স্পেনে 'হারিয়ে যাওয়ার' মুখে এক জাতের চাল, ক্ষুব্ধ কৃষকরা

স্পেনে পায়েয়া নামের একটি খাবার তৈরিতে ব্যবহৃত আরোস বোম বা বোম্বা জাতীয় চাল ছত্রাক আক্রমণে বিলুপ্ত হয়ে যাওয়ার ঝুঁকিতে পড়েছে।

নিউজ ডেস্ক
Published : 8 Feb 2024, 01:19 PM
Updated : 8 Feb 2024, 01:19 PM

স্পেনে ‘পায়েয়া’ নামের একটি খাবার তৈরিতে ব্যবহৃত এক জাতের চাল ফাঙ্গাস আক্রমণে বিলুপ্ত হয়ে যাওয়ার ঝুঁকিতে পড়েছে। ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ) কৃষকদের নির্ভরযোগ্য একটি কীটনাশক নিষিদ্ধ করার পর হারিয়ে যেতে বসেছে এ চাল। ক্ষুব্ধ কৃষকরা বলছে এমন কথাই।

স্পেনের বালেন্থিয়া অঞ্চলের তিন চাল চাষী বলেছেন, এক ধরনের ফাঙ্গাস বা ছত্রাকের আক্রমণে চালে মড়ক ধরে তাদের উৎপাদিত আরোস বোম বা বোম্বা চাল ২০২৩ সালে ১০ বছরের গড় উৎপাদনের অর্ধেকে নেমে গেছে।

বালেন্থিয়ার একটি এলাকার চাল চাষী মিগুয়েল বলেন, “বোম্বা চাল হারিয়ে যাওয়ার আশঙ্কা খুবই বেশি। তিনি বলেন, আইনের কারণে আমাদের শস্য হারাতে বসেছে।”

অন্যদিকে, চালটির প্রধান রপ্তানিকারক দেশ ব্রাজিল, ভারত, ক্যাম্বোডিয়া ব্যাপকমাত্রাতেই তাদের শস্য সুরক্ষায় কীটনাশক ব্যবহার করছে।

ইউরোপজুড়ে কৃষকরা ইউরোপীয় ইউনিয়নের কীটনাশকের ওপর ওই কড়াকড়ির বিরুদ্ধে ক্ষুব্ধ বিক্ষোভ করেছে। এ সপ্তাহেও দেশজুড়ে কৃষকরা প্রতিবাদ করছে।

সংঘাত ক্রমেই প্রকাশ্য হচ্ছে। ইইউও খাবার সরবরাহে বিঘ্নের মধ্যে খাদ্যে আরও স্বয়ংসম্পূর্ণ হওয়ার জন্য সংগ্রাম করছে। ইইউ কমিশন উরসুলা ফন ডার লিয়েন এখন কীটনাশকের ব্যবহার অর্ধেকে নামিয়ে আনার পরিকল্পনা থেকে পিছু হটতে বাধ্য হচ্ছেন।

ইইউ ২০১৮ সালে ট্রাইসাইক্লাজোল ছত্রাকনাশক নিষিদ্ধ করে। কারণ, এটি মানুষের স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকারক হতে পারে বলে তারা তখন ঘোষণা করেছিল। অথচ কৃষকরা ফাঙ্গাস থেকে বোম্বা চালের ‍সুরক্ষায় এই ছত্রাকনাশকের ওপরই ৪০ বছর ধরে নির্ভর করে এসেছে।

বোম্বা চালের উৎপাদন কমে যাওয়ায় তিনবছরে এর দাম দ্বিগুণ হয়ে গেছে। স্পেনের সবচেয়ে বড় সুপারমার্কেটও সম্প্রতি কয়েকমাসে চালটির ঘাটতি দেখা দেওয়ার কথা নিশ্চিত করে জানিয়েছে।