গোল করেও বিশ্বাস হচ্ছিল না সনের

চলতি মৌসুমে গোল খরা কাটিয়ে উচ্ছ্বসিত টটেনহ্যাম হটস্পার ফরোয়ার্ড সন হিউং-মিন।

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 18 Sept 2022, 11:34 AM
Updated : 18 Sept 2022, 11:34 AM

আগের মৌসুমে ছিলেন স্বপ্নের ফর্মে। প্রিমিয়ার লিগে যৌথভাবে হয়েছিলেন সর্বোচ্চ স্কোরার। তবে চলতি মৌসুমে গোল করতেই যেন ভুলে গিয়েছিলেন সন হিউং-মিন। ব্যর্থতার জাল ছিঁড়ে এক ম্যাচেই জালের দেখা পেলেন তিন বার। চাপ সরে যাওয়ায় এখন বেশ নির্ভার লাগছে টটেনহ্যাম হটস্পার ফরোয়ার্ডের।

গোল্ডেন বুট জয়ীর বেশে মৌসুম শুরু করে সব মিলিয়ে দলের প্রথম সাত ম্যাচে গোলের দেখা পাননি সন। তাতে বাড়ছিল চাপ। কঠোর সমালোচনায় আত্নবিশ্বাস এতটাই কমে গিয়েছিল যে গোল করে বিশ্বাসই করতে পারছেন না আগের মৌসুমেই লিগে ২৩ গোল করা এই ফরোয়ার্ড। 

প্রিমিয়ার লিগে শনিবার লেস্টার সিটির বিপক্ষে ৫৯তম মিনিটে বদলি নামেন সন। রোমাঞ্চকর লড়াইয়ে তখন ৩-২ গোলে এগিয়ে ছিল টটেনহ্যাম। মাঠে নেমেই বিধ্বংসী হয়ে ওঠেন ৩০ বছর বয়সী ফরোয়ার্ড; ১৩ মিনিটের মধ্যে তিন বার জালে বল পাঠিয়ে দলের বড় জয় নিশ্চিত করেন দক্ষিণ কোরিয়া অধিনায়ক।

প্রিমিয়ার লিগের ইতিহাসে টটেনহ্যামের প্রথম খেলোয়াড় হিসেবে বদলি নেমে হ্যাটট্রিকের কীর্তি গড়লেন সন।

এই মৌসুমে লেস্টার ম্যাচের আগে সনের পারফরম্যান্স ছিল খুবই হতাশাজনক। গোলের জন্য ১৭ বার চেষ্টা করেও ব্যর্থ ছিলেন তিনি। শনিবারের ম্যাচে তাই জায়গা হারান শুরুর একাদশে।

বারবার গোলে শট নিয়ে ব্যর্থ হওয়া এবং দীর্ঘ গোল খরায় আত্মবিশ্বাস হারিয়ে ফেলেন সন। ম্যাচের পর বিবিসি স্পোর্টকেও সেটাই বলেন তিনি।

“দারুণ এক অনুভূতি। (যখন গোল করলাম) আমি তো বিশ্বাসই করতে পারছিলাম না। সব হতাশা ও যত নেতিবাচক মনোভাব বাসা বেঁধেছিল, সব মুহূর্তেই চলে গেল। আমি নড়াচড়া করতে পারছিলাম না, স্থির হয়ে ছিলাম। এটা আমাকে সত্যিই আনন্দ দিয়েছে।”

“ফুটবল মাঝে মধ্যে অদ্ভূত হয়ে যায়। কখনও বল কিছুতেই ভিতরে যেতে চায় না, আবার (আজকে) তিনটি গোল হয়ে গেল। এতে সবকিছু পাল্টে গেল। এই কঠিন সময়ে আমি অনেক কিছু শিখেছি। সুযোগ পেতে আমাকে সবসময় কঠোর পরিশ্রম করতে হবে। ভাগ্যের ছোঁয়ায় পাওয়া তিনটি গোল এবং আমি সত্যিই গর্বিত।”

প্রিমিয়ার লিগে ৭ ম্যাচে পাঁচ জয় ও দুই ড্রয়ে ১৭ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে আছে টটেনহ্যাম।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক