ব্যবহারকারীর ডেটা ফাঁস, ফের বড় জরিমানার মুখে মেটা

ফাঁস হওয়া ডেটার কারণে স্প্যাম, টেক্সট এবং ই-মেইলভিত্তিক ‘ফিশিং’ হামলা ও ব্যক্তিগত গোপন তথ্যের ওপর নিয়ন্ত্রণ হারানোর ঝুঁকিতে আছেন ভুক্তভোগীরা।

প্রযুক্তি ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 29 Nov 2022, 11:54 AM
Updated : 29 Nov 2022, 11:54 AM

আবারও ইউরোপের প্রাইভেসি আইন ভঙ্গের অভিযোগে দোষী সাব্যস্ত হয়েছে মেটা। সামাজিক মাধ্যম খাতের শীর্ষ কোম্পানিকে সাড়ে ২৭ কোটি ডলার জরিমানা করেছে আয়ারল্যান্ডের বাজারনিয়ন্ত্রক ‘ডেটা প্রোটেকশন কমিশন (ডিপিসি)’।

২০২১ সালের এপ্রিলে হঠাৎ হ্যাকারদের ফোরামে ৫৩ কোটি ৩০ লাখ ফেইসবুক ব্যবহারকারীর ব্যক্তিগত ডেটা প্রকাশ হওয়ার জেরে ইউরোপের ‘জেনারেল ডেটা প্রোটেকশন রেগুলেশন (জিডিপিআর)’ আইনের অধীনে এই জরিমানার আদেশ এলো।

নতুন জরিমানার বিষয়টি ‘গুরুত্বের সঙ্গে পর্যালোচনা’ করে দেখার কথা বলেছে মেটা। 

এ প্রসঙ্গে বিবিসিকে এক মেটা কর্মকর্তা বলেছেন, “ব্যবহারকারীদের তথ্যের প্রাইভেসি ও নিরাপত্তা নিশ্চিত করা আমাদের ব্যবসার মৌলিক বিষয়গুলোর একটি। এ কারণেই আমরা আইরিশ ডেটা প্রোটেকশন কমিশনকে এই গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে সম্পূর্ণ সহযোগিতা করেছি।”

ঝুঁকি আমলে নেওয়ার মতোই

বিবিসি জানিয়েছে, ২০১৮ সালের ২৫ মে থেকে ২০১৯ সালের সেপ্টেম্বর মাসের মধ্যে মেসেঞ্জার এবং ইনস্টাগ্রামের ‘সার্চ অ্যান্ড কনট্যাক্ট ইমপোর্টিং টুল’-এর অপব্যবহার করে স্বয়ংক্রিভাবে ভুক্তভোগীদের স্পর্শকাতর ডেটা হাতিয়ে নিয়েছিল সাইবার অপরাধীরা। 

ওই ঘটনায় মেটাকে বড় আকারের জরিমানা করার কারণ ব্যাখ্যা করে ডিপিসি কমিশনার হেলেন ডিক্সন বলেন, “ডেটা সেট এত বড় এবং অতীতেও ডেটা হারানোর ঘটনা, যা আগেই চিহ্নিত করে সমাধান করা যেত, এই দুই কারণে আমরা অবশেষে এত বড় জরিমানার সিদ্ধান্ত নিয়েছি।”

জরিমানায় ডেটা ফাঁসের ফলে ভুক্তভোগীরা যে ঝুঁকিতে পড়েছেন, তার প্রতিফলন হয়েছে বলে জানিয়েছে বিবিসি। ফাঁস হওয়া ডেটার কারণে স্প্যাম, টেক্সট এবং ই-মেইলভিত্তিক ‘ফিশিং’ হামলা ও ব্যক্তিগত গোপন তথ্যের ওপর নিয়ন্ত্রণ হারানোর ঝুঁকিতে আছেন তারা। 

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যমটি জানিয়েছে, ‘সার্চ অ্যান্ড কনট্যাক্ট ইমপোর্টিং টুল’-এর ত্রুটি সম্পর্কে জানার পর ২০১৯ সালেই এর সমাধান করেছে তৎকালীন ফেইসবুক। 

ব্যবহারকারীর ফোন নম্বর ব্যবহার করে ডেটা হাতিয়ে নেওয়ার ঝুঁকি কমাতেও প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার কথা বিবিসির কাছে দাবি করেছেন ওই মেটা কর্মকর্তা। 

“অনুমতি ছাড়া ডেটা সংগ্রহ করা কোনোভাবেই গ্রহণযোগ্য নয় এবং আমাদের নিয়ম বিরোধী এবং পুরো শিল্পের জন্য এই চ্যালেঞ্জকে মোকাবেলা করতে আমরা আমাদের সমকক্ষদের সঙ্গে কাজ চালিয়ে যাবো,” বিবিসিকে বলেন তিনি। 

দু’মাস আগেই শিশুদের নিরাপত্তা আইন লঙ্ঘনের অভিযোগে মেটার মালিকানাধীন ফটো-ভিডিও শেয়ারিং প্ল্যাটফর্ম ইন্সটাগ্রামকে রেকর্ড পরিমাণ জরিমানা করেছিল ডিপিসি।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক