‘দুয়োর মুখে’ স্থগিত ইনস্টাগ্রামের নতুন ফিচার

ভিডিও শেয়ারিং প্ল্যাটফর্ম টিকটকের আদলে ব্যবহারকারীদের আরও বেশি ‘রিকমেন্ডেড ভিডিও কনটেন্ট’ পুরো স্ক্রিন জুড়ে দেখানোর পরিকল্পনা করেছিল ইনস্টাগ্রাম।

প্রযুক্তি ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 31 July 2022, 07:59 AM
Updated : 31 July 2022, 07:59 AM

অনলাইন ইনফ্লুয়েন্সার, সেলিব্রেটি আর সাধারণ ব্যবহারকারীদের দুয়োর মুখে নতুন ফিচারের প্রচলন স্থগিত করতে বাধ্য হয়েছে ফটো ও ভিডিও শেয়ারিং প্ল্যাটফর্ম ইনস্টাগ্রাম।

ভিডিও শেয়ারিং প্ল্যাটফর্ম টিকটকের আদলে ব্যবহারকারীদের আরও বেশি ‘রিকমেন্ডেড ভিডিও কনটেন্ট’ পুরো স্ক্রিন জুড়ে দেখানোর পরিকল্পনা করেছিল ইনস্টাগ্রাম। সামাজিক মাধ্যমের বাজারে প্রাসঙ্গিক থাকতেই এ পরিকল্পনা করেছিল প্ল্যাটফর্মটি।

হিতে-বিপরীত হয়েছে সেই পরিকল্পনায়। নিজস্ব ফিডে পছন্দের মানুষদের ছবি-ভিডিওর চেয়ে ইনস্টাগ্রামের ‘রিকমেন্ডেড (আসলেই পরামর্শ না কি জোর করে দেখানো!)’ কনটেন্টের উপস্থিতি বেশি হওয়া খেপেছিলেন ইনফ্লুয়েন্সার ও সাধারণ ব্যবহারকারীরা।

দুয়োর মুখে এখন ইনস্টাগ্রামের মূল কোম্পানি মেটা বলছে, ‘সময় নিয়ে’ সঠিক পরিবর্তন আনতে চায় তারা।

নিজস্ব প্ল্যাটফর্মে ব্যবহারকারীদের ফিড ঢেলে সাজানোর চেষ্টা করছে ইনস্টাগ্রাম। মেটা বা ইনস্টাগ্রামের শীর্ষ কর্মকর্তারা সরাসরি স্বীকার না করলেও কোম্পানির সাম্প্রতিক কর্মকাণ্ডের ভিত্তিতে বাজার বিশ্লেষক ও সংশ্লিষ্টরা বলছেন, সাম্প্রতিক বছরগুলোতে টিকটকের অপ্রত্যাশিত সাফল্য দেখে চীনা মালিকানার অ্যাপটিকে নকল করার চেষ্টা করছে ইনস্টাগ্রাম।

ডেটা বিশ্লেষক কোম্পানি ‘সেন্সর টাওয়ার’-এর প্রতিবেদন বলছে, বিশ্বব্যাপী টিকটক অ্যাপ ডাউনলোড করা হয়েছে তিনশ কোটিও বেশিবার। প্রথমবারের মতো এ মাইলফলক ছুঁয়েছে মেটার মালিকানায় নেই এমন কোনো অ্যাপ।

আর ইনস্টাগ্রাম অ্যাপের যে সংস্করণ নিয়ে ব্যবহারকারীদের সমালোচনায় পরেছে প্ল্যাটফর্মটি, সেটি সামনের কয়েক সপ্তাহের মধ্যেই বাজার থেকে তুলে নেওয়ার কথা প্রযুক্তিবিষয়ক সাইট ভার্জকে জানিয়েছেন ইনস্টাগ্রাম প্রধাম অ্যাডাম মোসেরি।

“আমি খুশি যে আমরা একটা ঝুঁকি নিয়েছিলাম – মাঝেমধ্যে যদি আমরা ব্যর্থ না হই, তার মানে হলো আমরা সাহসিকতার সঙ্গে বড় পরিসরে চিন্তা করছি না,”-- ভার্জকে বলেছেন মোসেরি।

“তবে আমাদের অবশ্যই এক পা পিছিয়ে গিয়ে আবার সংগঠিত হতে হবে। আমরা অনেক কিছু শিখেছি, আমরা নতুন কোনো চিন্তা বা সংস্করণ নিয়ে ফিরবো। সেটা নিয়েই কাজ করছি আমরা।”

আগের এক ভিডিও বার্তায় ফটোর বদলে ভিডিও কনটেন্টেই বেশি গুরুত্ব দেওয়ার কথা বলেছিলেন মোসেরি। পরে সমালোচনার মুখে টুইট করে বলেন, ‘ফটোতে সমর্থন অব্যাহত রাখতে’ চান তিনি।

মোসেরির ভিডিও বার্তার প্রতিক্রিয়ায় যুক্তরাষ্ট্রের তারকা মডেল ক্রিসি টিগান বলেছিলেন, “ভিডিও বানাতে চাই না”। ছবিতে ভক্তদের প্রতিক্রিয়াও কমে এসেছিল বলে জানিয়েছেন তিনি।

তবে, ইনস্টাগ্রামের জন্য জনমতের বাজারে সম্ভবত সবচেয়ে বড় প্রতিবন্ধকতা হিসেবে আত্মপ্রকাশ করেছেন দুই রিয়ালিটি টিভি স্টার কিম কারদাশিয়ান ও কাইলি জেনার। নিজেদের ইনস্টাগ্রাম স্টোরিতে “মেক ইনস্টাগ্রাম ইনস্টাগ্রাম এগেইন’ স্লোগানে অনলাইন পিটিশন শেয়ার করেছিলেন দুজনেই।

অন্যদিকে ইনস্টাগ্রামের সাম্প্রতিক পরিকল্পনা নিয়ে বিবিসিকে নিজের হতাশার কথা বলেছিলেন লেখক ও কনটেন্ট নির্মাতা টোনি টোন। পছন্দের মানুষের কনটেন্ট দেখা যেত যখন, ইনস্টাগ্রাম তখনই ভালো ছিল বলে মন্তব্য করেছেন তিনি।

ব্যবহারকারীদের নেতিবাচক প্রতিক্রিয়ার মুখে এক মেটা মুখপাত্র বিবিসিকে বলেছেন, “আমরা যা জানতে পেরেছি এবং সবার কাছ থেকে যে প্রতিক্রিয়া পেয়েছি তার ভিত্তিতে ইনস্টাগ্রামে ফুল স্ক্রিন টেস্ট স্থগিত করছি; যেন আমরা বিকল্পগুলো বিবেচনা করে দেখতে পারি। আপনার ফিডে ‘রিকমেন্ডেশন’-এর সংখ্যাও কমিয়ে দিয়েছি আমরা, যেন আপনার অভিজ্ঞতা আমরা আরও উন্নত করতে পারি।”

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক