গত হলেন ব্রিটিশ রানি, এখন কী হবে

রানির কফিন স্কটল্যান্ড থেকে লন্ডনে নিয়ে আসার পর ওয়েস্টমিনস্টার হলে চারদিন ধরে শ্রদ্ধা জানাবে লাখ লাখ মানুষ।

নিউজ ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 9 Sept 2022, 09:14 AM
Updated : 9 Sept 2022, 09:14 AM

ব্রিটেনের রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের মৃত্যুর সঙ্গে সঙ্গে পরবর্তী এক পক্ষের রাজকীয় আনুষ্ঠানিকতার পরিকল্পনা সুচারুভাবে বাস্তবায়নের কাজ শুরু হয়ে গেছে, জীবদ্দশায় রানি নিজেই সেসব আনুষ্ঠানিকতার পরিকল্পনা সেরে গেছেন।

কয়েক দশক ধরে ব্রিটেনের কেন্দ্রীয় ও স্থানীয় সরকার বিভাগ থেকে শুরু করে সামরিক ও ধর্মীয় কর্তৃপক্ষ ও ১৪টি দেশের প্রতিনিধিদের মধ্যে নিয়মিত বৈঠক হয়েছে। ব্রিটেনের রানি সেসব দেশের রাষ্ট্রপ্রধান ছিলেন।

রানির মৃত্যুতে যুক্তরাজ্যজুড়ে সরকারি ভবনগুলোতে পতাকা অর্ধনমিত রাখা হচ্ছে। তবে রাজকীয় রীতি অনুযায়ী রাজা বা রানির ব্যক্তিগত পতাকা কখনও নমিত করা হয় না, কারণ রাজার চেতনার ‘কখনও মৃত্যু হয় না’- এটাই বিশ্বাস।

দ্বিতীয় এলিজাবেথের মৃত্যুর পর তার আনুষ্ঠানিকতার অনেক বিষয় প্রকাশ না পেলেও যতটুকু জানা গেছে, সেই তথ্য তুলে ধরেছে বিবিসি ও সিএনএন।

নতুন রাজা

উত্তরাধিকার সূত্রেই মায়ের মৃত্যুর পর ব্রিটিশ ইউনিয়নের রাজা তার বড় ছেলে প্রিন্স চার্লস। তিনি রাজা তৃতীয় চার্লস হিসাবে সিংহাসনে বসবেন।

কেবল যুক্তরাজ্যই নয়, অস্ট্রেলিয়া ও কানাডাসহ আরও ১৪টি কমনওয়েলথভুক্ত রাষ্ট্রের প্রধান এবং ৫৬ সদস্যের কমনওয়েলথের প্রধান হবেন তিনি।

রাজা চার্লস ব্রিটিশ সশস্ত্র বাহিনী, বিচার বিভাগ এবং সিভিল সার্ভিসের প্রধান হবেন, চার্চ অব ইংল্যান্ডেরও সর্বোচ্চ গভর্নর হবে পদাধিকার বলে।

রাজা হলেন ‘ফাউন্ট অব অনার’ অর্থাৎ সকল সম্মানের অধিকারী। অর্থাৎ, নাইটহুডের মত রাজকীয় সকল সম্মাননা তার নামেই দেওয়া হবে।

গান স্যালুট ও নতুন রাজার ঘোষণা

সিএনএন লিখেছে, প্রথম আনুষ্ঠানিকতার মধ্যে লন্ডনের ৫০০ বছরের পুরনো সেন্ট জেমস প্রাসাদে রাজার সিংহাসন আরোহণ নিয়ে ‘অ্যাকসেশন কাউন্সিলের’ একটি সভা হবে। এই সভা দুই ভাগে হয়ে থাকে।

প্রথম অংশে রাজা বা রানির মৃত্যু আনুষ্ঠানিকভাবে ঘোষণা করা হয় এবং নতুন সার্বভৌম রাজার ঘোষণা দেওয়া হয়। এটি রাজপরিবারের অভ্যন্তরীণ একান্ত সভা হলেও শত শত বিশিষ্ট ব্যক্তি এবং রাজকীয় উপদেষ্টার প্যানেল প্রিভি কাউন্সিলের সদস্যরা উপস্থিত থাকেন।

‘গার্টার কিং অব আর্মস’ প্রাসাদের ব্যালকনি থেকে নতুন রাজার ঘোষণা পাঠ করবেন এবং রাজধানীজুড়ে শোনা যাবে তোপধ্বনি। এডিনবারা, কার্ডিফ এবং বেলফাস্টেও একই ভাবে নতুন রাজার ঘোষণা দেওয়া হবে, অর্ধনমিত পতাকা উড্ডীন হবে পুরো মাত্রায়।

অ্যাকসেসন কাউন্সিলের সভার দ্বিতীয় অংশে রাজা এবং রাজপরিবারের অন্য সদস্যরা অংশগ্রহণ করেন। এ অনুষ্ঠান সরাসরি সম্প্রচার করা হবে এবং ইতিহাসে প্রথমবারের মত শতাব্দী প্রাচীন এই অনুষ্ঠান বিশ্ব দেখতে পাবে। এরপর সেইন্ট জেমস প্রাসাদে এবং অন্যান্য স্থানে শোক বই খোলা হবে।

শেষকৃত্য

রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া সম্পন্ন হবে সরকারি অর্থায়নে। এ ব্যাপারে বিস্তারিত পরে জানানো হবে।

রানি স্কটল্যান্ডে তার বাসভবন বালমোরাল প্রাসাদ মারা গেছেন। তাই সেখান থেকে তার দেহ লন্ডনের বাকিংহাম প্রাসাদে নিয়ে যাওয়া হবে।

নিয়ম অনুযায়ী, এলিজাবেথ তার নিজের অন্ত্যেষ্টিক্রিয়ার পরিকল্পনা অনুমোদন করে যেতে পারেন, তবে তার পর ব্রিটিশ সিংহাসনে আসীন রাজাই কেবল তাতে সই করে এর অনুমোদন দেবেন।

আনুষ্ঠানিকতার দেখভালকারী আর্ল মার্শালের সঙ্গে বৈঠক করে রাজা তৃতীয় চার্লস এ দায়িত্ব পালন করবেন।

সিএনএন জানিয়েছে, বর্তমান রাজা সেই পরিকল্পনায় অনুমোদন দেবেন বলেই অনুমান করা যাচ্ছে; কারণ তিনি ইতোমধ্যে পরিকল্পনাগুলো দেখেছেন এবং সেগুলোর সমন্বয়ও করেছেন।

শুক্রবার সেইন্ট পলস ক্যাথেড্রালে রানির স্মরণে শ্রদ্ধা জানাবেন ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রী এবং অন্য মন্ত্রীরা। স্কটল্যান্ডে মারা যাওয়ায় তাকে এডিনবারার সেইন্ট জাইলস ক্যাথেড্রালে রাখা হবে।

সেখান থেকে তার কফিন লন্ডনে নিয়ে আসা হবে, ওয়েস্টমিনস্টার হলে চার দিন ধরে লাখ লাখ মানুষ তাকে শ্রদ্ধা জানাবে।

শুক্রবার ওয়েস্টমিনস্টার অ্যাবি, সেইন্ট পলস ক্যাথেড্রাল এবং উইন্ডসর ক্যাসেলে রানির প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে ঘণ্টা বাজানো হবে। তার জীবনের প্রতিটি বছরকে স্মরণ করতে হাইড পার্ক ও অন্যান্য জায়গায় ৯৬ রাউন্ড গুলি ছুড়ে শ্রদ্ধা জানানো হবে।

সরকারি ছুটি

বিবিসি লিখেছে, দশ-এগারো দিনের মধ্যে ওয়েস্টমিনস্টার অ্যাবিতে রানির শেষকৃত্য হবে। বাকিংহাম প্যালেস সেই তারিখ নির্ধারণ করবে। রাজপ্রাসাদ ও সরকারি সিদ্ধান্তে সরকারি ছুটি ঘোষণা করা হতে পারে।

সরকারি ছুটি ঘোষণা করা হলে স্কুল বন্ধ হবে। তবে তার আগেই স্কুল বন্ধ হবে কিনা শিক্ষা অধিদপ্তর এবং এর সঙ্গে যুক্ত প্রশাসন সে ব্যাপারে জানাবে।

রানির মৃত্যুর পর থেকেই রাজপরিবারে শোক পালন শুরু হয়েছে, অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া সম্পন্ন হওয়ার পরের সাত দিন পর্যন্ত তা চলবে।

অন্যান্য অনুষ্ঠান

ইংলিশ ফুটবল লিগ ও উত্তর আয়ারল্যান্ড ফুটবল লিগের ম্যাচসহ শুক্রবার নির্ধারিত খেলাগুলো বাতিল করা হয়েছে।

‘ব্রিটিশ হর্সরেসিং অথরিটি’ সমস্ত ঘোড়দৌড় প্রতিযোগিতান স্থগিত করেছে। শুক্রবার বিএমডব্লিউ পিজিএ চ্যাম্পিয়নশিপে কোনো গল্ফ খেলাও হবে না।

ষষ্ঠ পর্যায়ে ‘ট্যুর অব ব্রিটেন’ সাইকেল প্রতিযোগিতা শুক্রবার হওয়ার কথা থাকলেও তা আর হচ্ছে না। এদিন ইংল্যান্ড ও দক্ষিণ আফ্রিকার টেস্ট ম্যাচের দ্বিতীয় দিনের খেলাও স্থগিত করা হয়েছে; বাকি পাঁচ দিনের খেলা হবে কিনা, সে বিষয়ে কোনো নিশ্চয়তা নেই।

বিবিসির পরিবেশনায় সংগীত অনুষ্ঠান ‘বিবিসি প্রমস’ এর বৃহস্পতিবার ও শুক্রবারের আয়োজন বাতিল করা হয়েছে। একইসঙ্গে শনিবারের ‘লাস্ট নাইট অব দ্য প্রমস’ বাতিল করা হয়েছে।

রানির শ্রদ্ধায় এক মিনিটের নীরবতা পালন করে যুক্তরাজ্যজুড়ে থিয়েটার পারফরম্যান্স অব্যাহত রাখার কথা বলা হয়েছে। তবে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় মার্কারি মিউজিক প্রাইজের পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান বাতিল করা হয়েছে।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক