কেন্দ্রে ভোটার আনতে কাউন্সিলরদের দুয়ারে মোমেন

“ভোটারদের নির্বাচনমুখী করতে কাউন্সিলদের বিকল্প নেই”, বলেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

সিলেট প্রতিনিধিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 2 Dec 2023, 11:58 AM
Updated : 2 Dec 2023, 11:58 AM

বিএনপি ও সমমনাদের বর্জনের মুখে জাতীয় সংসদের প্রতিনিধি বাছাইয়ে যে নির্বাচন হতে যাচ্ছে, সেখানে কেন্দ্রে ভোটার উপস্থিতি নিশ্চিত করতে ওয়ার্ড কাউন্সিলরদের সহযোগিতা চেয়েছেন সিলেট-১ (সদর) আসনের সংসদ সদস্য পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন।

শনিবার নগরীর ধোপাদিঘীরপাড়ের হাফিজ কমপ্লেক্সে সিলেট সিটি করপোরেশেনের মেয়র ও কাউন্সিলদের সঙ্গে মতবিনিময়কালে তিনি এ কথা বলেন।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, “সিলেট মহানগরের ভোটারের কাছে ওয়ার্ড কাউন্সিলাররা একজন গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি। তাদের সুখে-দুখে আপনারা সবসময় পাশে থাকে। সেই সঙ্গে সরকারের মাঠ পর্যায়ের সেবা ও উন্নয়ন কর্মকাণ্ড কাউন্সিলদের মাধ্যমেই বাস্তবায়িত হয়। তাই ভোটারদের নির্বাচনমুখী করতে কাউন্সিলদের বিকল্প নেই।”

বিএনপি না থাকলেও এই নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক মিসবাহ উদ্দিন সিরাজের মনোনয়নপত্র জমার ঘটনায় আছে প্রতিদ্বন্দ্বিতার আভাস।

অন্য প্রার্থীরা হলেন সাংস্কৃতিক মুক্তিজোটের আব্দুল বাসিত, ন্যাশনাল পিপলস পার্টির ইউসুফ আহমদ, জাকের পার্টির মো. আব্দুল হান্নান, ইসলামী ঐক্যজোটর ফয়জুল হক ও বাংলাদেশ কংগ্রেসের মোহাম্মদ সোহেল আহমদ চৌধুরী।

এসব মনোনয়নপত্র যাচাই বাছাই, আপিল ও প্রত্যাহারের সময় শেষে ১৭ ডিসেম্বর জানা যাবে কারা কারা লড়াই করবেন আসনটিতে।

প্রতীক বরাদ্দ হবে ১৮ ডিসেম্বর। সেদিন থেকে চলবে প্রচার। আর ৭ জানুয়ারি ভোটের তারিখ রেখেছে নির্বাচন কমিশন।

সম্ভাব্য প্রতিদ্বন্দ্বীদের বিষয়ে কিছু বলেননি নৌকা পেতে যাওয়া মোমেন। তিনি বলেন, “সিলেট-১ একটি মর্যাদাপূর্ণ আসন। তাই এ আসনে জনগণের ভোটাধিকার নিশ্চিত করার মধ্য দিয়ে আওয়ামী লীগকে বিজয়ী করতে হবে।”

আওয়ামী লীগ সরকারের আমলে সিলেটের উন্নয়নের চিত্রও তুলে ধরেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী্ বলেন, “গত ১০ বছর সিলেট সিটি করপোরেশনের মেয়র পদটি আওয়ামী লীগের ছিল না। কিন্তু উন্নয়ন বরাদ্দ বিন্দুমাত্র কম দেয়নি সরকার। কারণ জননেত্রী শেখ হাসিনার কাছে দেশ-জনগণই মুখ্য, অন্য কিছু নয়।”
সভায় সিটি মেয়র মেয়র আনোয়ারুজ্জামানের চৌধুরীর সভাপতিত্বে করপোরেশনের কাউন্সিলর ও সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলররা অংশ নেন।

কাউন্সিলরা নির্বাচনে বিজয় সুনিশ্চিত করতে তৃণমূল পর্যায়ে প্রচার-প্রচারণা ও ভোটারদেরকে নির্বাচনমুখী করার বিভিন্ন পরিকল্পনা ও সুপারিশ করেন। নির্বাচনে সব ধরনের সহযোগিতা করার অঙ্গিীকারও করেন তারা।

পররাষ্ট্রমন্ত্রীর স্ত্রী সেলিনা মোমেন ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন ৪ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর শেখ তোফায়েল আহমদ সেপুল, ৮ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর জগদীশ চন্দ্র দাশ, ৯ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মখলিছুর রহমান কামরান, ১১ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আব্দুর রকিব বাবলু, ১৩ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর শান্তুনু দত্ত সনতু, ১৫ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মো. ছয়ফুল আহমদ বাকের।

১৯ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর এস এম শওকত আমীন তৌহিদ, ২০ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আজাদুর রহমান আজাদ, ২৩ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মোস্তাক আহমদ, ২৬ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মো. তৌফিক বক্স, ৩১ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর নজমুল হোসেন, ৩২নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর রুহেল আহমেদ ও ৩৫ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর জাহাঙ্গীর আলমও এ সময় বক্তব্য রাখেন।

সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলরদের মধ্যে ছিলেন সালমা সুলতানা, নার্গিস সুলতানা, মোছা. হাজেরা বেগম, বাবলী আক্তার, ফাতেমা বেগম, নারগিস সুলতানা রুমি, রেবেকা বেগম, শাহানা বেগম শানু, রুহেনা খানম মুক্তা।