পোল্যান্ডে বিস্ফোরণ: জরুরি বৈঠক ডেকেছে নেটো

বৈঠকে পোল্যান্ড-ইউক্রেইন সীমান্তে আকাশ প্রতিরক্ষা ব্যবস্থাপনা মোতায়েন নিয়ে আলোচনা হতে পারে।

নিউজ ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 16 Nov 2022, 12:00 PM
Updated : 16 Nov 2022, 12:00 PM

ইউক্রেইন সীমান্তের কাছে পোল্যান্ডে ক্ষেপণাস্ত্র আঘাত হানার পর জরুরি বৈঠকে বসেছে নেটোর রাষ্ট্রদূতরা।

বুধবার এই বৈঠকে পোল্যান্ড-ইউক্রেইন সীমান্তে আকাশ প্রতিরক্ষা ব্যবস্থাপনা মোতায়েন নিয়ে আলোচনা হতে পারে বলে ধারণা দিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

নেটোর দুই সদস্য দেশও বুধবার সামরিক জোটের পূর্ব প্রান্তে আকাশ প্রতিরক্ষা জোরদারে ব্যবস্থা নিতে তাগাদা দিয়েছে।

মঙ্গলবার পোল্যান্ডের একটি শস্য স্থাপনায় ক্ষেপণাস্ত্রটি পড়ার পর ইউক্রেইন যুদ্ধ প্রতিবেশী দেশগুলোতেও বিস্তৃত হচ্ছে কিনা তা নিয়ে বিশ্বজুড়ে শঙ্কা সৃষ্টি হয়।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন পরে জানান, ক্ষেপণাস্ত্রটি সম্ভবত রাশিয়া থেকে ছোড়া হয়নি।

অনেক বিশ্লেষকই বলছেন, রাশিয়ার ছোড়া ক্ষেপণাস্ত্র ভূপাতিত করতে ইউক্রেইনের ছোড়া ক্ষেপণাস্ত্রের একটিই সম্ভবত পোল্যান্ডে পড়েছে।

ক্ষেপণাস্ত্রটি পড়ার কয়েক ঘণ্টা পরেই পোল্যান্ড জানায়, তারা নেটো জোটের অনুচ্ছেদ ৪ কার্যকর করতে যাচ্ছে। এই অনুচ্ছেদে নিরাপত্তা হুমকির মুখে আলোচনার জন্য জোটের মিত্রদের আনুষ্ঠানিকভাবে ডাকা হয়।

তবে বাইডেন জি২০ ও নেটো মিত্রদেরকে পোল্যান্ডে পড়া ক্ষেপণাস্ত্রটি ইউক্রেইনের দিক থেকে এসেছে জানানোর পর অনুচ্ছেদ ৪ কার্যকর হবে কিনা, তা নিয়ে ধোঁয়াশা সৃষ্টি হয়েছে, বলেছে একটি সূত্র।

তবে নেটো রাষ্ট্রদূতদের বৈঠকে সম্ভবত আকাশ প্রতিরক্ষা ব্যবস্থাপনা নিয়েই আলোচনা হবে, বলেছেন স্লোভাকিয়ার প্রধানমন্ত্রী এডুয়ার্ড হ্যাগার। 

লিথুনিয়ার প্রেসিডেন্ট গিতানাস নসেদা বলেন, নেটোর উচিত দ্রুত পোল্যান্ড-ইউক্রেইন সীমান্ত ও জোটের পূর্বপ্রান্তের বাকি দেশগুলোতে আরও বেশি আকাশ প্রতিরক্ষা ব্যবস্থাপনা মোতায়েন করা। 

“ভিলনসে আগামী বছরের নেটো সম্মেলনের আগেই এ বিষয়ে অগ্রগতি হবে বলে আমি আশাবাদী। পরিস্থিতি অনুযায়ী এটিই সঠিক সিদ্ধান্ত, এবং দ্রুতই এটি কার্যকর করা দরকার,” বলেছেন তিনি।

রয়টার্স লিখেছে, স্নায়ু যুদ্ধের পর সামরিক খাতে বেশি ব্যয়ে অনাগ্রহের কারণে পশ্চিম ইউরোপের অনেক দেশেও রেথনের প্যাট্রিয়টের মতো ভূমিতে থাকা আকাশ প্রতিরক্ষা ব্যবস্থাপনা ইউনিটের মজুদ কম। 

ব্রাসেলসে নেটোর রাষ্ট্রদূতদের বৈঠকে জোটটির মহাসচিব ইয়েন্স স্টল্টেনবার্গ সভাপতিত্ব করবেন বলে জানা গেছে। বৈঠক শেষে সংবাদ সম্মেলনও করার কথা রয়েছে তার।

রাশিয়া জানিয়েছে, পোল্যান্ডে বিস্ফোরণ নিয়ে তার কিছুই করার নেই।

তবে যদি শেষ পর্যন্ত বিস্ফোরণের দায় মস্কোর ঘাড়েই বর্তায়, তাহলে পোল্যান্ড নেটো সংবিধানের অনুচ্ছেদ ৫ কার্যকর করতে পারবে। যেখানে যে কোনো সদস্য দেশের ওপর হামলাকে পুরো নেটোর ওপর হামলা হিসেবে গণ্য করা হবে এবং সব সদস্যকেই ওই হামলার জবাব সামরিকভাবে দিতে হবে।

মঙ্গলবার রাশিয়া ইউক্রেইনের জ্বালানি অবকাঠামো লক্ষ্য করে অসংখ্য ক্ষেপণাস্ত্র ছুড়েছে, তার মধ্যেই পোল্যান্ডে ওই বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটল।

ফেব্রুয়ারিতে সেনা পাঠানোর পর রাশিয়া একদিনে এত ক্ষেপণাস্ত্র আর কখনোই ছোডেনি, বলছে ইউক্রেইন।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক