সাধারণ রঙ্গালয়ের ১৫০ বছর, ঢাকা ও কলকাতায় উৎসব

১৮৭২ সালে সাধারণ রঙ্গালয়ে ‘নীল দর্পণ’ নাটকের প্রদর্শনীর মধ্য দিয়েই বাংলা থিয়েটার চর্চায় নতুন অধ্যায় সূচিত হয়েছিল।

নিজস্ব প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 5 Dec 2022, 01:32 PM
Updated : 5 Dec 2022, 01:32 PM

সাধারণ রঙ্গালয়ের ১৫০তম বার্ষিকী উদযাপনে উৎসবের আয়োজন হচ্ছে কলকাতা ও ঢাকায়।

বঙ্গ নাট্যসংহতির আয়োজনে বুধবার কলকাতায় এ নাট্যোৎসবের সূচনা হবে বাংলাদেশের নাট্যকার মামুনুর রশীদের নির্দেশনায় ‘নীল দর্পণ’ মঞ্চায়নের মধ্য দিয়ে। নাটকটি প্রযোজনা করেছে রেপাটরি নাট্যদল ‘বাঙলা থিয়েটার’।

১৮৭২ সালে সাধারণ রঙ্গালয়ে ‘নীল দর্পণ’ নাটকের প্রদর্শনীর মধ্য দিয়েই বাংলা থিয়েটার চর্চায় নতুন অধ্যায় সূচিত হয়েছিল। এর আগে নাটক মঞ্চস্থ হয়েছে কোনো মন্দিরে কিংবা জমিদার বাড়ির উঠোনে। সাধারণ দর্শকের তাতে অংশগ্রহণের সুযোগ ছিল না।

সাধারণ রঙ্গালয়ে ‘লীল দর্পণ’ মঞ্চস্থ হওয়ার মধ্য দিয়ে সাধারণ দর্শকের অংশগ্রহণও সূচিত হয় এবং রঙ্গালয়ে সাধারণের প্রবেশাধিকার তৈরি হয়।

কলকাতায় নাট্যোৎসবে অংশগ্রহণের জন্য বাংলাদেশের নাট্যশিল্পীরা সোমবার সকালে কলকাতার উদ্দেশ্যে রওনা করেছেন।

মামুনুর রশীদ গ্লিটজকে বলেন, “আমাদের নাট্যশিল্পীদের জন্য এটি আনন্দের দিন। কারণ ১৫০ বছর আগে ‘নীল দর্পণ’ মঞ্চায়নের মধ্য দিয়েই সাধারণ রঙ্গালয়ে জনসাধারণের প্রবেশ উন্মুক্ত হয়েছিল। ১৮৭২ সালের ৭ ডিসেম্বর নীল দর্পণ মঞ্চায়নের মধ্য দিয়ে সাধারণের জন্য নাট্য মঞ্চায়নের সূচনা হয়।

“তাই দিনটিকে উদযাপন করতে ভারত ও বাংলাদেশে নানা আয়োজন করা হয়েছে। কলকাতায় নাট্যোৎসবের সূচনা হবে আমার নির্দেশনায় ‘নীল দর্পণ’ মঞ্চায়নের মধ্য দিয়ে। এটি ভালো লাগার মতো ঘটনা।”

সাধারণ রঙ্গালয়ের স্বার্ধশত বার্ষিকী উদযাপনে দুটি উৎসব হবে জানিয়ে মামুনুর রশীদ বলেন, কলকাতায় উৎসব হবে ৭ ডিসেম্বর, আর ঢাকায় ১৭ ডিসেম্বর। দুই দেশের নাট্যশিল্পীরা এ উৎসবে অংশ নিচ্ছেন।

দীনবন্ধু মিত্র রচিত ‘নীল দর্পণ নাটকটিতে বাংলাদেশের বিভিন্ন নাট্যদলের শিল্পীরা অভিনয় করছেন। তাদের মধ্যে রয়েছেন- মামুনুর রশীদ, ফয়েজ জহির, শুভাশিস ভৌমিক, আহাম্মেদ গিয়াস, শামীমা শওকত লাভলী, শাহনাজ খুশি, সুষমা সরকার, লায়লা বিলকিস ছবি, সঙ্গীতা চৌধুরী, হাশিম মাসুদ, সাঈদ সুমন, খালিদ হাসান রুমি, সুজাত শিমুল, রিয়া চৌধুরী, তাসমী চৌধুরী, শাহরান, তাজউদ্দীন তাজু, রুহুল আমিন ও উচ্ছ্বাস ঘোষ।

আলোক পরিকল্পনা করেছেন ঠাণ্ডু রায়হান, মঞ্চ পরিকল্পনা করেছে ফয়েজ জহির, সঙ্গীত পরিকল্পনা করেছেন পরিমল মজুমদার, মঞ্চ ব্যবস্থাপক সুজাত শিমুল, সহকারী নির্দেশক শামীমা শওকত লাভলী এবং পোশাক পরিকল্পনা করেছেন সামিউন জাহান দোলা।

এদিকে নাট্যসংগঠন 'ঢাকা থিয়েটার' এবং 'বাংলাদেশ গ্রাম থিয়েটা যৌথভাবে দিনটি উদযাপনে পৃথক অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে।

রাজধানীর নাটক সরণির মহিলা সমিতির আইভি রহমান মিলনায়তনে বুধবার সন্ধ্যা ৬টায় ‘ন্যাশনাল থিয়েটার: ইতিহাস পুনর্ভাষ’ শীর্ষক আলোচনা অনুষ্ঠান হবে।

সেখানে মুখ্য আলোচক থাকবেন অধ্যাপক রতন সিদ্দিকী। এছাড়া রামেন্দু মজুমদার, লুৎফর রহমান, সাধনা আহমেদ আলোচনায় অংশ নেবেন।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করবেন নাসির উদ্দীন ইউসুফ। পাঠ-অভিনয় ও আলোচনায় অংশ নেবেন শিমূল ইউসুফ। এছাড়া অনুষ্ঠানে রতন সিদ্দিকী রচিত ‘ন্যাশনাল থিয়েটার’ গ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন করা হবে।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক