‘ইগ নোবেল’: কে জিতলেন কীসে?

প্রতিটি ক্যাটেগরিতে জয়ীরা পেয়েছেন জিম্বাবুয়ের একটি ১০ ট্রিলিয়ন ডলার মুদ্রার নোট; সঙ্গে আরও ছিল কাগুজে ট্রফি।

প্রযুক্তি ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 16 Sept 2022, 10:59 AM
Updated : 16 Sept 2022, 10:59 AM

প্রেমিক যুগলের হৃদকম্পন কীভাবে মিলে যায়, কিংবা আদালতের নথি বোঝা কেন এত কঠিন - এসব জটিল প্রশ্নের উত্তর কেউ কি আগে খুঁজেছে?

এমন বিষয় নিয়ে গবেষণার জন্যই চলতি বছরের ‘ইগ নোবেল’ জিতে নিয়েছেন ‘বিজ্ঞানীদের’ দুটি দল। দ্বিমাসিক বিজ্ঞান সাময়িকী ‘অ্যানালস অফ ইমপ্রোবাবল রিসার্চ’ বৃহস্পতিবার এবারের বিজয়ীদের নাম ঘোষণা করেছে।

অমর্ত্য সেন বা নেলসন ম্যান্ডেলা যে নোবেল পুরস্কার জিতেছেন, তার সঙ্গে কোনো সম্পর্ক নেই ইগ নোবেলের। বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি খাতে হাস্যরসের জন্ম দেয় আবার একই সঙ্গে মানুষকে ভাবায়, এমন সব ‘উদ্ভট’ আবিষ্কার ও গবেষণার জন্য ইগ নোবেল পেয়ে থাকেন রসিক গবেষক আর বিজ্ঞানীরা।

২০২২ সালে ইগ নোবেল বিজয়ীদের গবেষণা আর আবিষ্কারের বিষয়বস্তুগুলোও বেশ মজার। প্রতিটি ক্যাটেগরিতে জয়ীরা পেয়েছেন জিম্বাবুয়ের একটি ১০ ট্রিলিয়ন ডলার মুদ্রার নোট; সঙ্গে আরও ছিল কাগুজে ট্রফি।

মোট ১০টি শ্রেণিতে এবার ইগ নোবেল দেওয়া হয়েছে। সে তালিকায় নানা মজার তথ্য মিলছে গবেষণার বিষয়বস্তু নিয়ে।

·        অ্যাপ্লায়েড কার্ডিওলজি: প্রেমিক যুগল প্রথম দেখাতেই একে অন্যের প্রতি আকর্ষণ অনুভব করেন এবং তাদের হৃদকম্পনের হার মিলে যায়। এটা প্রমাণ করে পুরস্কার জিতেছেন এলিশকা প্রোহাজকোভা ও তার সহকর্মীরা।  

·        সাহিত্য: আইনি নথিপত্র পড়ে বোঝা এত কঠিন কেন– সেই বিশ্লেষণ করে সাহিত্যে ইগ নোবেল পুরস্কার জিতেছেন এরিক মার্টিনেজ ও তার সহকর্মীরা।

·        জীববিদ্যা: কাঁকড়াবিছার সঙ্গমে কোষ্ঠকাঠিন্যের প্রভাব নিয়ে গবেষণা করে জীববিদ্যা শ্রেণীতে ইগ নোবেল জিতেছেন সোলিমারি গার্সিয়া-হার্নান্দেজ এবং গ্লাউকো মাচাদো।

·        চিকিৎসাশাস্ত্র: যে সব রোগীকে কেমোথেরাপি নিতে নয়, পুরো প্রক্রিয়ায় ব্যবহৃত প্রচলিত আনুসাঙ্গিকের যে কোনো একটির বদলে আইসক্রিম ব্যবহার করলে রোগীর ওপর ক্ষতিকর পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া কমে আসে বলে প্রমাণ দেখিয়ে চিকিৎসাশাস্ত্রে পুরস্কার জিতেছেন মার্চিন ইয়াশিনস্ক ও তার সহকর্মীরা।

·        পদার্থবিজ্ঞান: সাঁতার কাটার সময় হাঁসের বাচ্চারা কীভাবে দলের কাঠামো ধরে রাখে বোঝার চেষ্টা করে পদার্থবিজ্ঞানে ইগ নোবেল জিতেছেন ফ্র্যাঙ্ক ফিশ ও তার সহকর্মীরা।

·        প্রকৌশল: দরজার নব ঘোরানোর সময় মানুষের আঙ্গুলের সবচেয়ে কার্যকর ব্যবহারের উপায় আবিষ্কার করে ইগ নোবেল জিতেছেন গেন মাতসুকি এবং তার সহকর্মীরা।

·        শিল্পের ইতিহাস: ‘আ মাল্টিডিসিপ্লিনারি অ্যাপ্রোচ টু রিচুয়াল এনেমা সিনস অন এনশিয়েন্ট মায়া পটারি’ শীর্ষক গবেষণার জন্য এ শ্রেণিতে ইগ নোবেল জিতেছেন পিটার ডি স্মেট ও নিকোলাস হেলমুট।

·        শান্তি পুরস্কার: এ বছর শান্তিতে ইগ নোবেল জিতেছেন জুনহুই উ এবং তার সহকর্মীরা। গালগল্প করার সময় কখন সত্যি বলতে হবে, আর কখন মিথ্যা বলতে হবে– সেই পরামর্শ দিতে সক্ষম অ্যালগরিদম বানিয়েছেন তারা।

·        অর্থনীতি: সফলতা যে সবসময় সবচেয়ে প্রতিভাবান মানুষের হাতে যায় না, বরং ভাগ্যবান মানুষের হাতেই বেশি যায়– তা গাণিতিকভাবে প্রমাণ করে অর্থনীতিতে ইগ নোবেল জিতছেন আলেসান্দ্রো প্লাচিনো ও তার সহকর্মীরা।

·   নিরাপত্তা প্রকৌশল: মুস বা এলক ডিয়ারের (আকারে মহিষের সমান বা আরও বড় হরিনের প্রজাতি) ক্র্যাশ-টেস্ট ডামি বানিয়ে ইগ নোবেল জিতিছেন ম্যাগনাস জেনস।

এর মধ্যে ম্যাগনাস জেনসের সঙ্গে কথা বলার সুযোগ হয়েছিল ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসির। এক দশক আগে স্নাতোকোত্তর পর্যায়ের গবেষণা প্রবন্ধের কাজের জন্য পুরস্কার জিতে খুবই খুশি বলে জানিয়েছেন জেনস।

প্রতি বছরই মুস বা এলক ডিয়ারের সঙ্গে কয়েক হাজার দুর্ঘটনা ঘটে সুইডিশ চালকদের; প্রাণহানীর ঘটনাও ঘটে। এতো বড় একটি প্রাণীর সঙ্গে সংঘর্ষে গাড়ির কী অবস্থা হয়, সে সস্পর্কে আরও ভালো ধারণা পেতে ধাতব ফ্রেমে রাবারের স্তর বসিয়ে ক্র্যাশ-টেস্ট ডামি বানিয়েছিলেন ম্যাগনাস জেনস।

জেনসের ভাষ্যে, “একটা মুসের ওজন আড়াই থেকে তিনশ কেজির মধ্যে, কিন্তু গাড়ির ওজন দুই হাজার কেজির বেশি। এর মানে হলো, গাড়িগুলো ধাক্কা লাগার আগে গতি ততোটা কমাতে পারে না যাতে এয়ারব্যাগগুলো কাজ করবে।”

“ধাক্কাটা ভয়াবহ। আপনি দেখবেন যে উইন্ডশিল্ড বিস্ফোরিত হচ্ছে এবং সব কাচ সামনের আসনে থাকা আরোহীর মুখে ও শরীরে গিয়ে লাগে। গাড়ির ছাদ প্রায় ছিড়ে যায় সংঘর্ষে।” 

আর ইউরোপে বন্যপ্রাণীর সঙ্গে দুর্ঘটনায় প্রাণহানি এত বেশি ঘটে যে পরে জেনসের ডামির নকশা নিয়ে আরও বিস্তারিত পরীক্ষা-নিরীক্ষা চালিয়েছে একাধিক যানবাহন নির্মাতা কোম্পানি।

প্রতিবার ইগ নোবেলের পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান যুক্তরাষ্ট্রের হার্ভার্ড ইউনাভার্সিটিতে আয়োজিত হয়, আর জয়ীদের হাতে পুরস্কার তুলে দেন আসল নোবেল পুরস্কার বিজয়ীরা।

তবে মহামারীর কারণে বছর তিনেক হল অনলাইনেই আয়োজিত হচ্ছে পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান। ফলে এবারের বিজয়ীদের নোবেল বিজয়ীদের হাত থেকে সরাসরি পুরস্কার নেওয়ার সুযোগ হয়নি বলে জানিয়েছে বিবিসি।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক