ইউক্রেইনে দুর্নীতি দমন অভিযানে শীর্ষ কর্মকর্তাদের পদত্যাগ

যুদ্ধ চলার মধ্যেও দুর্নীতি থেকে বের হতে পারছে না দেশটি। প্রেসিডেন্টের এক গুরুত্বপূর্ণ উপদেষ্টা, উপ-প্রতিরক্ষামন্ত্রী এবং উপ-প্রসিকিউটর জেনারেল মঙ্গলবার পদত্যাগ করেছেন।

নিউজ ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 24 Jan 2023, 01:39 PM
Updated : 24 Jan 2023, 01:39 PM

ইউক্রেইনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কির সরকার দুর্নীতির অভিযোগের মুখে কর্মকর্তাদের রদবদল শুরু করার পর কয়েকজন উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা পদত্যাগ করেছেন। 

যুদ্ধ চলার মধ্যেও দেশটি দুর্নীতি থেকে বের হতে পারছে না। মঙ্গলবার প্রেসিডেন্টের এক গুরুত্বপূর্ণ উপদেষ্টা, উপ-প্রতিরক্ষামন্ত্রী এবং উপ-প্রসিকিউটর জেনারেল পদত্যাগ করেছেন। 

জেলেনস্কি দুর্নীতি দমনের প্রতিশ্রুতি দেওয়ায় উচ্চপদস্থ আরও কর্মকর্তা পদত্যাগ করার পথে যেতে পারেন বলে তিনি ইঙ্গিত দিয়েছেন। 

কর্মকর্তাদের একজন- কিরিলো টিমোশেঙ্কো- ব্যয়বহুল গাড়ি ব্যবহার নিয়ে কেলেঙ্কারিতে জড়িয়েছেন। 

ওদিকে, প্রেসিডেন্ট জেলেনস্কি প্রত্যেকের ক্ষেত্রেই ন্যায়বিচার করার জনগুরুত্বপূর্ণ দাবির প্রতি সাড়া দিয়েছেন বলে জানিয়েছেন তার উপদেষ্টা মিখাইলো পোদোলিয়াক। 

বিবিসি জানায়, ইউক্রেইনের গণমাধ্যমে দেশটির এক মন্ত্রীর বিরুদ্ধে খাদ্যদ্রব্য মজুত করে রেখে উচ্চমূল্যে বিক্রির জন্য চুক্তির অভিযোগ নিয়ে প্রতিবেদন আসার পর দুর্নীতি দমনাভিযান শুরু হয়। অভিযোগ ওঠা ওই মন্ত্রীকে বরখাস্ত করেছেন জেলেনস্কি।

এরই মধ্যে সোমবার আরেক মন্ত্রী ঘুষের অভিযোগে গ্রেপ্তার হন। প্রেসিডেন্ট জেলেনস্কি এরই মধ্যে শীর্ষ সরকারি কর্মকর্তাদেরকে সরকারি কোনও কার্যক্রম ছাড়া দেশ ত্যাগে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছেন। 

মঙ্গলবার প্রথমেই পদত্যাগ করেছেন জেলেনস্কির কার্যালয়ের উপপ্রধান উপদেষ্টা টিমোশেঙ্কো। তিনি আঞ্চলিক নীতি দেখাশোনা করতেন এবং এর আগে জেলেনস্কির নির্বাচনী প্রচারে কাজ করেছেন। 

রাশিয়া গতবছর ফেব্রুয়ারিতে আগ্রাসন শুরুর পর টিমোশেঙ্কো সরকারের মুখপাত্র হয়ে উঠেছিলেন। টেলিগ্রাম পোস্টে তিনি প্রতিদিন, প্রতিমুহূর্তে ভাল কাজ করার সুযোগের জন্য ধন্যবাদ দিয়েছিলেন।

মঙ্গলবার টিমোশেঙ্কোর পাশাপাশি পদত্যাগ করেন উপ-প্রতিরক্ষামন্ত্রী ভায়াচেস্লাভ শোপালভ। তিনি সামরিক বাহিনীর খাবার সরবরাহের বিতর্কিত চুক্তি তদারকিতে ছিলেন বলে খবর বের হয়। একই কারণে প্রতিরক্ষামন্ত্রীর ওলেক্সি রেজনিকোভের বিরুদ্ধেও তদন্ত চলছে। 

ওদিকে, উপ-প্রসিকিউটর জেনারেল ওলেক্সি সায়মোনেঙ্কোকে তার নিজের ইচ্ছাতেই পদ থেকে সরানো হয়েছে বলে জানিয়েছে তার কার্যালয়। 

ইউক্রেইনে দুর্নীতির দীর্ঘ ইতিহাস রয়েছে। ২০২১ সালে ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল দুর্নীতিগ্রস্ত ১৮০ টি দেশের তালিকায় ইউক্রেইনকে রেখেছিল ১২২ নম্বরে। 

ইউক্রেইন ইউরোপীয় ইউনিয়নের সদস্য হওয়ার পথে এগুতে চাইলে দেশটির দুর্নীতিমুক্ত হওয়া ইইউ এর একটি মূল দাবি।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক