ইয়েমেনে যুক্তরাষ্ট্রের নতুন হামলার পর কঠোর জবাবের হুমকি হুতিদের

প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন প্রশাসন লোহিত সাগরে যাতায়াত করা জাহাজগুলোকে হুতি হামলার হাত থেকে রক্ষার অঙ্গীকার করার পর শনিবার ইয়েমেনে ফের হামলা চালায়।

রয়টার্স
Published : 14 Jan 2024, 04:09 AM
Updated : 14 Jan 2024, 04:09 AM

ইয়েমেনের হুতিদের বিরুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্র শনিবার ফের হামলা চালানোর পর এর কঠোর এবং সমুচিত জবাব দেওয়ার হুমকি দিয়েছে হুতি মিলিশিয়ারা। এতে উত্তেজনা আরও বেড়েছে।

প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন প্রশাসন লোহিত সাগরে যাতায়াত করা জাহাজগুলোকে ইরান সমর্থিত হুতিদের হামলার হাত থেকে রক্ষার অঙ্গীকার করার পর ইয়েমেনে নতুন করে ওই হামলা চালায়।

যুক্তরাষ্ট্র ও যুক্তরাজ্য শুক্রবার হুতিদের বিভিন্ন সামরিক স্থাপনায় প্রায় ৩০টি হামলা চালানোর পরদিন যুক্তরাষ্ট্র এককভাবে দেশটিতে হামলা চালায়। এতে মধ্যপ্রাচ্যে এরই মধ্যে ছড়িয়ে পড়া যুদ্ধের আরও বিস্তার ঘটা নিয়ে উদ্বেগ সৃষ্টি হয়েছে।

শনিবার রাতে হুতিদের একটি রাডার স্থাপনা লক্ষ্য করে হামলা চালায় যুক্তরাষ্ট্র। এই স্থাপনাটি লোহিত সাগরে চলাচলকারী জাহাজগুলোর জন্য হুমকি হয়ে ছিল বলে তারা জানিয়েছে।

এ হামলার পর হুতিদের মুখপাত্র নাসরুলদিন আমের আল-জাজিরাকে বলেছেন, “নতুন এই হামলার শক্তিশালী, কঠোর এবং ফলপ্রদ জবাব দেওয়া হবে।” হামলায় হুতি পক্ষে কোনও ক্ষয়ক্ষতি হয়নি বলেও দাবি করেন তিনি।

আরেক হুতি মুখপাত্র মোহাম্মদ আবদুলসালাম বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে বলেন, সানার সামরিক ঘাঁটিতে গতরাতে যে হামলা হয়েছে তাতে হুতি গোষ্ঠীর সক্ষমতায় কোনও গুরুতর প্রভাব পড়েনি। এতে লোহিত সাগর এবং আরব সাগরে চলাচলকারী ইসরায়েল-সংশ্লিষ্ট জাহাজগুলোর ওপর হুতিদের হামলা বন্ধ হবে না।

তবে যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিরক্ষা দপ্তর পেন্টাগন জানিয়েছিল, শুক্রবার যুক্তরাষ্ট্র এবং ব্রিটেনের হামলায় হুতিদের যথেষ্ট ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।

ওই হামলার পরদিন ইয়েমেনে যুক্তরাষ্ট্রের নতুন হামলার পর জাতিসংঘের ইয়েমেন বিষয়ক দূত হ্যান্স গ্রানবার্গ জড়িত সব পক্ষকে ‘সর্বোচ্চ সংযম’ ধরে রাখার আহ্বান জানিয়েছেন এবং ওই অঞ্চলে বিপদ বাড়তে থাকার বিষয়ে সতর্ক করে দিয়েছেন।