স্টুডেন্ট ভিসার নিয়ম কঠোর করছে অস্ট্রেলিয়া

শনিবার থেকে স্টুডেন্ট ভিসায় কড়াকড়ি শুরু হবে। স্টুডেন্ট ও গ্র্যাজুয়েট ভিসার জন্য ইংরেজি ভাষায় আরও বেশি দক্ষতার প্রয়োজন পড়বে।

রয়টার্স
Published : 21 March 2024, 12:08 PM
Updated : 21 March 2024, 12:08 PM

বিদেশি শিক্ষার্থীদের জন্য ভিসায় আরও কঠোর নিয়ম এ সপ্তাহ থেকেই চালু করতে চলেছে অস্ট্রেলিয়া। অভিবাসীর সংখ্যা নতুন করে রেকর্ড পরিমাণ বেড়ে যাওয়ায় এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার।

আগামী শনিবার থেকে স্টুডেন্ট ভিসায় কড়াকড়ি শুরু হবে। স্টুডেন্ট ও গ্র্যাজুয়েট ভিসার জন্য ইংরেজি ভাষায় আরও বেশি দক্ষতার প্রয়োজন পড়বে। তাছাড়া, বারবার নিয়ম ভাঙলে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোতে আন্তর্জাতিক শিক্ষার্থী ভর্তি স্থগিত করারও ক্ষমতা পাবে অস্ট্রেলীয় সরকার।

অস্ট্রেলিয়ার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ক্লেয়ার ও’নিল এক বিবৃতিতে বলেছেন, “এ সপ্তাহান্তে আমাদের এ পদক্ষেপ অভিবাসনের মাত্রা কমিয়ে আনবে। সেইসঙ্গে অভিবাসন কৌশলে ভেঙে পড়া ব্যবস্থা ঠিক করার ক্ষেত্রে আমাদের প্রতিশ্রুতিও পূরণ হবে।”

প্রাথমিকভাবে যারা অস্ট্রেলিয়ায় কাজ করার জন্য যেতে চায়, তেমন আন্তর্জাতিক শিক্ষার্থীদের বিরুদ্ধে আরও কঠোর ব্যবস্থা নিতে একটি নতুন ‘প্রকৃত শিক্ষার্থী যাচাই’ ব্যবস্থা চালু করা হবে।

তাছাড়া, ভিজিট ভিসায় অস্ট্রেলিয়ায় প্রবেশকারীদের জন্য আরও বেশি সংখ্যায় ‘আর থাকা যাবে না’ (নো ফারদার স্টে) শর্ত আরোপ করা হবে।

অস্ট্রেলিয়ায় কোভিড মহামারীর সময়ে দেওয়া সুযোগ-সুবিধাগুলো বন্ধ করতে গত বছর বেশ কিছু ব্যবস্থা গ্রহণের পর নতুন এই পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে। কোভিডের সময় আন্তর্জাতিক শিক্ষার্থীদের কর্মঘণ্টার ওপর থেকে বিধিনিষেধও তুলে নেওয়া হয়।

কোভিডের সময় কঠোর সীমান্ত নিয়ন্ত্রণ আরোপের কারণে প্রায় দুই বছর ধরে বিদেশি শিক্ষার্থী ও শ্রমিক নেওয়া বন্ধ ছিল অস্ট্রেলিয়ায়। এতে দেশটিতে দক্ষ কর্মীর অভাব দেখা দেয়। সেই ক্ষতি পুষিয়ে নিতে ২০২২ সাল থেকে বার্ষিক বিদেশি শিক্ষার্থী ও কর্মী নেওয়া বাড়িয়ে দিয়েছিল অস্ট্রেলিয়া।

কিন্তু বিদেশি কর্মী ও শিক্ষার্থীর সংখ্যা আকস্মিক বেড়ে যাওয়ায় অস্ট্রেলিয়ায় এরই মধ্যে সংকুচিত হয়ে আসা আবাসন খাতে চাপ বেড়ে যায়।

বৃহম্পতিবার অস্ট্রেলিয়ান ব্যুরো অব স্ট্যাটিস্টিকস এর প্রকাশিত তথ্যে দেখা গেছে, ২০২৩ সালের ৩০ সেপ্টেম্বরে পর্যন্ত দেশটিতে মোট অভিবাসন ৬০ শতাংশ বেড়ে রেকর্ড ৫ লাখ ৪৮ হাজার ৮০০-তে দাঁড়িয়েছে। এ সংখ্যা ২০২৩ সালের জুনের তুলনায় ৫ লাখ ১৮ হাজার জন বেশি।

সামগ্রিকভাবে, অস্ট্রেলিয়ার জনসংখ্যা রেকর্ড দ্রুততম গতিতে ২ দশমিক ৫ শতাংশ হারে বেড়ে গতবছর সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ২ কোটি ৬৮ লাখে দাঁড়িয়েছে। মূলত ভারত, চীন ও ফিলিপিন্স থেকে রেকর্ডসংখ্যক অভিবাসী অস্ট্রেলিয়ায় যায়।

অস্ট্রেলীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ক্লেয়ার ও’নিল বলেছেন, গতবছর সেপ্টেম্বর থেকে অস্ট্রেলীয় সরকারের পদক্ষেপের কারণে অভিবাসনের মাত্রা কমেছে এবং সাম্প্রতিক স্টুডেন্ট ভিসা অনুমোদন আগের বছরের তুলনায় ৩৫ শতাংশ কমে গেছে।