বিশ্বের সবচেয়ে বয়স্ক মানুষ লুসিল হান্দোঁর মৃত্যু

হান্দোঁর ২০২১ সালে কোভিড-১৯ এ আক্রান্ত হয়েছিলেন এবং সুস্থ হয়ে বিশ্বের সবচেয়ে বয়স্কো মানুষ হিসেবে এ মহামারীকে পরাজিত করার রেকর্ড গড়েন।

নিউজ ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 18 Jan 2023, 03:17 PM
Updated : 18 Jan 2023, 03:17 PM

বিশ্বের সবচেয়ে বয়স্ক মানুষ ফ্রান্সের লুসিল হান্দোঁর মারা গেছেন। তার বয়স হয়েছিল ১১৮ বছর। তিনি সিস্টার আন্দহে নামে পরিচিত ছিলেন।

বিবিসি জানায়, ১৯৪৪ সালে নান হওয়ার পর তিনি সিস্টার আন্দহে নাম গ্রহণ করেন।

ফ্রান্সের তুলুন শহরে নিজের নার্সিং হোমে সোমবার রাতে ঘুমের মধ্যে কোনও এক সময় তিনি মারা যান।

তার নাসিং হোমের মুখপাত্র ডেভিড তাভেল্লা মঙ্গলবার সাংবাদিকদের তার মৃত্যুর খবর জানান।

তিনি বলেন, ‘‘এটি ‍অত্যন্ত দুঃখের...কিন্তু তার ইচ্ছা ছিল তার প্রিয় ভাইয়ের সঙ্গে যোগ দেওয়া। তার জন্য এটা মুক্তি।”

দক্ষিণ ফ্রান্সে ১৯০৪ ‍সালে জন্ম হয়েছিল হান্দোঁর। দুইটি বিশ্ব যুদ্ধের মধ্যে পড়েও প্রাণে বেঁচে যাওয়ায় তিনি ঈশ্বরের সেবায় নিজের জীবন সমর্পণ করার সিদ্ধান্ত নেন।

তার দীর্ঘায়ুর গোপন রহস্য কী জানতে চাইলে তিনি সংবাদিকদের বলেছিলেন, ‘‘শুধুমাত্র মহান ঈশ্বর এটা জানেন।”

ভাইদের সঙ্গে খুব মধুর সম্পর্ক ছিল সিস্টার অন্দহের। তিনি ভাইদের ঘনিষ্ঠ ছিলেন। তার সবচেয়ে মধুর স্মৃতিগুলোর একটির কথা বলতে গিয়ে তিনি সাংবাদিকদেরকে তার ভাইদের প্রথম বিশ্বযুদ্ধের পর নিরাপদে বাড়ি ফেরার কথা বলেছিলেন।

তিনি বলেছিলেন, ‘‘এটা তখন বিরল ছিল। বেশিরভাগ পরিবারেই দুইজন বেঁচে যাওয়ার চেয়ে বরং দুইজন মারা গেছে এমনটাই বেশি দেখা যেত।”

শেষ দিকে সিস্টার অন্দেহ অন্ধ হয়ে গিয়েছিলেন এবং হুইল চেয়ারে চলাফেরা করতেন। তারপরই তিনি তার নার্সিং হোমে অন্যদের দেখভাল করতেন। তাদের অনেকে তার থেকে বয়সে ছোট ছিল।

একবার এক সাক্ষাৎকারে তিনি বলেছিলেন, ‘‘অনেকে বলে তারা কাজের চাপে মারা যাচ্ছেন। কিন্তু আমার বেলায় কাজ আমাকে বাঁচিয়ে রাখে। আমি আমার ১০৮ বছর বয়স পর্যন্ত কাজ করে গেছি।”

তিনি আরো বলেছিলেন, তিনি এখন বরং স্বর্গে যেতেই বেশি ইচ্ছুক। কিন্তু এখনো পৃথিবীতে তিনি চকলেট খাওয়া বা প্রতিদিন একগ্লাস ওয়াইন পান করার মত অনেক কাজেই আনন্দ খুঁজে পান।

হান্দোঁর অনেক দিন ইউরোপের সবচেয়ে বয়স্ক ব্যক্তি ছিলেন। কিন্তু গত বছর এপ্রিলে জাপানের কানে তানাকা ১১৯ বছর বয়সে মারা গেলে তিনি গিনেস বুকের রেকর্ডে বিশ্বের সবচেয়ে বয়স্ক মানুষ হন।

২০২১ সালে হান্দোঁর কোভিড-১৯ এ আক্রান্ত হয়েছিলেন এবং সুস্থ হয়ে বিশ্বের সবচেয়ে বয়স্কো মানুষ হিসেবে এ মহামারীকে পরাজিত করার রেকর্ড গড়েন।

প্রোটেস্টেন্ট খ্রিস্টান পরিবারে জন্ম নিলেও পরে তিনি ক্যাথেলিক খ্রিস্টান ধর্ম গ্রহণ করেন।

জীবনের শেষ দিকে এক সাক্ষাৎকারে তিনি বলেছিলেন, ‘‘ঘৃণা করার পরিবর্তে মানুষের উচিত একজন অপরজনকে সাহায্য করা এবং ভালোবাসা। যদি আমরা সাহায্য ও ভালোবাসা বিনিময় করতে পারি তবে সব কিছু আরও ‍অনেক সুন্দর হয়ে উঠবে।”

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক