যুক্তরাষ্ট্রে সাবেক ট্রাম্প উপদেষ্টাকে খুনের চক্রান্তে ইরানি অভিযুক্ত

মার্কিন বিচার বিভাগ ইরানের রেভল্যুশনারি গার্ড কোরের সদস্য শাহরাম পোরসাফিকে অভিযুক্ত করেছে। তিনি মেহদি রেজায়ি নামেও পরিচিত।

রয়টার্স
Published : 10 August 2022, 05:37 PM
Updated : 10 August 2022, 05:38 PM

যুক্তরাষ্ট্রে সাবেক প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্প আমলের জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা জন বোল্টনকে খুনের চক্রান্তের অভিযোগ আনা হয়েছে ইরানের অভিজাত রেভল্যুশনারি গার্ড বাহিনীর এক সদস্যের বিরুদ্ধে।

মার্কিন বিচার বিভাগ বুধবার তেহরানের শাহরাম পোরসাফিকে অভিযুক্ত করেছে। এই ইরানি মেহদি রেজায়ি নামেও পরিচিত।

বলা হচ্ছে, ২০২০ সালের জানুয়ারিতে যুক্তরাষ্ট্রের ড্রোন হামলায় নিহত ইরানি কমান্ডার কাসেম সোলেমানির রক্তের বদলা নিতে জন বোল্টনকে হত্যার চক্রান্ত করেছিলেন পোরসাফি।

ইরান অভিজাত রেভ্যুলশনারি গার্ড কোরের (আইআরজিসি) বিশেষ কুদস ফোর্সের প্রধান কাসেম সোলেমানি।

মধ্যপ্রাচ্যে মার্কিন আধিপত্যের অন্যতম বিরোধী শক্তি ইরান, যা মার্কিনিদের জন্য এক স্থায়ী চ্যালেঞ্জ। আর ইরানের পক্ষে সেই শক্তির শীর্ষবিন্দু হিসেবে কাজ করতেন কমান্ডার কাসেম সোলেমানি।

চৌকস যোদ্ধা সোলেমানি ছিলেন ইরানের সর্বোচ্চ জনপ্রিয় একজন সামরিক ব্যক্তিত্ব। তাকে হারিয়ে ইরানের অপরিমেয় ক্ষতি হয়েছে।

তাই সোলেমানির মৃত্যু নিয়ে ইরান-যুক্তরাষেট্রর মধ্যে সম্পর্কও উত্তেজনাপূর্ণ হয়েছে। ইরান এ হত্যাকাণ্ডের প্রতিশোধ নিতে মুখিয়ে আছে।

পোরসাফির বিরুদ্ধে আনা অভিযোগনামায় বলা হয়েছে, তিনি যুক্তরাষ্ট্রের একজন অধিবাসীকে ছদ্মবেশে বোল্টনের একটি ছবি নিতে বলেছিলেন। আসন্ন একটি বইয়ের জন্য দরকার এমন অজুহাত দেখিয়ে ছবিটি নিতে বলা হয়েছিল।

মার্কিন ওই অধিবাসীর পরিচয় দেওয়া হয়েছে কেবল ‘ব্যক্তি এ’ হিসাবে। সেই ব্যক্তি তখন পোরসাফিকে গোপন এক সরকারি তথ্যদাতার সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দেন, যিনি অর্থের বিনিময়ে ছবিটি নিয়ে দিতে পারবেন।

তদন্তকারীরা বলছেন, এরপর পোরসাফি এনক্রিপটেড মেসেজিং অ্যাপের মাধ্যমে ওই গোপন তথ্যদাতার সঙ্গে যোগাযোগ করেন এবং বোল্টনকে খুন করতে কাউকে ভাড়া করার জন্য তাকে ২৫ লাখ মার্কিন ডলার দেওয়ার প্রস্তাব দেন।

পরে দরকষাকষি করে সেই মূল্য ৩০ লাখ ডলারে নির্ধারিত হয়। ওয়াশিংটন ডিসি কিংবা মেরিল্যান্ডে বোল্টনকে খুন করার পরিকল্পনা ছিল এবং বোল্টনকে মারার প্রমাণ হিসাবে একটি ভিডিও ফুটজও চেয়েছিলেন পোরসাফি।

এই ষড়যন্ত্রের অভিযোগে দোষী সাব্যস্ত হলে পোরসাফির জেল এবং জরিমানা দুইই হতে পারে। তবে পোরসাফি বিদেশে ধরা ছোঁয়ার বাইরে আছেন। যুক্তরাষ্ট্রের গোয়েন্দা সংস্থা এফবিআই বুধবার তাকে ধরতে মোস্ট-ওয়ান্টেড পোস্টার প্রকাশ করেছে।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক