যৌন নিপীড়নের দায়ে দানি আলভেসের জেল

২০২২ সালে বার্সেলোনার একটি নাইট ক্লাবে এই কাণ্ড ঘটান সাবেক ব্রাজিলিয়ান ডিফেন্ডার।

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 22 Feb 2024, 09:29 AM
Updated : 22 Feb 2024, 09:29 AM

লম্বা সময় ধরে জেলে থাকা দানি আলভেসের শাস্তি ঘোষণা করেছে কাতালুনিয়ার শীর্ষ আদালত। ২০২২ সালে বার্সেলোনার একটি নাইট ক্লাবে একজন নারীকে যৌন নিপীড়নের দায়ে সাবেক ব্রাজিলিয়ান ডিফেন্ডারকে সাড়ে চার বছরের জন‍্য জেল দিয়েছে তারা।

পাশাপাশি দেড় লাখ ইউরো জরিমানা করেছে আদালত। সেই অর্থ পাবেন নিপীড়নের শিকার ওই নারী।

“ঘটনার শিকার (নারীর) সায় ছিল না বলে প্রমাণ হয়েছে এবং এর পক্ষে প্রমাণও আছে, বিষয়গুলো বিবেচনায় নিয়েই রায় দেওয়া হয়েছে, পাশাপাশি বাদীর সাক্ষ‍্য, যাতে ধর্ষণের প্রমাণ মেলে।"

দেশ ও ক্লাবের হয়ে ৪০ এর বেশি শিরোপা জেতা আলভেস এই রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করার সিদ্ধান্ত জানিয়েছেন।

বাদী ওই নারীর অভিযোগ, ২০২২ সালের ডিসেম্বরে বার্সেলোনার একটি নাইটক্লাবে তাকে ধর্ষণ করেন আলভেস। এই অভিযোগে পরের মাসে বার্সেলোনায় তাকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। স্পেনের আদালত তার জামিন আবেদন না মঞ্জুর করে জেলে পাঠানোর নির্দেশ দেয়। তখন থেকেই বার্সেলোনার একটি কারাগারে আছেন বার্সেলোনার সাবেক এই ডিফেন্ডার।

স্পেনের গণমাধ্যমে প্রকাশিত প্রতিবেদন অনুযায়ী, নাইটক্লাবে বন্ধুদের সঙ্গে ছিলেন ওই নারী। সম্মতি ছাড়াই আলভেস নাকি তার অন্তর্বাসের নিচের দিকে স্পর্শ করেন। ওই নারীর অভিযোগ, আলভেস তাকে চড় মারেন এবং নাইটক্লাবের বাথরুমে নিয়ে ধর্ষণ করেন।

শুরুতে সব অভিযোগ অস্বীকার করেন আলভেস। গ্রেপ্তার হওয়ার দুই সপ্তাহ আগে স্থানীয় টিভি চ্যানেল আন্তেনা থ্রি-কে দেওয়া সাক্ষাৎকারে এই ফুটবলার বলেন, ওই নারীকে তিনি চেনেন না।

পরে গত এপ্রিলে সাক্ষ্য পরিবর্তন করেন তিনি। স্বীকার করে নেন অভিযোগকারী নারীর সঙ্গে যৌন সম্পর্কের কথা। তবে দুইজনের সম্মতিতে তা হয়েছিল বলে দাবি করেন আলভেস। বার্সেলোনার একটি আদালত গত অগাস্টে আনুষ্ঠানিকভাবে তাকে অভিযুক্ত করে। তার ৯ বছরের জেল চান স্পেনের এক প্রসিকিউটর।

গ্রেপ্তার হওয়ার পর আলভেসের সঙ্গে চুক্তি বাতিল করে তার তখনকার ক্লাব পুমাস। বার্সেলোনা, ইউভেন্তুস ও পিএসজির মতো ইউরোপের বড় ক্লাবে খেলা এই ডিফেন্ডারের সঙ্গে পরে সম্পর্ক ছিন্ন করে তার স্ত্রী জোয়ানা সানস।

ব্রাজিলের হয়ে আলভেস খেলেছেন ১২৬ ম্যাচ। গত ডিসেম্বরে কাতার বিশ্বকাপে ক্যামেরুনের বিপক্ষে ম্যাচে ব্রাজিলের অধিনায়কত্ব করেন তিনি।