সেনেটে ইউক্রেইন-ইসরায়েল সহায়তা বিল আটকে দিয়েছে রিপাবলিকানরা

১১০ বিলিয়ন মার্কিন ডলারের ওই প্যাকেজে ইউক্রেইনের জন্য ৬১ বিলিয়ন মার্কিন ডলার বরাদ্দের কথা বলা আছে।

নিউজ ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 7 Dec 2023, 11:23 AM
Updated : 7 Dec 2023, 11:23 AM

ইউক্রেইনকে নতুন করে সামরিক সহায়তা দেওয়া সংক্রান্ত একটি বিল যুক্তরাষ্ট্রের সেনেটে আটকে দিয়েছেন রিপাবলিকান সেনেটররা।

যে বিল পাসের বিনিময়ে রিপাবলিকানরা মেক্সিকোর সাথে যুক্তরাষ্ট্রের সীমান্তে অভিবাসী প্রবেশ নিয়ন্ত্রণে কঠোর পদক্ষেপ গ্রহণের দাবি জানিয়েছে।

বিবিসি জানায়, ১১০ বিলিয়ন মার্কিন ডলারের ওই প্যাকেজে ইউক্রেইনের জন্য ৬১ বিলিয়ন মার্কিন ডলার বরাদ্দের কথা বলা আছে। সেই সঙ্গে হামাসের বিরুদ্ধে যুদ্ধে ইসরায়েলকে সামরিক সহায়তা এবং গাজায় ত্রাণ সহায়তার জন্যও বরাদ্দ আছে।

ইউক্রেইনের জন্য যুক্তরাষ্ট্রের সহায়তা দ্রুত ফুরিয়ে আসছে বলে আগেই হোয়াইট হাউজ থেকে সতর্ক করা হয়েছে।

ইউক্রেইন থেকেও এ বিষয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করা হয়েছে। দেশটির একজন কর্মকর্তা বলেছেন, যদি যুক্তরাষ্ট্র থেকে আরো সহায়তা পাওয়া নিশ্চিত না হয় তবে রাশিয়ার কাছে এই যুদ্ধে হেরে যাওয়ার ‘সম্ভাবনা খুব বেশি’।

যদিও রিপাবলিকান সদস্যরা সাধারণভাবে ইউক্রেইনকে সহায়তা করার পক্ষে। কিন্তু বুধবার সেনেটে প্রত্যেক রিপাবলিকান সদস্য বিলের বিপক্ষে ভোট দিয়েছেন বলে জানায় বার্তা সংস্থা রয়টার্স। বিলটির পক্ষে ৪৯ এবং বিপক্ষে ৫১ ভোট পড়েছে। বিল পাসের জন্য ১০০ সদস্যের সেনেটে সেটির পক্ষে ৬০ ভোট প্রয়োজন ছিল।

সেনেটে বিলটি পাস হতে ব্যর্থ হওয়ায় ইউক্রেইনে যুক্তরাষ্ট্রের ভবিষ্যৎ সামরিক সহায়তা অনিশ্চয়তার মুখে পড়ে গেছে এবং বিলটি নিয়ে পুনরায় বিতর্কের জন্য সেটি আলোচনার টেবিলে পাঠানো হবে। এজন্য খুব বেশি সময় হাতে নেই। কারণ, কয়েক দিনের মধ্যেই যুক্তরাষ্ট্রের কংগ্রেসে শীতকালীন ছুটি শুরু হবে।

এদিকে, সেনেটে ভোটের আগে বুধবার সকালে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন বলেছিলেন, বিলটি পাস করাতে তিনি ‘সীমান্ত বিষয়ক আলোচনায় উল্লেখ করা মতো আপস করতে ইচ্ছুক’।

বলেছেন, “এ বিষয়ে অপেক্ষা করা যাবে না।

“পুতিন যে বড় উপহারটির আশায় বসে আছেন কংগ্রেসের রিপাবলিকানরা স্বেচ্ছায় তাকে সেটি দিতে চলেছেন।”

আর ভোট শুরুর আগে সেনেটে রিপাবলিকান নেতা মিচ ম্যাককনেল বলেছিলেন, “আজকের ভোট ডেমোক্র্যাটিক নেতার জন্য এটা স্বীকার করে নেওয়া হবে যে, সেনেটে রিপাবলিকান বলতে তারা যেটা বলে সেটাই বোঝায়।

“তাহলে আসুন ভোট দেই..এবং আসুন শেষ পর্যন্ত আমেরিকার জাতীয় নিরাপত্তার বিষয়গুলোকে অগ্রাধিকার দিয়ে সেগুলো সমাধানের পথ খোঁজা শুরু করি, যার মধ্যে এখানে আমাদের ঘরের নিরাপত্তার বিষয়টিও অন্তর্ভুক্ত।”