এপাশে জিনাত, ওপাশে উত্তম, মাঝে সুচিত্রার আসন ফাঁকা

সাদাকালো ছবিটি দিয়ে জিনাত কেবল একাই পেছনের দিনগুলোয় ফিরে যাননি, এই যাত্রায় সঙ্গী করেছেন বাংলা সিনেমাপ্রেমীদের অনেককে।

গ্লিটজ ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 30 Jan 2024, 07:59 AM
Updated : 30 Jan 2024, 07:59 AM

সাদাকালো ও রঙিন দুটি ছবি পোস্ট করে স্মৃতিতে ডুব দিয়েছেন সত্তর দশকের হিন্দি সিনেমার সাড়া জাগানো অভিনেত্রী জিনাত আমান।

সাদাকালো ছবিটি দিয়ে জিনাত কেবল একাই পেছনের দিনগুলোয় ফিরে যাননি, এই যাত্রায় সঙ্গী করেছেন বাংলা সিনেমাপ্রেমীদের অনেককে।

কী আছে জিনাতের ছবিতে?

সাদাকালো ছবিটিতে দেখা গেছে, কোনো এক অনুষ্ঠানে দর্শক আসনের সামনের সারিতে বসে আছেন জিনাত আমান এবং তার পাশে ভারতীয় বাংলা সিনেমার মহানায়ক উত্তম কুমার। কিন্তু দুজনের মাঝের আসন ফাঁকা। সেই আসনে মহানায়িকা সুচিত্রা সেনের নাম লেখা।

সাদাকালো এই ছবির সময়কাল ১৯৮৩ সাল। ওই সময়েরও পাঁচ বছর আগে থেকে সুচিত্রা চলচ্চিত্র থেকে নিজেকে সরিয়ে নিয়ে যান অন্তরালের জীবনে।

সে সময় একের পর এক সিনেমার প্রস্তাব ফিরিয়ে দিয়েছেন সুচিত্রা, বাড়ি থেকে বের হননি, এমনকি তার বাড়িতেও বাইরের কারোর সঙ্গে দেখা করতেন না। মহানায়িকা সবকিছু থেকে গুটিয়ে নেওয়ার পরও চলচ্চিত্র সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন অনুষ্ঠানে তার আমন্ত্রণ থাকত।

জিনাত বলেছেন, কলকাতার ওই অনুষ্ঠানে তিনি গিয়েছিলেন মুম্বাই থেকে।

দ্বিতীয় ছবিটি গত বছরে তোলা। মুম্বাইয়ে ‘ডন’ সিনেমার প্রদর্শনীতে গিয়েছিলেন জিনাত আমান।

ইনস্টাগ্রামে ছবি দুটি পোস্ট করে জিনাত বলেছেন, “৪০ বছর আগে-পরের আমি, প্রথম ছবিতে কিছুটা চঞ্চল, দ্বিতীয়টিতে সাবধানী, হিসেবি একজন মানুষ।“

সাদাকালো ছবিতে কমেন্ট এসেছে বেশি। সিনেমাপ্রেমীরা সুচিত্রা স্মরণে উদ্বেল হয়েছেন।

পোস্টে জিনাত লিখেছেন, সিনেমায় অভিনয় করার চেয়ে দর্শকাসনে বসে সিনেমা দেখতেই বেশি আনন্দ পান তিনি।

নিজের স্কুল জীবনের কথা তুলে ধরে বলেন,  “পঞ্চগনির বোর্ডিং স্কুলে রোববার আমাদের সিনেমা দেখার দিন ছিল। জিমন্যাশিয়ামের ঘরে বান্ধবীদের সঙ্গে ছবি দেখতে গিয়ে আমরা অন্য জগতে প্রবেশ করতাম। “

অভিনেত্রী জীবনে হলে গিয়ে সিনেমা দেখার অভিজ্ঞতার কথাও পোস্টে লিখেছেন জিনাত।

“মনে আছে, শুরুর দিকে নিজের সিনেমার টিকেট কেটে বোরকা পরে প্রেক্ষাগৃহে প্রবেশ করতাম, যাতে আমাকে কেউ চিনতে না পারেন। “

এখনকার হলগুলো বেশি ঝাঁ চকচকে, সে কথা তুলে ধরে জিনাত আক্ষেপ করে বলেন, “সিনেপ্লেক্সে গিয়ে আগের সেই আনন্দ পাই না, কেমন সব ফিকে হয়ে গেছে। কিন্তু পুরনো দিনের মানুষদের নিশ্চয় মনে আছে, তখন সিনেমা দেখতে যাওয়ার মধ্যে কতটা উত্তেজনা মিশে থাকত! “

হিন্দি সিনেমা ইন্ডাস্ট্রিতে ফ্যাশনে বয়সের ‘তোয়াক্কা না করা’ অভিনেত্রী জিনাত আমান অনেক বছর এই জগত থেকে দূরে থেকে ফের ফিরছেন ক্যামেরার সামনে।

নির্মাতা ফারাজ আরিফ আনসারির ‘বান টিক্কি’ সিনেমায় অভিনেত্রী শাবানা আজমী ও অভয় দেওলেরও সঙ্গে বিশেষ একটি চরিত্রে কাজ করছেন তিনি।

অভিভাবকদের সঙ্গে সন্তানের সম্পর্কের প্রেক্ষাপটে তৈরি হয়েছে সিনেমার গল্প।

‘মিস ইন্ডিয়া’ প্রতিযোগিতায় দ্বিতীয় সেরা হয়ে ‘মিস এশিয়া প্যাসিফিক ইন্টারন্যাশনালে’ মুকুট জয়ের পর সাড়া ফেলে দিয়েছিলেন জিনাত আমান। তারপর মডেলিং থেকে নেমেছিলেন সিনেমায়।

১৯৭১ সালে ‘হরে রাম হরে কৃষ্ণ’ সিনেমা দিয়ে অভিনয় জীবনের শুরু করে ‘ইয়াদোঁ কা বারাত’, ‘সত্যম শিবম সুন্দরম’, ‘ডন’, ‘কুরবানি’, ‘দোস্তানা’, ‘ধর্ম বীর’, ‘দ্য গ্রেট গ্যাম্বলার’ এর মত অনেক হিট সিনেমা এসেছে জিনাতের কাছ থেকে।

জিনাত সর্বশেষ ২০১৯ সালের আশুতোষ গোয়ারিকরের পরিচালনায় ‘পানিপথ’ সিনেমায় কাজ করেন। 

পুরনো খবর-

Also Read: সিনেমায় ফিরছেন জিনাত আমান, সঙ্গী শাবানা আজমী