কমেছে বিজ্ঞাপনী আয়, ভবিষ্যৎ নিয়ে শঙ্কিত মেটা

তিন মাসে মেটার মোট কামাই ১ শতাংশ কমে নেমে এসেছে দুই হাজার ৮৮০ কোটি ডলারে। তবে, বছরের প্রথম প্রান্তিকে সেবাগ্রাহকের সংখ্যা কমলেও দ্বিতীয় প্রান্তিকে সেটি ঠেকাতে পেরেছে কোম্পানি।

প্রযুক্তি ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 28 July 2022, 10:58 AM
Updated : 28 July 2022, 11:13 AM

প্রায় দুই দশকের ইতিহাসে প্রথমবারের মতো এক প্রান্তিকে বিজ্ঞাপনী আয় কমেছে ফেইসবুক ও ইনস্টাগ্রামের মূল কোম্পানি মেটার।

বিবিসি জানিয়েছে, এপ্রিল থেকে জুলাই মাসের মধ্যে তিন মাসে মেটার মোট কামাই ১ শতাংশ কমে নেমে এসেছে দুই হাজার ৮৮০ কোটি ডলারে। তবে, বছরের প্রথম প্রান্তিকে সেবাগ্রাহকের সংখ্যা কমলেও দ্বিতীয় প্রান্তিকে সেটি ঠেকাতে পেরেছে মেটা।

বাজার বিশ্লেষকদের শঙ্কা, সম্ভবত ব্যবসা প্রসারের বেলায় সর্বোচ্চ অর্জনের জায়গাটি ইতোমধ্যেই অর্জন করে ফেলেছে জাকারবার্গ অ্যান্ড কোং।

জনপ্রিয়তার বিচারে মেটার সবচেয়ে সফল প্ল্যাটফর্ম ফেইসবুকের জন্য এখন বড় হুমকি টিকটক; অন্যদিকে বিজ্ঞাপনী আয়ের ক্ষেত্রেও কঠোর প্রতিযোগিতার মুখে পড়ছে ফেইসবুক।

বেশ কবছর ধরে বৈশ্বিক বিজ্ঞাপনী বাজারের ২০ শতাংশ নিজের কব্জায় রেখেছে মেটা। কিন্তু বছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকের আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশের সময় কোম্পানিটি বিনিয়োগকারীদের সতর্ক করে দিয়েছে যে, সামনের মাসগুলোতে বিজ্ঞাপনী আয় আরও কমার আশঙ্কা করছে তারা।

মহামারী পরবর্তী বিশ্বে অনলাইন কেনাকাটার হার হ্রাস পেয়েছে। তার ওপর ইউক্রেইন যুদ্ধের প্রভাবে সৃষ্ট মুদ্রাস্ফীতিতে বৈশ্বিক মন্দার শঙ্কা করছে প্রযুক্তি বাজারের প্রথমসারির কোম্পানিগুলো। আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশের সময়ে সেই শঙ্কা নিয়েই বিনিয়োগকারীদের সতর্ক করে দিয়েছে মেটা।

অন্যদিকে, মন্দার শঙ্কায় ইতোমধ্যেই সামনের বছর জুড়ে নতুন কর্মীর নিয়োগ প্রক্রিয়া সীমিত করে আনার কথা বলেছেন মেটা প্রধান জাকারবার্গ। বিবিসি বলছে, কোম্পানির ভবিষ্যত বিনিয়োগ নতুন খাতে নেওয়ার পরিকল্পনাও করেছে মেটা। এর মধ্যে সবচেয়ে প্রতিশ্রুতিশীল প্রকল্প হিসেবে বিবেচিত হচ্ছে মেটার ভার্চুয়াল রিয়ালিটি প্ল্যাটফর্ম ‘হরাইজন ওয়ার্ল্ডস’।

এই পরিকল্পনাগুলো নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের বাজার পর্যাবেক্ষক সংস্থা ‘ফেডারেল ট্রেড কমিশন (এফিটিসি)’র সমালোচনার মুখেও পড়েছে মেটা। মেটা ভার্চুয়াল রিয়ালিটি প্ল্যাটফর্ম ‘উইদিন আনলিমিটেড’ কিনে ভিআর খাতে একাধিপত্য প্রতিষ্ঠার চেষ্টা করছে, এই আশঙ্কায় কোম্পানির বিরুদ্ধে মামলার হুমকিও দিয়েছে ভোক্তা অধিকার সংস্থাটি।

মেটাকে ভার্চুয়াল রিয়ালিটি প্রযুক্তি কেন্দ্রীক পরিকল্পনা থেকে মুনাফা পেতে আরও কয়েক বছর অপেক্ষা করতে হবে এবং সাম্প্রতিক বছরগুলোতে মেটার ব্যবহারকারীর সংখ্যা বাড়ানোর সুযোগও কম বলে মন্তব্য করেছেন বাজার বিশ্লেষক সিএফআরএ রিসার্চের কর্মী অ্যাঞ্জেলো জিনো।

“কার্যত ফেইসবুক এখন একটি ব্যবসা প্রসারের সম্ভাবনা তলানিতে গিয়ে ঠেকা কোম্পানি,” বলেন তিনি। বছরের প্রথম প্রান্তিকে প্রথমবারের প্রতিদিনকার নিয়মিত ব্যবহারকারীর সংখ্যা হ্রাস পাওয়ার খবর দিয়েছিল ফেইসবুক।

বাজারের পরিবর্তনের সঙ্গে তাল মেলাতে ফেইসবুক ও ইনস্টাগ্রামের অ্যালগরিদমে পরিবর্তন এনে মেটা এখন নিজস্ব প্ল্যাটফর্মগুলোকে টিকটকের আদলে সাজানোর চেষ্টা করছে; ব্যবহারকারী যাদের ফলো করেন না, এমন অ্যাকাউন্টের পোস্টও দেখানো হচ্ছে তাদের।

মেটার এই ‘ব্যবসায়িক কৌশলে’ খেপেছেন ব্যবহারকারীরা। বিশেষ করে কাইলি জেনারের মতো ইনফ্লুয়েন্সারদের কাছ থেকেই আপত্তি আসছে সবচেয়ে বেশি।

তবে, বিবিসি বলছে, অ্যালগরিদমের পরিবর্তনগুলো সম্ভবত সাহায্য করছে ফেইসবুক তথা মেটাকে।

জুন মাসে কোম্পানিটি বলেছিল, ফেইসবুকে প্রতিদিন ১৯৭ কোটি ব্যবহারকারী লগ-ইন করছেন। মার্চ মাসে যা ছিল ১৯৬ কোটি। আর জুন মাসে মেটার মালিকানাধীন অ্যাপগুলোর কোনো একটিতে দৈনিক একবার ব্যবহার করেছেন এমন ব্যবহারকারীর সংখ্যা ছিল ২৮৮ কোটি। মার্চ মাসে এই ব্যবহারকারীদের সংখ্যা ছিল ২৮৭ কোটি।

ব্যবহারকারীরা কোম্পানির অ্যাপগুলোতে বেশি সময় দিচ্ছেন জেনে নিজে খুশি বলে জানিয়েছেন মেটা প্রধান মার্ক জাকারবার্গ। তবে ব্যবহারকারীর সংখ্যা না কমলেও কমেছে কোম্পানির মুনাফা। দ্বিতীয় প্রান্তিকে মেটার মুনাফা ৩৬ শতাংশ কমে নেমে এসেছে ৬৭০ কোটি ডলারে।

মেটা ধীর গতিতে হলেও ভিন্ন ভিন্ন খাতে বিনিয়োগ চালু রাখবে বলে জানিয়েছেন জাকারবার্গ। “সামনের দনিগুলোতে আমাদের সামনে বেশ কয়েকটি চ্যালেঞ্জ আছে। কিন্তু আমরা যে বিনিয়োগগুলো করছি সেগুলো আমাদের দীর্ঘমেয়াদী সুবিধা দেওয়ার কথা,” বলেন তিনি।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক