মানুষের চেয়েও ‘দ্রুত ও ভালো’ ফ্রেঞ্চ ফ্রাই বানাচ্ছে রোবট

ক্যালিফোর্নিয়ার প্যাসাডিনা শহরে এই রোবট চালু করেছে ‘মিসো রোবটিক্স’, যা স্বয়ংক্রিয়ভাবেই আলু, পেয়াজসহ অন্যান্য খাবার ‘ডোবা তেলে ভাজার’ ধাপগুলো অনুসরণ করে।

প্রযুক্তি ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 5 Oct 2022, 01:56 PM
Updated : 5 Oct 2022, 01:56 PM

উন্নত প্রযুক্তির ছোঁয়া এসেছে ফাস্টফুড খাতেও। ‘ফ্রেঞ্চ ফ্রাই’ ও ‘অনিয়ন রিংস’ বানাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্রের দক্ষিণ ক্যালিফোর্নিয়ার এক কোম্পানির রোবট। আর মানব রন্ধনশিল্পীর চেয়ে এর তৈরি খাবারের মানও না কি ভালো!

ক্যালিফোর্নিয়ার প্যাসাডিনা শহরে ‘ফ্লিপি ২’ নামে পরিচিত এই রোবট চালু করেছে ‘মিসো রোবটিক্স’, যা স্বয়ংক্রিয়ভাবেই আলু, পেয়াজসহ অন্যান্য খাবার ‘ডোবা তেলে ভাজার’ ধাপগুলো নিয়মমাফিক অনুসরণ করে।

এটি দেখতে অনেকটা ‘অটো প্লান্টে’ ব্যবহৃত বড় আকারের রোবটিক বাহুর মতো, যা পরিচালিত হয় ক্যামেরা ও কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার সাহায্যে। হিমায়িত ফ্রেঞ্চ ফ্রাই বা অন্যান্য খাবার ফ্রিজার থেকে বের করে সেগুলো গরম তেলে ভেজে, একটি ‘ট্রে’র ওপর পরিবেশন করতে পারে এই রোবট।

রয়টার্সের প্রতিবেদন অনুযায়ী, একই সঙ্গে একাধিক খাবারের বিভিন্ন রেসিপি রান্না করতে পারে ‘ফ্লিপি ২’। ‘মিসো’ বলছে, এতে ক্যাটারিং কর্মীর চাহিদা কমে আসার পাশাপাশি ‘ড্রাইভ-থ্রু উইন্ডোজ’ ডেলিভারির গতিও বেড়ে যাবে।

“রেস্টুরেন্টের সিস্টেমে যখন একটি অর্ডার আসে, তখন স্বয়ংক্রিয়ভাবেই ফ্লিপি’র কাছে ওই নির্দেশ চলে যায়।” --এক সাক্ষাৎকারে বলেছেন মিসো’র প্রধান নির্বাহী মাইক বেল।

“বেশিরভাগ মানুষের চেয়ে দ্রুত ও নির্ভুলভাবে কাজ করে এটি।” --যোগ করেন তিনি।

মিসো’র ভাষ্যমতে, ফ্লিপি রোবট নির্মাণের পেছনে সময় লেগেছে পাঁচ বছর। আর সম্প্রতি এটি বাণিজ্যিকভাবে চালু করেছেন তারা।

রোবটের ‘ফ্লিপি’ নামটি এসেছে এর আগের এক রোবটের কাছ থেকে, যেটির নকশা হয়েছিল বার্গার উল্টানোর জন্য। তবে, মেশিনটি তৈরির পর মিসো’র দল বুঝতে পারে যে ফ্রাই স্টেশনে অনেক বেশি চাপ এসে পড়ে, বিশেষত মধ্যরাতে।

বেলের ভাষ্যমতে, এক দুর্দান্ত শুরু করেছে ‘ফ্লিপি ২’।

“আমরা রোবটকে একটি জায়গায় নিয়োগ দেওয়ার পর যেসব গ্রাহক অর্ডার দিতে আসেন, তারা সবাই এর সঙ্গে ছবি ও ভিডিও ধারণের পাশাপাশি বেশ কিছু প্রশ্নও করেন। দ্বিতীয়বার এলে তারা এর দিকে খেয়ালও করেন না ও স্বাভাবিকভাবেই নেন একে।” --বলেন তিনি।

একটি বড় স্ক্রিনের মাধ্যমে সরাসরি ‘ফ্লিপি ২’ রোবটের কার্যক্রম দেখতে পারেন মিসো’র প্রকৌশলরা। তাই কোনো সমস্যা দেখা দিলে সঙ্গে সঙ্গেই সামাল দেওয়ার ব্যবস্থা নিতে পারেন তারা।

এরইমধ্যে স্যান দিয়েগোর ‘জ্যাক ইন দ্য বক্স’, মিডওয়েস্টের ‘হোয়াইট ক্যাসল’ ও পশ্চিম উপকূলের ‘ক্যালিবার্গার’সহ বেশ কয়েকটি রেস্টুরেন্ট চেইন নিয়োগ দিয়েছে এই ‘খাবার ভাজা’ রোবটকে।

বেল বলেছেন, ‘ফ্লিপি ২’কে নিয়োগ দিয়েছে আরও তিনটি বড় মার্কিন ফাস্টফুড চেইন। তবে তিনি এটিও বলেন যে ‘মানুষের চাকরি কেড়ে নিচ্ছে রোবট’, এমন ধারণার কারণে এর বিজ্ঞাপন প্রচারেও দ্বিধায় ভুগছেন তারা।

“ফ্রাই স্টেশনের মতো কাজ থেকে নিস্তার পেয়ে মানুষ সবচেয়ে বেশি খুশি হয়…তারা এই সহায়তা পেয়ে আনন্দিত কারণ এর ফলে তারা অন্যান্য কাজ করতে পারবেন।” --বলেছেন বেল।

রয়টার্সের প্রতিবেদন অনুযায়ী, মিসো রোবটিক্সে প্রায় ৯০ জন প্রকৌশল আছেন, যারা বিভিন্ন প্রোটোটাইপ বা কম্পিউটার কোড নিয়ে কাজ করেন।

তাদের পরবর্তী প্রকল্পগুলোর একটি হলো ‘সিপ্পি’, যা একটি ‘পানীয়-তৈরির’ রোবট। একইসঙ্গে গ্রাহকের কাছ থেকে পানীয় অর্ডার নেওয়া, ঢেলে দেওয়া, ঢাকনা লাগানো ও ‘স্ট্র’ প্রবেশ করানোর মতো কাজ করতে পারবে এটি।

“একদিন মানুষ হয়তো কোনো রেস্টুরেন্টে গিয়ে রোবট দেখে বলবে, ‘হায়, মনে পড়ে সেই পুরোনো দিনের কথা? যখন মানুষ এই ধরনের কাজ করতো?” --বলেছেন বেল।

“আর সেই দিন আসছে… প্রশ্ন হলো…কতো দ্রুত।”

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক