স্বামীকে নামিয়ে বাসে নারীকে ‘ধর্ষণ’: গ্রেপ্তার ৫

পুলিশ জানায়, গ্রেপ্তারদের কাছ থেকে ওই নারীর মোবাইল ফোন ও মালপত্র উদ্ধার করা হয়েছে।

গাজীপুর প্রতিনিধিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 6 August 2022, 07:09 PM
Updated : 6 August 2022, 07:09 PM

স্বামীকে ভয়ভীতি দেখিয়ে নামিয়ে দিয়ে গাজীপুরে একটি বাসে নারীকে ধর্ষণের ঘটনায় পাঁচজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

গাজীপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. ছানোয়ার হোসেন জানান, শনিবার সকালে ভুক্তভোগী ওই নারীর স্বামীর দায়ের করা মামলায় রাতে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়।

গ্রেপ্তাররা হলেন- মো. রাকিব মোল্লা (২৩), সুমন খান (২০), মো. সজিব (২৩), মো. সুমন হাসান (২২) ও মো. শাহিন মিয়া (১৯)। তাদের বিস্তারিত পরিচয় তাৎক্ষণিকভাবে জানাতে পারেনি পুলিশ।

স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য ভুক্তভোগী নারীকে গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক মঞ্জুর মোর্শেদ জানান, ওই নারী গাইনী বিভাগে ভর্তি আছেন। রোববার তার স্বাস্থ্য পরীক্ষা করার কথা রয়েছে।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ছানোয়ার মামলার বরাতে বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে জানান, শুক্রবার রাত ৩টার দিকে নওগাঁ থেকে স্বামীর সঙ্গে গাজীপুর শহরের ভোগড়া বাইপাস এলাকায় আসেন ওই নারী। সেখান থেকে ময়মনসিংহের ভালুকার স্কয়ার মাস্টারবাড়ি এলাকায় বাড়ি যাওয়ায় জন্য বাসের জন্য অপেক্ষা করছিলেন ওই দম্পতি।

এক পর্যায়ে রাত ৩টা ১০ মিনিটের দিকে তাকওয়া পরিবহনের একটি বাসে উঠে গন্তব্যে রওনা দেন তারা। এ সময় বাসে ১০/১২ জন যাত্রী থাকলেও কিছু সময় পর ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের বিভিন্ন স্থানে কয়েকজন যাত্রী নেমে যান। পরে রাত ৩টা ৪০মিনিটে বাসটি মাওনা চৌরাস্তা ফ্লাইওভার পেরিয়ে কিছুদূর আগে গেলে চলন্ত বাসে ২/৩ জন লোক হঠাৎ ওই নারীর স্বামীকে মারধর করতে শুরু করে। এ সময় ওই নারী তাদের হাত দিয়ে ঠেকানোর চেষ্টা করে।

এ সময় ওই ব্যক্তিরা ওই নারীর মুখ চেপে ধরে রাখে। পরে তার স্বামীকে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের এমসি বাজার এলাকায় চলন্ত বাস থেকে ফেলে দিয়ে ওই নারীসহ বাস নিয়ে ঢাকার দিকে চলে যায় বলে জানান এ পুলিশ কর্মকর্তা।

তিনি বলেন, ওই নারীর স্বামী বাস থেকে পড়ে আঘাত পান। তিনি তখন স্কয়ার মাস্টারবাড়ি এলাকার বোনের বাসায় চলে যায়। শনিবার সকালে অপরিচিত একটি মোবাইল নম্বর থেকে ফোন করে ওই নারী তার স্বামীকে জয়দেবপুর থানায় আছেন বলে জানান। পরে তিনি থানায় গিয়ে বিস্তারিত ঘটনা শোনেন।

স্বামীকে গাড়ি থেকে ফেলে দেওয়ার পর বাসে থাকা ৪/৫ জন ব্যক্তি ওই নারীর চোখ বেঁধে, মুখ চেপে ধরে পালাক্রমে ধর্ষণ করে। এ সময় তার সঙ্গে থাকা একটি মোবাইল ফোন, নগদ ১০ হাজার ৫’শ টাকাসহ অন্যান্য মালামাল নিয়ে চলে যায় বলে মামলায় উল্লেখ করা হয়েছে।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ছানোয়ার বলেন, মামলার পর জেলার বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে পাঁচজনকে গ্রেপ্তার ও বাসটি জব্দ এবং লুট হওয়া মালামাল উদ্ধার করেন তারা।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক