বস্ত্রকল দুটি বিক্রি ফের আটকে গেল

রাষ্ট্রায়ত্ত দুটি বস্ত্রকল মাগুরা টেক্সটাইল মিলস ও রাঙ্গামাটি টেক্সটাইল মিলস বিক্রির প্রস্তাব ফেরতে এসেছে।

নিজস্ব প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 13 March 2013, 06:54 AM
Updated : 13 March 2013, 06:54 AM

বেসরকারি কমিশনের এই প্রস্তাব বুধবার অর্থনৈতিক বিষয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভাকমিটি ফেরত দিয়েছে বলে জানিয়েছেন মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের উপসচিব জয়নাল আবেদীন।

সচিবালয়ে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিতের সভাপতিত্বে এই বৈঠক হয়।

সম্পদ মূল্যের অর্ধেক দামে মাগুরা টেক্সটাইলমিলস লিমিটেড ও রাঙ্গামাটি টেক্সটাইল মিলস লিমিটেড বিক্রির প্রস্তাব দেয়বেসরকারি কমিশন।

দরপ্রস্তাব করা হয় প্রায় ৬০ কোটি টাকা। অথচ এ দুটিমিলের দায়দেনা হিসেবে সরকারকে পরিশোধ করতে হবে প্রায় ১৭৪ কোটি টাকা।

বেসরকারিকরণ কমিশনের কাছে বিক্রির তালিকায় থাকামনোয়ার জুট মিলসটি বিক্রির তালিকা থেকে প্রত্যাহার করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন জয়নালআবেদীন।

মিলটি পুনরায় বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয়ে ফেরত দেয়ারপ্রস্তাবে অনুমোদন দিয়েছে কমিটি।

এছাড়া চিত্তরঞ্জন কটন মিলসের জমিতে টেক্সটাইল পল্লীস্থাপনের কার্যক্রম বাংলাদেশ টেক্সটাইল মিলস করপোরেশনের ওপর ন্যস্ত করারপ্রস্তাবেও অনুমোদন দিয়েছে কমিটি।

বেসরকারিকরণ কমিশনেরচেয়ারম্যান মির্জা আবদুল জলিল আশা করছিলেন, মাগুরা ও রাঙ্গামাটি বস্ত্রকল বিক্রির প্রস্তাব অনুমোদনপাবে।

এর আগেও সর্বোচ্চদরদাতার কাছে মিল দুটি বিক্রির প্রস্তাব অনুমোদনের জন্য কমিটির কাছে পাঠানো হয়েছিল। গত বছরের ১১ সেপ্টেম্বর অনুষ্ঠিত কমিটিরবৈঠক থেকে প্রস্তাব দুটি ফিরিয়ে দেয়া হয়।

মন্ত্রিসভা কমিটিতেপাঠানো বেসরকারিকরণ কমিশনের প্রস্তাবে বলা হয়েছে, মাগুরা টেক্সটাইল মিলের দৃশ্যমাণ সম্পদের পরিমাণ ৫৯ কোটি ৭১লাখ ৭২ হাজার টাকা। এরমধ্যে ১৬ দশমিক ১৭ একর জমির মূল্যই ৪৭ কোটি টাকা। কারখানাটিতে ২৫ হাজার ৫৬টি টাকু রয়েছে। এর বার্ষিক উৎপাদন ক্ষমতা ১৬ লাখ কেজিসুতা।

মিলটি কেনার জন্যসর্বোচ্চ দরদাতা হিসেবে মেসার্স কবির এন্টারপ্রাইজ ২৮ কোটি ৫০ লাখ টাকা প্রস্তাবকরেছে। এরপরপ্রতিষ্ঠানটি আরো আড়াই কোটি টাকা বৃদ্ধি করে মোট ৩১ কোটি টাকার দরপ্রস্তাব করেছে।

অথচ বিক্রির পরওমিলটির দায়দেনা হিসেবে ১০৯ কোটি ২৯ লাখ টাকা পরিশোধ করতে হবে সরকারকেই।

অন্যদিকে, রাঙ্গামাটি টেক্সটাইল মিলের দৃশ্যমানসম্পদের মূল্য ৫৪ কোটি ৭৫ লাখ টাকা। এর ২৬ দশমিক ২৪ একর জমির মূল্য ধরা হয়েছে ২১ কোটি ৭৬ লাখ টাকা। কারখানাটিতে ১৮ হাজার ৫৭৬টি টাকু রয়েছে। এর বার্ষিক উৎপাদন ক্ষমতা ১৪ লাখ  ৭৪ হাজার কেজি সুতা।

মিলটি কেনার জন্যসাত্তার এন্টারপ্রাইজ ২৮ কোটি ১০ লাখ টাকা দরপ্রস্তাব করেছে। এরপর এক কোটি টাকা দর বাড়িয়ে তা ২৯ কোটি১০ লাখ করা হয়েছে। এমিলটিও বিক্রির পর সরকারকে দায়দেনা হিসেবে পরিশোধ করতে হবে ৬৪ কোটি ৬০ লাখ টাকা।

মাগুরা টেক্সটাইলমিলস ২০০৮ সালের মে মাস থেকে এবং রাঙ্গামাটি টেক্সটাইল মিলস ২০০৯ সালের এপ্রিল মাস থেকে বন্ধরয়েছে।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক