কর্মবিরতিতে পোস্ট গ্র্যাজুয়েট ও ইন্টার্ন চিকিৎসকরা

এ চিকিৎসকরা সরকারি ও স্বায়ত্তশাসিত বিভিন্ন হাসপাতালে জ্যেষ্ঠ চিকিৎসকদের পরামর্শ ও নির্দেশনায় অস্ত্রোপচারসহ সব ধরনের চিকিৎসা সেবা দেন।

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 24 March 2024, 02:36 PM
Updated : 24 March 2024, 02:36 PM

ট্রেইনি ও ইন্টার্ন চিকিৎসকদের ভাতা বাড়ানো, বকেয়া ভাতা পরিশোধসহ চার দাবিতে সারাদেশের বিভিন্ন হাসপাতালে কর্মবিরতি শুরু করেছেন পোস্ট গ্র্যাজুয়েট ও ইন্টার্ন চিকিৎসকরা।

পোস্ট গ্র্যাজুয়েট প্রাইভেট ট্রেইনি ডক্টরস অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি ডা. জাবির হোসেন জানান, তারা চার দফা দাবিতে শনিবার কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে মানববন্ধন করেন। এরপর স্বাস্থ্যমন্ত্রী সামন্ত লাল সেনের সঙ্গে দেখা করলে তিনি এক দিন সময় চেয়েছিলেন। রোববার আন্দোলনকারীদের কার্যালয়ে ডেকে নেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী।

ডা. জাবির বলেন, “মাননীয় মন্ত্রী আমাদের বলেছেন, আমাদের দাবিগুলো উপরমহলে তুলে ধরবেন। বিষয়টি নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলে সমাধানের চেষ্টা করবেন।

“তবে তিনি এর সুনির্দিষ্ট কোনো তারিখ বা আমাদের ভাতা কত বাড়ানো হবে সেই সংখ্যাটি বলেননি। পরে আমরা সবাই মিলে সিদ্ধান্ত নিয়েছি, আজ থেকে কোনো হাসপাতালে ডিউটি করব না।”

পরে রোববার রাতে স্বাস্থ্যমন্ত্রী ডা. সামন্ত লাল সেন বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, পোস্ট গ্র্যাজুয়েট ট্রেইনি চিকিৎসকদের দাবি যৌক্তিক। তিনি তাদের সঙ্গে একমত। তবে বিষয়টি সমাধানে একটু সময় দিতে হবে।

"তারা আমার কাছে এসেছিল। বিষয়টি নিয়ে কথা হচ্ছে এক বছরের বেশি সময় ধরে। আমি দায়িত্ব নিয়েছি তিন মাস, আগের বিষয়টি আমি ঠিক জানি না। তার পরও আমি এরইমধ্যে বিষয়টি নিয়ে কাজ শুরু করেছি। সমস্যাটি সমাধানে আমি আন্তরিক, তবে আমাকে একটু সময় দিতে হবে।"

প্রায় আট হাজার পোস্ট গ্র্যাজুয়েট ট্রেইনি এবং চার হাজার ইন্টার্নি চিকিৎসক মিলিয়ে দেশে এ ধরনের চিকিৎসকের সংখ্যা প্রায় ১২ হাজার। এই চিকিৎসকরা সরকারি ও স্বায়ত্তশাসিত বিভিন্ন হাসপাতালে জ্যেষ্ঠ চিকিৎসকদের পরামর্শ ও নির্দেশনায় অস্ত্রোপচারসহ সব ধরনের চিকিৎসা সেবা দেন।

ইন্টার্ন চিকিৎসক পরিষদের সদস্য আজিজুর রহমান বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “ইন্টার্ন চিকিৎসকরাও দাবি আদায়ে আজ থেকে কর্মবিরতি পালন করছি।"

ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজের ইন্টার্ন চিকিৎসক আবু রায়হান বলেন, “আমরা পোস্ট গ্র্যাজুয়েট ট্রেইনি চিকিৎসকদের সঙ্গে মিলে আন্দোলন করছি। আমাদেরও দাবি একই, ওই দাবিতে কর্মবিরতি পালন করছি।”

কয়েকটি দাবিতে বেশ কিছুদিন ধরে নানা কর্মসূচি পালন করে আসছেন পোস্ট গ্র্যাজুয়েট ট্রেইনি এবং ইন্টার্ন চিকিৎসকরা।

শনিবার শহীদ মিনারের মানববন্ধনে তারা চার দফা দাবি তুলে ধরেন, যার মধ্যে আছে ট্রেইনি চিকিৎসকদের মাসিক ভাতা ৫০ হাজার এবং ইন্টার্ন চিকিৎসকদের মাসিক ভাতা ৩০ হাজার টাকা করতে হবে। এফসিপিএস, রেসিডেন্ট, ননরেসিডেন্ট চিকিৎসকদের বকেয়া ভাতা পরিশোধ করতে হবে।

দাবির মধ্যে রয়েছে, বিএসএসএমইউর অধীনে ১২টি প্রাইভেট প্রতিষ্ঠানের রেসিডেন্ট এবং ননরেসিডেন্ট চিকিৎসকদের ভাতা আবার চালু করতে হবে এবং চিকিৎসক সুরক্ষা আইন সংসদে পাস ও বাস্তবায়ন করতে হবে।

ডা. জাবির হোসেন শনিবার বলেছিলেন, “গত ৯ মাস ধরে ট্রেইনি ডাক্তাররা তাদের ভাতা থেকে বঞ্চিত। প্রাইভেট ইনস্টিটিউটের রেসিডেন্ট এবং ডিপ্লোমা ট্রেইনিদের ভাতা বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।

“আমাদের ভাতা আরেক দফা বাড়ানোর কথা ছিল জানুয়ারি মাস থেকে। কিন্তু আমাদের শুধু আশ্বাসের উপরেই রাখা হচ্ছে। বর্তমানে আমাদের পরিবারের ভরণপোষণ অসম্ভব হয়ে দাঁড়িয়েছে।”

পোস্ট গ্র্যাজুয়েট ট্রেইনিদের ভাতা ৫০ হাজার টাকা করার দাবিতে দীর্ঘদিন ধরে আন্দোলন করে আসছেন চিকিৎসকরা। পরে ২০ হাজার থেকে বাড়িয়ে ২৫ হাজার টাকা করা হয়। ইন্টার্নি চিকিৎসকরা ১৫ হাজার টাকা ভাতা পান, তারা সেটি ৩০ হাজার টাকা করার দাবি জানিয়ে আসছেন।

Also Read: কর্মবিরতিতে যাওয়ার হুমকি পোস্ট গ্র্যাজুয়েট চিকিৎসকদের