মুরাদনগরে ২ যুবককে পিটিয়ে হত্যা: তিন দিনেও মামলা হয়নি, আটকও নেই

নিহতদের পরিবার যদি মামলা না করে তাহলে পুলিশ বাদী হয়ে হত্যা মামলা করবে বলে জানান ওসি।

কুমিল্লা প্রতিনিধিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 15 Jan 2023, 10:35 AM
Updated : 15 Jan 2023, 10:35 AM

কুমিল্লার মুরাদনগরে উপজেলায় ডাকাত দলের সদস্য সন্দেহে দুই যুবককে পিটিয়ে হত্যার ঘটনার তিনদিনেও থানায় কোনো মামলা হয়নি। এ ঘটনায় রোববার দুপুর পর্যন্ত কাউকে আটকও করেনি পুলিশ।

তবে উপজেলার দারোরা ইউনিয়নের যে পালাসুতা গ্রামে নিহত দুই যুবকসহ তিনজনকে গণপিটুনি দেওয়া হয়েছিলো- সে গ্রামের প্রতি ঘরেই এখন গ্রেপ্তার আতঙ্ক; গ্রামের বেশিরভাগ পুরুষই এখন ঘরছাড়া বলে জানা গেছে।

এদিকে, ওই যুবকদের পিটিয়ে হত্যার পর এলাকাবাসী দাবি করেছিল- নিহতদের বিরুদ্ধে একাধিক চুরি-ডাকাতির মামলা রয়েছে।

কিন্তু মুরাদনগর থানার ওসি কামরুজ্জামান তালুকদার বলেন, “ঘটনার পর থেকে এলাকার মানুষ তাদের বিরুদ্ধে চুরি-ডাকাতির মামলা থাকার কথা বললেও আমরা এখনো সেটি নিশ্চিত হতে পারিনি। আমরা বিষয়টি ভালোভাবে খতিয়ে দেখছি। এ ছাড়া ঘটনার দিন হতাহতরা চুরি বা ডাকাতির চেষ্টা করেছেন- এমন কোনো প্রমাণও আমরা এখনো পাইনি।”

ওসি কামরুজ্জামান আরো বলেন, “আতঙ্কে পুরুষরা কেন গ্রাম ছাড়ছে- এ বিষয়ে আমি জানি না। কারণ পুলিশ এখনো কাউকে গ্রেপ্তার বা আটক করতে অভিযান পরিচালনা করেনি। আমরা বিষয়টি ভালোভাবে পর্যবেক্ষণ করছি। শিগগিরই প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।”

শনিবার কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ময়নাতদন্ত শেষে নিহতদের মরদেহ পরিবারের সদস্যদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

এ ঘটনায় থানায় এখনো মামলা হয়নি। নিহতদের পরিবার যদি মামলা না করে তাহলে পুলিশ বাদী হয়ে হত্যা মামলা করবে বলে জানান ওসি।

কিছুদিন ধরে মুরাদনগর উপজেলার পালাসুতা ও কাজিয়াতল গ্রামে চুরি-ডাকাতি বেড়ে যাওয়ায় এলাকাবাসী ক্ষুব্ধ ছিলেন। এর মধ্যেই গত ১২ জানুয়ারি রাতে হঠাৎ খবর আসে গ্রামে ডাকাত ঢুকেছে।

তখন স্থানীয় মসজিদ ও মসজিদের পাশে চলমান মাহফিলের মাইক থেকেও গ্রামে ডাকাত ঢুকেছে বলে ঘোষণা দেওয়া হয়। এ সময় গ্রামের লোকজন লাঠিসোঁটা নিয়ে সড়কে অবস্থান করেন।

রাত সাড়ে ১১টার দিকে পালাসুতা গ্রামের নায়েব আলী ওরফে নাবু মিয়ার ঘরে তার মেয়ের জামাইসহ তিন যুবককে দেখে গ্রামবাসীর ডাকাত দলের সদস্য বলে সন্দেহ হয়। পরে ‘ডাকাত, ডাকাত’ বলে তাদেরকে গণপিটুনি দেওয়া হয়।

খবর পেয়ে রাত ১টার দিকে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে ওই তিন যুবককে উদ্ধার করে কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠায়। রাত দুইটার দিকে দু’জনকে মৃত ঘোষণা করে চিকিৎসক।

নিহতরা হলেন- দারোরা ইউনিয়নের কাজিয়াতল গ্রামের আব্দুস সালামের ছেলে ও নাবু মিয়ার জামাই নুরু মিয়া (২৮) ও একই ইউনিয়নের পালাসুতা গ্রামের মৃত গিয়াস উদ্দিনের ছেলে ইসমাইল হোসেন (২৭)।

এ ঘটনায় গুরুতর আহত শাহজাহান মিয়া কুমিল্লা সদর দক্ষিণ উপজেলার বাগমারা গ্রামের সেলিম মিয়ার ছেলে। তিনি আশঙ্কাজনক অবস্থায় কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পুলিশি পাহারায় চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

আরও পড়ুন

Also Read: কুমিল্লায় ‘ডাকাত’ সন্দেহে ২ জনকে পিটিয়ে হত্যা

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক