ইউক্রেইনের গোয়েন্দা সংস্থার বিরুদ্ধে গুপ্তচরবৃত্তির অভিযোগ দেশটির সাংবাদিকদের

সাংবাদিকদের উপর নজরদারির অভিযোগ ওঠার পর এসবিইউ-র একটি বিভাগের প্রধানকে বরখাস্ত করা হয়েছে বলে জানা গেছে।

রয়টার্স
Published : 6 Feb 2024, 11:56 AM
Updated : 6 Feb 2024, 11:56 AM

ইউক্রেইনের গোয়েন্দারা তাদের সাংবাদিকদের উপর অবৈধ নজরদারি করছে বলে অভিযোগ করেছে দেশটির সংবাদ সংস্থা বিহুস ডট ইনফো।

সংস্থাটি মূলত সরকারি কর্মকর্তা এবং ধনী ব্যক্তিদের নিয়ে অনুসন্ধানী প্রতিবেদন প্রকাশ করে থাকে।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম টেলিগ্রামে এক পোস্টে বিহুস ডটক ইনফো জানায়, ইউক্রেইনের গোয়েন্দা সংস্থার (এসবিইউ) ৩০ সদস্যের একটি ইউনিট গত বছর ডিসেম্বরে একটি হোটেলে একটি কর্পোরেট ইভেন্ট চলার সময় তাদের সাংবাদিকদের উপর গোয়েন্দাগিরি করেছে।

টেলিগ্রাম পোস্টে তারা আরো লেখেন, “যুদ্ধের সময় কারা জাতীয় নিরাপত্তার জন্য সবচেয়ে বড় হুমকি হয়ে উঠছে? এসবিইউর মতে, স্পষ্টতই সাংবাদিকরা।”

একটি বিবৃতির মাধ্যমে এর জবাব দিয়েছে এসবিইউ। বলেছে, তারা জাতীয় স্বার্থ রক্ষার লক্ষ্যে সংবাদমাধ্যমের স্বাধীনতার নীতিতে সমর্থন করে এবং গুপ্তচর প্রযুক্তির ব্যবহারের ওই অভিযোগের বিরুদ্ধে একটি ফৌজদারি তদন্ত শুরু করেছে।”

গত মাসে সাংবাদিকদের উপর গুপ্তরবৃত্তির অভিযোগ প্রথমে সামনে আসে। এই অভিযোগ ওঠার পর এসবিইউ-র ডিপার্টমেন্ট অব দ্য ডিফেন্স অব ন্যাশনাল স্টেটহুড এর প্রধানকে বরখাস্ত করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক কর্মকর্তা।

এদিকে, টেলিগ্রামে দেওয়া বিবৃততে এসবিইউ আরো বলেছে, বিহুস ডট ইনফোর কয়েকজন সদস্যকে তারা সনাক্ত করেছেন। যারা মাদক কারবারিদের কাছ থেকে মাদক কিনেছেন।

গত মাসে অনলাইনে একটি ভিডিও প্রকাশ পায়। যেখানে দেখা যায়, গত ডিসেম্বরের ওই ইভেন্টে বিহুস ডট ইনফোর সদস্যরা মাদক গ্রহণ করছেন এবং গাঁজা ও এমডিএমএ সংগ্রহ করার বিষয়ে আলাপ করছে। উভয় মাদকই ইউক্রেইনে নিষিদ্ধ।

বিহুস ডট ইনফো কর্তৃপক্ষ ওই ভিডিওর সত্যতা স্বীকার করে বলেছে, তারা ওই দুই ধরণের মাদক ব্যবহারের নিন্দা করছে এবং সদস্যদের উপর নজর রাখার ব্যবস্থা করেছে।

ইউক্রেইনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি গুপ্তচরবৃত্তির এই অভিযোগ নিয়ে তদন্তের ঘোষণা দিয়েছেন এবং সাংবাদিকদের উপর চাপ প্রয়োগের চেষ্টার নিন্দা করেছেন।