যুক্তরাষ্ট্রের কেন্টাকিতে বন্যায় শিশুসহ ১৬ জনের মৃত্যু

মানুষের কৃতকর্মে জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে ‘মহাকাব্যিক এসব প্লাবনের’ ঘটনা ঘটছে বলে মন্তব্য করেন কেন্টাকির জিওলজিক্যাল সার্ভের পরিচালক অধ্যাপক উইলিয়াম হেইনবার্গ।

নিউজ ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 30 July 2022, 05:52 AM
Updated : 30 July 2022, 05:52 AM

যুক্তরাষ্ট্রের কেন্টাকি অঙ্গরাজ্যের পূর্বাঞ্চলে ব্যাপক বন্যায় ছয় শিশুসহ অন্তত ১৬ জনের মৃত্যু হয়েছে।

কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, প্রবল বৃষ্টিপাতে দেখা দেওয়া বন্যায় রাস্তা, ঘরবাড়ি তলিয়ে যায় এবং নদীগুলোর পানি পাড় উপচে পড়ে। মৃতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে জানিয়েছে তারা।

বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানায়, কেন্টাকির অ্যাপলাচিন কয়লা খনি অঞ্চলের বাড়ি ও গাড়ি থেকে কয়েক ডজন লোককে উদ্ধারে পুলিশ ও ন্যাশনাল গার্ডের সদস্যরা হেলিকপ্টার ও নৌকা ব্যবহার করে।

স্থানীয় গণমাধ্যমে আসা ভিডিওগুলোতে দেখা গেছে, বন্যার পানি বাড়ির ছাদ পর্যন্ত পৌঁছে গেছে এবং রাস্তাগুলোকে নদীর মতো দেখাচ্ছে।

Also Read: সংযুক্ত আরব আমিরাতে বন্যায় ৭ প্রবাসীর মৃত্যু

শুক্রবার সকালে এক সংবাদ সম্মেলনে কেন্টাকির গভর্নর অ্যান্ডি বেসিয়ার বলেন, “বন্যা এখনও শেষ হয়নি। আমরা অনুসন্ধান ও উদ্ধার কাজ চালিয়ে যাচ্ছি, কিন্তু এখনও বাস্তব ঝুঁকি রয়ে গেছে।”

যুক্তরাষ্ট্রের ফেডারেল ইমার্জেন্সি ম্যানেজমেন্ট এজেন্সির প্রধান ডিয়েন ক্রিসওয়েলকে নিয়ে হেলিকপ্টারে করে সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকাগুলো দেখে আসার পর বেসিয়ার জানান, তিনি বন্যার মাত্রা দেখে হতবাক হয়ে গেছেন।

অঙ্গরাজ্যটির রাজধানী ফ্রাঙ্কফোর্টের প্রায় ১৬০ কিলোমিটার দক্ষিণপূর্বে ২২ হাজার বাসিন্দার শহর জ্যাকসনের অধিকাংশ ডুবে গেছে বলে জানিয়েছেন তিনি।

“শত শত বাড়ি, তাদের খেলার মাঠ, পার্ক, ব্যবসা প্রতিষ্ঠান আমার ধারণার চেয়েও বেশি পানির নিচে ডুবে আছে, আমাদের মধ্যে এরকম কেউ দেখেছেন বলে আমার মনে হয় না। একেবারে ধ্বংসাত্মক,” বলেন তিনি

সাত মাসের মধ্যে এ নিয়ে দ্বিতীয়বারের মতো ব্যাপক দুর্যোগের শিকার হল কেন্টাকি। এর আগে ডিসেম্বরে অঙ্গরাজ্যটির পশ্চিমাংশে কয়েকটি টনের্ডোর তাণ্ডবে অন্তত ৮০ জনের মৃত্যু হয়েছিল।

বেসিয়ার জানান, শুক্রবার পর্যন্ত বন্যাজনিত ঘটনায় মৃত্যুর সংখ্যা বেড়ে ১৬ জনে দাঁড়িয়েছে, এদের মধ্যে অন্তত ছয়টি শিশু আছে।

বন্যার পানি কমার পর অনুসন্ধানকারী দল আরও মৃতদেহ খুঁজে পাবে বলে ধারণা করা হচ্ছে আর তাতে মৃতের সংখ্যা প্রায় নিশ্চিতভাবে আরও বাড়বে বলে জানিয়েছেন তিনি। এখনও অনেক মানুষ নিখোঁজ আছে বলেও জানিয়েছেন তিনি।

কেন্টাকির জিওলজিক্যাল সার্ভের পরিচালক অধ্যাপক উইলিয়াম হেইনবার্গ জানান, ২৪ ঘণ্টার মধ্যে বিভিন্ন অঞ্চলে ১৩ থেকে ২৫ সেন্টিমিটার বৃষ্টি হওয়ায় বন্যা দেখা দিয়েছে। মানুষের কৃতকর্মে জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে ‘মহাকাব্যিক এসব প্লাবনের’ ঘটনা ঘটছে বলে মন্তব্য করেন তিনি।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক