মেয়েদের ফুটবলে সাফ চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশ, পাহাড়ে বাঁধভাঙা উচ্ছ্বাস

খাগড়াছড়ির তিন ফুটবলকন্যা ও সহকারী কোচের জন্য এক লাখ টাকা করে পুরস্কার ঘোষণা করেছে জেলা প্রশাসন।

খাগড়াছড়ি প্রতিনিধিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 20 Sept 2022, 01:28 PM
Updated : 20 Sept 2022, 01:28 PM

প্রথমবারের মতো মেয়েদের সাফ ফুটবল চ্যাম্পিয়নশিপ জিতেছে বাংলাদেশ। পুরো দেশের পাশাপাশি উচ্ছ্বাসটা একটু বেশি ধরা দিয়েছে পার্বত্য জনপদ খাগড়াছড়িতে। চ্যাম্পিয়ন এই দলের তিন ফুটবলকন্যা ও এক সহকারী কোচ এ জেলারই মেয়ে।

সোমবার কাঠমান্ডুতে ফাইনালে স্বাগতিক নেপালকে ৩-১ গোলে হারানো লাল-সবুজের এই দলে খেলোয়াড় হিসেবে আছেন খাগড়াছড়ির সাতভাইয়ার পাড়ার যমজ বোন আনাই মগিনী ও আনুচিং মগিনী, লক্ষ্মীছড়ির বাসিন্দা মণিকা চাকমা এবং কোচ হিসেবে আছেন খাগড়াছড়ি সদরের আপার পেরাছড়ার বাসিন্দা তৃষ্ণা চাকমা।

হত-দরিদ্র পরিবারে জন্ম নেওয়ায় ছোটবেলা থেকে তাদের কেটেছে অভাব আর অনটনে। তবে তাদের কল্যাণেই পরিবারগুলো এখন আলোকিত। অভাব দূর হয়ে ফুটেছে সচ্ছলতার হাসি। সে সঙ্গে দেশের মুখও উজ্জ্বল করছেন তারা।

আনাই ও আনুচিংয়ের বাবা বলেন, “আমার দুই মেয়ে খেলেছে। বাংলাদেশের বিজয়ে আমাদের গ্রামে মিষ্টি বিতরণ করেছি। পরিবারের পাশাপাশি এলাকাবাসীও বেশ উচ্ছ্বাসিত। আমরা খুব খুশি।”

মণিকা, আনাইদের কোচ ক্যাহ্লাচাই মারমা বলেন, “আমরা খুবই আনন্দিত এবং গর্বিত। দেশের এত বড় অর্জনে খাগড়াছড়ির মেয়েরা বড় অবদান রেখেছে।”

খাগড়াছড়ির জেলা প্রশাসক প্রতাপ চন্দ্র বিশ্বাস বলেন, “বাংলাদেশ নারী ফুটবল দলকে অভিনন্দন জানাই। খাগড়াছড়ি জেলার তিনজন খেলোয়াড় এই দলে প্রতিনিধিত্ব করেছে, এতে আমরা গর্বিত।”

ইতোমধ্যে খাগড়াছড়ির তিন ফুটবলকন্যা ও সহকারী কোচের জন্য এক লাখ টাকা করে পুরস্কার ঘোষণা করেছে জেলা প্রশাসন। এর আগেও আনাই, আনুচিং ও মনিকাকে দুই লাখ টাকা করে আর্থিক সহযোগিতা দিয়েছিল জেলা প্রশাসন।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক