জাতীয় তথ্য-প্রযুক্তি দিবসে বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোরের প্রধান সম্পাদককে বিশেষ সম্মাননা

ডিজিটাল বাংলাদেশ অভিযাত্রায় অবদানের স্বীকৃতি হিসেবে ইন্টারনেটে বাংলাদেশের প্রথম সার্বক্ষণিক সংবাদ প্রকাশক বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমের প্রধান সম্পাদক তৌফিক ইমরোজ খালিদীকে জাতীয় তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি দিবসে বিশেষ সম্মাননা দিয়েছে সরকার।

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 12 Dec 2017, 11:12 AM
Updated : 14 Dec 2017, 06:53 AM

প্রথমবারের মত এ দিবস পালনের অংশ হিসেবে মঙ্গলবার আরও আটজন ব্যক্তি ও ছয় প্রতিষ্ঠানকে ‘জাতীয় তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি পুরস্কার ২০১৭’ দেওয়া হয়েছে।

বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের আয়োজনে এক অনুষ্ঠানে স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী পুরস্কারপ্রাপ্তদের হাতে সম্মাননা তুলে দেন।

২০০৫ সালের প্রথমার্ধে অন্যান্য বার্তা সংস্থার মত যাত্রা শুরু করা ‘বিডিনিউজ’ পরের বছর মালিকানা ও ব্যবস্থাপনায় পরিবর্তনের মধ্য দিয়ে নতুন রূপ পায়। সাংবাদিক তৌফিক ইমরোজ খালিদীর নেতৃত্বে নতুন ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষ প্রতিষ্ঠানটিকে দেশের প্রথম ডটকম কোম্পানির রূপ দেয়। নতুন আঙ্গিকে এর পরিচয় হয় বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম নামে।

বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম ২০০৬ সালের ২৩ অক্টোবর উৎসুক পাঠকের জন্য এর সমস্ত কন্টেন্ট উন্মুক্ত করে দেয়; যাত্রা শুরু হয় বাংলাদেশের প্রথম ইন্টারনেট সংবাদপত্রের।

দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর বাংলা ও ইংরেজি ভাষায় ২৪ ঘণ্টা বিনামূল্যে পড়ার সুযোগ নিয়ে আসা বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম গত ১১ বছরে নিয়মিতভাবে নতুন নতুন সংবাদ সেবা উপহার দিয়েছে।

বাংলায় প্রথম ওয়াপ সাইট, বাংলা ভাষায় প্রথম মোবাইল নিউজ-সাইট, বাংলাদেশে মোবাইল ফোনে প্রথম ব্রেকিং নিউজ সেবাসহ বাংলাদেশে অনেক প্রথমের জন্ম দেওয়া বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম এখন বাংলাদেশের সর্ববৃহৎ এবং সবচেয়ে নির্ভরযোগ্য সংবাদ মাধ্যম।

অধ্যাপক মুহম্মদ জাফর ইকবাল পেয়েছেন আজীবন সম্মাননা

প্রয়াত মেয়র আনিসুল হকের পক্ষে পুরস্কার নেন মেয়ে তানিশা ফারিয়ামান হক ও ওয়ামিক উমাইরা

বাংলাদেশে ডিজিটাল সংবাদ সেবাকে একটি বাণিজ্যিক রূপ দেওয়ার এই অভিযাত্রা যখন শুরু হয়, ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার স্লোগান তখনও আসেনি। আর এই অভিযাত্রায় নেতৃত্ব দেওয়া তৌফিক ইমরোজ খালিদীর ভাষায়, অজানা, অপরীক্ষিত ও অনিশ্চিত এই পথ সহজ ছিল না মোটেও।

তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় তিনি বলেন, “প্রতিনিয়ত নতুন কিছু করতে হয়েছে। সেখানে চ্যালেঞ্জ ছিল, সাফল্য ছিল, ব্যর্থতা ছিল, বিজয়ের আনন্দ ছিল। আচমকা হোঁচট খাওয়ার বিড়ম্বনা ছিল। সেই সাথে ছিল ২০০৭-০৮ সালের সামরিক বাহিনী নিয়ন্ত্রিত সরকারের তৈরি করা অস্বাভাবিক পরিস্থিতি। জঙ্গল কেটে রাস্তা তৈরি করতে হলে যেটা হয়…।

“রাস্তা মোটামুটি মসৃণ হলে-সেই পথ দিয়ে স্বচ্ছন্দে যাওয়া যায়।  আমাদের ক্ষেত্রে রাস্তাটা অবশ্যই মসৃণ ছিল না। তবে কাজটি আমরা উপভোগ করেছি।”

তৌফিক ইমরোজ খালিদী বলেন, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম যখন ইন্টারনেট সংবাদপত্র হিসেবে পাঠককে সংবাদ পরিবেশন শুরু করে, ততদিনে বিশ্বের অনেক পত্রিকা ও টেলিভিশন চ্যানেল আলাদা ওয়েবসাইট করে ফেলেছে। কিন্তু শুধুমাত্র ইন্টারনেটে প্রকাশের জন্য, একটি সংবাদকক্ষ, দেশব্যাপী একটি সংবাদ সংগ্রহ কার্যক্রম আর ছিল না।

“প্রথম চ্যালেঞ্জ ছিল সাংবাদিকতার মান নিয়ে। নামহীন সূত্রের বরাত দিয়ে কোনো খবর পরিবেশন করা যাবে না।… কেউ কেউ বলছিলেন- ‘এগুলো পাগলের প্রলাপ। এদেশে এগুলো চলবে না।’… এদেশে সেই কাজ করে দেখানো হয়েছে। বিশ্বাসযোগ্যতা, দ্রুততা সব কিছুই অর্জিত হয়েছে।”

বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমের প্রধান সম্পাদক বলেন, “এটা সত্যি যে আমরা সব সময় প্রথম হই না। তবে নির্ভুল খবরের ক্ষেত্রে প্রথম হওয়ার চেষ্টা অব্যাহত আছে প্রায়  বারো বছর ধরেই।”

সেই সময়টিতে অনেক ডটকম কোম্পানির ব্যর্থতায় বিনিয়োগকারীরা আগ্রহ হারিয়ে ফেলছিলেন। কিন্তু বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম শুরুতেই দারুণ সাফল্য দেখাতে পেরেছিল। সংবাদ মাধ্যমের বিজ্ঞাপননির্ভর সনাতনী ব্যবসা মডেলের বদলে নতুন নতুন সংবাদ সেবা চালু করে আয়ের পথ খোলা হয়েছিল ধীরে ধীরে। এখন বহু ইন্টারনেট সংবাদমাধ্যম বাংলাদেশে সেই পথই অনুসরণ করছে। 

এই পথচলায় বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম যাদের পাশে পেয়েছে, তাদের সবার প্রতি ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানান এর প্রধান সম্পাদক।

তথ্য-প্রযুক্তি পুরস্কার প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন স্পিকার শিরিন শারমিন চৌধুরী

এক মঞ্চে পুরস্কারপ্রাপ্তরা

আইসিটিতে অবদানের জন্য এ অনুষ্ঠানে অধ্যাপক মুহম্মদ জাফর ইকবালকে দেওয়া হয়েছে আজীবন সম্মাননা।

তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবহার করে স্মার্ট নাগরিক সেবায় অবদানের জন্য বিশেষ সম্মাননা দেওয়া হয়েছে, ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের প্রয়াত মেয়র আনিসুল হককে। তার পরিবারের পক্ষ থেকে সম্মাননা নিতে এসেছিলেন মেয়ে তানিশা ফারিয়ামান হক ও ওয়ামিক উমাইরা।

স্বাস্থ্য খাতে ডিজিটাল সেবায় অবদানের জন্য স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ডা. আবুল কালাম আজাদ, সফটওয়্যার ইনোভেশন ক্যাটাগরিতে লিডস করপোরেশন লিমিটেড ও লিডসফট বাংলাদেশ লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক শেখ আবদুল আজিজ, আইসিটির মাধ্যমে নাগরিক সেবায় অবদানের জন্য ফরিদপুরের জেলা প্রশাসক বেগম উম্মে সালমা তানজিয়া এবারের তথ্যপ্রযুক্তি পুরস্কার পেয়েছে।

আইসিটি শিক্ষায় অবদান এবং প্রযুক্তি ব্যবহারের উৎকর্ষতার বিবেচনায় শিক্ষা ক্যাটাগরিতে সিলেটের শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়; মোবাইল ফোন ব্যবহার করে কৃষকদের তথ্যসেবা দেওয়ার উদ্যোগের জন্য কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর; আইসিটির মাধ্যমে নাগরিক সেবায় অবদানের জন্য স্থানীয় সরকার ক্যাটাগরিতে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনকে এ পুরস্কার দেওয়া হয়েছে।

আইটি খাতের ক্ষেত্রে ‘শ্রেষ্ঠ রপ্তানিকারকের’ পুরস্কার পেয়েছে বিজনেস প্রসেস আউট সোর্সিং কোম্পানি সার্ভিস ইঞ্জিন লিমিটেড; দি সিটি ব্যাংক লিমিটেড ‘সেরা অনলাইন ব্যাংকিং সেবা’ এবং বিভিন্ন গৃহস্থালী সেবার অনলাইন মার্কেটপ্লেস ‘সেবা এক্সওয়াইজেড’ আইটি খাতের ‘সেরা স্টার্টআপ’ এর পুরস্কার পেয়েছে।

এছাড়া তথ্যপ্রযুক্তি বিষয়ে সাংবাদিকতার জন্য পুরস্কার পেয়েছেন চ্যানেল আইয়ের জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক ফরিদুর রহমান পান্থ, দৈনিক কালের কণ্ঠের প্রযুক্তি বিভাগের প্রধান মুহম্মদ খান এবং বাংলাদেশ সংবাদ সংস্থার উপ-প্রধান প্রতিবেদক মাহমুদুল হাসান।

রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ আকস্মিকভাবে তুরস্ক সফরে যাওয়ায় প্রধান অতিথি হিসেবে এই অনুষ্ঠানে আসেন স্পিকার শিরীন শারমিন।

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলকের সভাপতিত্বে এ অনুষ্ঠানে ডাক ও টেলিযোগাযোগ সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি ইমরান আহমেদও বক্তব্য দেন।

স্বাগত বক্তব্যে ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার পরিকল্পনা বাস্তবায়নে সরকারের নেওয়া বিভিন্ন উদ্যোগ এবং সাফল্যের কথা অনুষ্ঠানে তুলে ধরেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি সচিব সুবীর কিশোর চৌধুরী। 

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক