জাপানের কাছে পড়ল উত্তর কোরিয়ার আন্তঃমহাদেশীয় ক্ষেপণাস্ত্র

এটিই উত্তর কোরিয়ার দীর্ঘতম পাল্লার ক্ষেপণাস্ত্র; যা পারমাণবিক ওয়ারহেড নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের যে কোনো স্থানে আঘাত হানতে সক্ষম।

নিউজ ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 18 Nov 2022, 08:01 AM
Updated : 18 Nov 2022, 08:01 AM

উত্তর কোরিয়ার ছোড়া একটি সম্ভাব্য আন্তঃমহাদেশীয় ক্ষেপণাস্ত্র জাপানের উপকূল থেকে ২০০ কিলোমিটার দূরে পড়েছে বলে জানিয়েছে টোকিও।

শুক্রবার ছোড়া এই ক্ষেপণাস্ত্রটির পাল্লা যুক্তরাষ্ট্রের মূল ভূখণ্ডে আঘাত হানার মতো যথেষ্ট বলে সাংবাদিকদের জানিয়েছেন জাপানি কর্মকর্তারা।

কোরীয় উপদ্বীপ অঞ্চলে যুক্তরাষ্ট্রের সামরিক উপস্থিতি জোরদার করার প্রতিক্রিয়ায় বৃহস্পতিবার উত্তর কোরিয়া ‘কঠোর সামরিক জবাবের’ হুঁশিয়ারি জানানোর দুই ঘণ্টার মধ্যে একটি স্বল্পপাল্লার ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র ছুড়েছিল।

এর পরদিন তারা দূরপাল্লার ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা চালাল বলে দক্ষিণ কোরিয়া ও জাপানের কর্মকর্তাদের বরাত দিয়ে জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

পারমাণবিক শক্তিধর উত্তর কোরিয়া চলতি বছর রেকর্ড সংখ্যক ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা করেছে। ২০১৭ সালের পর এ বছর দেশটি প্রথমবার আন্তঃমহাদেশীয় ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা চালিয়েছে, নিরস্ত্রীকরণ নিয়ে আলোচনা থমকে থাকায় ভেঙেছে দূর পাল্লার ক্ষেপণাস্ত্র না ছোড়ার স্বেচ্ছা-নিষেধাজ্ঞাও।

জাপানের প্রতিরক্ষামন্ত্রী ইয়াসুকাজু হামাদা সাংবাদিকদের বলেছেন, শুক্রবার উত্তর কোরিয়ার ছোড়া সর্বশেষ ক্ষেপণাস্ত্রটির ১৫ হাজার কিলোমিটারের মতো পথ পাড়ি দেওয়ার সক্ষমতা ছিল।

জাপানি মুখ্য মন্ত্রিপরিষদ সচিব হিরোকাজু মাতসুনো বলেছেন, পিয়ংইয়ংয়ের ছোড়া এই ক্ষেপণাস্ত্রটি প্রায় ৬০০০ কিলেমিটার উঁচুতে উঠে হোক্কাইডোর ওশিমা-ওশিমা দ্বীপের প্রায় ২০০ কিলোমিটারের মতো পশ্চিমে পড়ার আগে ১০০০ কিলোমিটার দূরত্ব অতিক্রম করে।

দক্ষিণ কোরিয়ার সামরিক বাহিনী জানিয়েছে, ক্ষেপণাস্ত্রটি ৬১০০ কিলোমিটার উচ্চতায় উঠে ২২ মাখ গতিতে ১০০০ কিলোমিটার দূরে গিয়ে পড়েছে।

উত্তর কোরিয়া প্রায়ই তাদের ক্ষেপণাস্ত্রগুলোকে স্বাভাবিক কোণে না ছুড়ে কোণ ছোট করে এনে উপরের দিকে ছোড়ে, এতে ক্ষেপণাস্ত্রগুলো অনেক উপরে উঠে অল্প দূরত্ব অতিক্রম করে। স্বাভাবিক কোণে ছুড়লে এগুলো অনেক দূর পথ পাড়ি দিতো। 

পরে জাপানের প্রধানমন্ত্রী ফুমিও কিশিদা বলেছেন, উত্তরের সর্বশেষ ক্ষেপণাস্ত্রে ক্ষয়ক্ষতির খবর পাননি তিনি; তবে এভাবে একের পর এক ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ কোনোমতেই বরদাশত করা যায় না। 

শুক্রবার উত্তর কোরিয়া ক্ষেপণাস্ত্র ছোড়ার পরপরই জাপানের মিসাওয়া বিমানঘাঁটি সেখানে থাকা জাপানি ও মার্কিন সেনাদের নিরাপদ আশ্রয়ে অবস্থান নিতে নির্দেশনা জারি করে বলে ঘাঁটিটির ফেইসবুক পেইজে জানানো হয়েছে। এই ঘাঁটিটি জাপানের হোনশু দ্বীপের উত্তরাংশে অবস্থিত।

উত্তর কোরিয়া সর্বশেষ ৩ নভেম্বর একটি আন্তঃমহাদেশীয় ক্ষেপণাস্ত্র উৎক্ষেপণ করেছিল বলে সন্দেহ করা হয়; দক্ষিণ কোরিয়া ও যুক্তরাষ্ট্রের যৌথ সামরিক মহড়ার প্রতিবাদে সেদিন পিয়ংইয়ং সাগরে একাধিক ক্ষেপণাস্ত্র ছুড়েছিল।  

শুক্রবারেরটাও আন্তঃমহাদেশীয় ক্ষেপণাস্ত্র ছিল, এটি নিশ্চিত হওয়া গেলে চলতি বছর উত্তর কোরিয়ার ছোড়া আন্তঃমহাদেশীয় ক্ষেপণাস্ত্রের সংখ্যা ৮-এ দাঁড়াবে বলে মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের টালি বলছে।

আন্তঃমহাদেশীয় ক্ষেপণাস্ত্রই উত্তর কোরিয়ার দীর্ঘতম পাল্লার ক্ষেপণাস্ত্র; যা পারমাণবিক ওয়ারহেড নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের যে কোনো স্থানে আঘাত হানতে সক্ষম।

আরও পড়ুন:

Also Read: ফের হুঁশিয়ারি দিয়ে ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র ছুড়ল উত্তর কোরিয়া

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক