চুয়াডাঙ্গায় স্কুলছাত্রীকে ‘শ্লীলতাহানি’: শিক্ষকের বিচার দাবি, তদন্তে কমিটি

এক ছাত্রী প্রাইভেট পড়তে স্কুলের শিক্ষকের বাসায় যান। তখন ওই শিক্ষক তাকে শ্লীলতাহানির চেষ্টা করলে সে ধাক্কা দিয়ে বেরিয়ে আসে।

চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 3 Feb 2024, 08:45 PM
Updated : 3 Feb 2024, 08:45 PM

চুয়াডাঙ্গায় দশম শ্রেণির ছাত্রীকে শ্লীলতাহানির অভিযোগ তদন্তে জেলা প্রশাসন কমিটি করেছে; এ ছাড়া ওই শিক্ষকের বিচার দাবিতে বিক্ষোভ করেছে শিক্ষার্থীরা।

মঙ্গলবার সকালে শহরের ওই সরকারি বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে যায় এবং জেলা প্রশাসকের কাছে স্মারকলিপি দেয়।

তখন জেলা প্রশাসক কিসিঞ্জার চাকমা বলেন, এ ঘটনা তদন্তে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক শারমিন আক্তারকে (শিক্ষা ও আইসিটি) প্রধান করে চার সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। প্রতিবেদন পেলেই ব্যবস্থা নেওয়া হবে। কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না।

সোমবার সকালে এক ছাত্রী প্রাইভেট পড়তে স্কুলের এক শিক্ষকের বাসায় যান। তখন ওই শিক্ষক তাকে শ্লীলতাহানির চেষ্টা করলে সে ধাক্কা দিয়ে বেরিয়ে আসে। পরে ছাত্রীর বাবা নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করেন। তারপর বিকালে পুলিশ ওই শিক্ষককে গ্রেপ্তার করে।

পুলিশ জানিয়েছে, ইংরেজির শিক্ষক শাকিল আরাফাত (৩৫) ঝিনাইদহের কালিগঞ্জ উপজেলার ফরাশপুর গ্রামের বাসিন্দা।

বিক্ষোভে স্কুলের এক ছাত্রী বলে, “একজন মামলা করেছে, কিন্তু অনেকের সঙ্গেই শিক্ষক শাকিল একই আচরণ করেছেন। আমরা তার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাই। এমন শাস্তি চাই, তিনি যেন আর শিক্ষকতা করতে না পারেন।”

[প্রতিবেদনটি প্রথম প্রকাশিত হয়েছিল ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২৩ তারিখে: ফেইসবুক লিংক]