেয়র আতিক।

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 16 August 2022, 06:41 PM
Updated : 16 August 2022, 06:41 PM

ঢাকার উত্তরায় বাস র‌্যাপিড ট্রানজিট (বিআরটি) প্রকল্পের গার্ডার পড়ে হতাহতের ঘটনার পর সড়ক বিভাগ ও মহাসড়ক বিভাগের সচিব এ বি এম আমিন উল্লাহ নূরী বলছেন, এ প্রকল্পের কাজ ফের শুরু করার আগে নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিশ্চিত করা হবে।

সোমবার বিকালে উত্তরার জসিম উদ্দীন রোডের মাথায় প্যারাডাইস টাওয়ারের সামনে বিআরটি প্রকল্পের একটি বিশালাকার গার্ডার ক্রেন থেকে আছড়ে পড়ে একটি প্রাইভেট কারের ওপর। এতে ওই গাড়ির মধ্যেই মারা যান দুই শিশু ও দুই নারীসহ পাঁচজন।

মঙ্গলবার সকালে ঘটনাস্থল পরিদর্শনে গিয়ে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র আতিকুল ইসলাম বিআরটি প্রকল্পের সব ধরনের কাজ আপাতত বন্ধ রাখার কথা জানান।

Also Read: বিআরটি প্রকল্প: দীর্ঘদিনের দুর্ভোগ, জীবনেরও ঝুঁকি

মঙ্গলবার বিকালে সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের সচিব জানান, এ প্রকল্পের কাজ চলার সময় নিরাপত্তার বিষয়টি নিশ্চিত করতে চাইছেন তারা। ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র আতিকুল ইসলামও চাইছেন পূর্ণাঙ্গ নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে।

এ বি এম আমিন উল্লাহ নূরী বলেন, “আমরা ওদের (ঠিকাদারদের) কাছ থেকে সেইফটি কমপ্লায়েন্স নেব। যেহেতু দুর্ঘটনা ঘটেছে, দুর্ঘটনা না ঘটার জন্য সেইফটি কমপ্লায়েন্স কী করেছে, তা আমরা জানতে চাই। কনসালটেন্ট সেই সেইফটি কমপ্লায়েন্স দেখবে। তারা অনুমোদন করার পরে সে অনুযায়ী কাজ শুরু করবে।”

Also Read: গার্ডার দুর্ঘটনা: ঠিকাদারের ‘গাফিলতি’ পেয়েছে তদন্ত কমিটি

দুর্ঘটনা তদন্তে ইতোমধ্যে কমিটি গঠন করেছে সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগ। প্রাথমিক তদন্তে গাফিলতির প্রমাণ মিলেছে বলে আমিন উল্লাহ নুরী দুপুরে মন্ত্রণালয়ে সাংবাদিকদের জানান।

তিনি বলেন, “প্রাথমিক তদন্ত প্রতিবেদন অনুযায়ী, ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের অবহেলা, গাফলতি পেয়েছে তদন্ত কমিটি। গতকাল (সোমবার) কাজ করার কথা ছিল না, ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান কাউকে না জানিয়ে কাজ করছিল।”

মঙ্গলবার দুর্ঘটনাস্থল পরিদর্শনে গিয়ে মেয়র আতিকুল ইসলাম জানান, শুধু বিআরটি প্রকল্প নয়, ঢাকায় চলমান সব প্রকল্পের পরিচালকদের সঙ্গে বৃহস্পতিবার বৈঠক করবেন তিনি।

বৈঠকে এসব প্রকল্পের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে কী কী ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে তা জানতে চাওয়া হবে।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক