চন্দন সিনহার কণ্ঠে হৃদিতার গান ‘ঠিকানা’

প্রকাশ হল প্রথম গান, ‘হৃদিতা’ সিনেমা হলে মুক্তি পাবে আগামী ৭ অক্টোবর

গ্লিটজ প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 27 Sept 2022, 05:25 AM
Updated : 27 Sept 2022, 05:25 AM

কেমন সিনেমা হবে হৃদিতা?

নায়িকা পূজা চেরি বললেন, এটা নিরিবিলি পরিবেশে দেখার মত একটি সিনেমা।

আর যার উপন্যাস অবলম্বনে হৃদিতা সিনেমা হল, সেই আনিসুল হকের ভাষায়, এটা ‘গালি, গুলি ও ধূমপানমুক্ত’ একটি সিনেমা।

এ সিনেমায় কেন্দ্রীয় চরিত্রে অভিনয় করেছেন পূজা চেরি ও এবিএম সুমন। সরকারি অনুদানে হৃদিতা নির্মাণ করেছেন ইস্পাহানি আরিফ জাহান।

সোমবার এ সিনেমার গান প্রকাশ উপলক্ষে সংবাদ সম্মেলনে এসেছিলেন তারা। সেখানে পূজা চেরি বললেন, “যারা এক নিঃশ্বাসে সিনেমা দেখতে পছন্দ করে তাদের জন্য হৃদিতা। নিরিবিলি পরিবেশে বসে দেখার মত সিনেমা। যারা নাচগানের সিনেমা দেখতে পছন্দ করে তাদের জন্য হৃদিতা না।”

আর কথা সাহিত্যিক আনিসুল হক বললেন, “হৃদিতা এমন একটি সিনেমা যে ছবিতে কোনো গালি নেই। কোনো গুলির শব্দ নেই, কোনো ধূমপানের ঘটনা নেই।”

কবির বকুলের লেখা, ইমরান মাহমুদুলের সুর করা 'ঠিকানা' গানটি অনুষ্ঠানে প্রকাশ করা হয়। এই গানে কণ্ঠ দিয়েছেন কণ্ঠশিল্পী চন্দন সিনহা।

সেই গানের গল্প শুনিয়ে পূজা চেরি অনুষ্ঠানে বললেন, “গানটা শুটিংয়ের আগে আমি বারবার শুনছিলাম। খুব ভালো লেগে গিয়েছিল। আমি ভাবছিলাম কোথায় শুটিং করা যায়। পরিচালক যখন জানালেন, টাঙ্গুয়ার হাওরে শুটিং হবে, আমি ঘাবড়ে গিয়েছিলাম। কারণ এর আগে আমি টাঙ্গুয়ার হাওরে শুটিং করতে গিয়েছিলাম। এত কষ্ট হয়েছিল যে, আমার মনই উঠে গিয়েছিল। ভেবেছিলাম ওইখানে আর শুটিং করতে যাব না।

“যখন মনে হয়েছিল এত সুন্দর একটা গান, সুন্দর লোকেশনে শুটিংয়ের পরিকল্পনা হচ্ছে, তখন মনে হল, যত কষ্টই হয়, সহ্য করব, গানটা সুন্দর হোক।”

পূজা বলেন, “যখন সুন্দরবনে গেলাম, খুব গরম। দরদর করে ঘামছি। মেকআপ গলে গলে পড়ছে। তখন ভেবেছিলাম, আসলে কি ঠিক করেছি? এখন গানটা দেখে মনে হচ্ছে যে কষ্টটা করেছি তা সার্থক হয়েছে।

“যখন কাজ দেখে চোখের শান্তি লাগে, তখন সবকিছু ভুলে যাই। কী কষ্ট করেছি তার কিছুই মনে থাকে না।”

হলে গিয়ে দর্শকদের সিনেমাটি দেখার আহ্বান জানিয়ে এই নায়িকা বলেন, “যখন ডাবিং করেছি, আমার কাছে খুব ভালো লেগেছে। সব মিলিয়ে দর্শকের কাছেও ভালো লাগবে আশা করি।”

Also Read: সমালোচনার মুখে হৃদিতার ট্রেইলারে কাঁচি

শুটিংয়ের অভিজ্ঞতা তুলে ধরেন চিত্রনায়ক এবিএম সুমনও। তিনি বলেন, “সিনেমার বড় একটা দৃশ্য আছে। দৃশ্যটা ধারণ করতে আমাদের দুই ঘণ্টার মতো সময় লেগেছিল। পুরো দুই ঘণ্টা আমি আর পূজা কান্না করছিলাম।… গল্পটা খুবই হৃদয়ছোঁয়া। আমরা চেষ্টা করেছি।”

দর্শকদের উদ্দেশে সুমন বলেন, “এই সময়ে এসে আমরা যে সত্যিকার প্রেমটা খুঁজি সেই প্রেমটা পর্দায় পাবেন।”

সম্প্রতি মুক্তি পাওয়া সিনেমা ‘হাওয়া’ ও ‘পরাণ’-এর প্রসঙ্গ টেনে আনিসুল হক বলেন, “সিনেমার পরিবেশ ফিরছে। হাওয়ার পরিচালক বুঝতেও পারেনি যে সিনেমা হিট হবে। কিন্তু একটা গান হিট হয়ে দৃশ্যপটই পাল্টে গেছে। ‘হৃদিতা’ও দর্শকের ভালো লাগবে।”

২০১৯-২০ অর্থবছরে ৫৫ লাখ টাকা সরকারি অনুদান পায় সিনেমাটি। সম্প্রতি সমালোচনার মুখে একটি দৃশ্য বাদ দিয়ে নতুন করে প্রকাশ করা হয় ‘হৃদিতা’ সিনেমার ট্রেইলার। ‘হৃদিতা’ হলে আসছে আগামী ৭ অক্টোবর।

সিনেমার কলাকুশলী ছাড়াও বাংলাদেশ চলচ্চিত্র পরিচালক সমিতির সভাপতি নির্মাতা সোহানুর রহমান সোহান, বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির সাধারণ সম্পাদক নিপুন আক্তার, কণ্ঠশিল্পী কুমার বিশ্বজিৎ, ইমরান, চন্দন সিনহা, নির্মাতা মুশফিকুর রহমান গুলজার, জাজ মাল্টিমিডিয়ার প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা আলিমুল্লাহ খোকন, সাংবাদিক মুন্নি সাহা, জ. ই মামুন উপস্থিত ছিলেন অনুষ্ঠানে।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক