ফুলের উৎসবে

ডালিয়া, চন্দ্রমল্লিকা, ম্যাগনোলিয়া, শিউলি, হাসনাহেনা, অপরাজিতা, চেরি, জাকারান্ডা, উইলো, টিউলিপ, উইস্টেরিয়াসহ দেশি-বিদেশি ১২৭ রকম ফুলে সেজেছে ডিসি পার্ক।

চট্টগ্রাম ব্যুরোবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 25 Jan 2024, 04:40 PM
Updated : 25 Jan 2024, 04:40 PM

সৌরভ ছড়িয়ে চট্টগ্রামের ‘বন্দর-ফৌজদারহাট টোল রোড’ এলাকার ডিসি পার্কে শুরু হল ফুল উৎসব।

মন্ত্রিপরিষদ সচিব মো. মাহবুব হোসেন বৃহস্পতিবার মাসব্যাপী এই ফুল উৎসবের উদ্বোধন করেন । জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব মোহাম্মদ মেজবাহ উদ্দিন চৌধুরীও উপস্থিত ছিলেন অনুষ্ঠানে।

ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের সঙ্গে সংযুক্ত ‘বন্দর-ফৌজদারহাট টোল রোড’। ঝাউগাছ আর জলাশয়ের পাশ দিয়ে যাওয়া সড়কটি যুক্ত হয়েছে মেরিন ড্রাইভের সঙ্গে। ফৌজদারহাট থেকে এ টোল রোড ধরে কিছুদূর গেলেই ডিসি পার্ক। সড়কের পাশে বিশাল এলাকা জুড়ে বাহারি রঙের ফুল দিয়ে সাজিয়ে তোলা হয়েছে এই পার্ক।

বাহারি এসব ফুল পথ চলতি মানুষের নজর কাড়বেই। চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে দ্বিতীয়বারের মত এ উৎসবের আয়োজন করা হয়েছে। 

১৯৪ একর জমি ‘মাদকের আখড়া’ থেকে ফুলের বাগানে রূপান্তর করায় উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসনের প্রশংসা করেন মন্ত্রিপরিষদ সচিব।

তিনি বলেন, “মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নির্বাচনী ইশতেহারে পর্যটনকে গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে এই ফুল উৎসবের মাধ্যমে আমরা মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর চিন্তা চেতনাকে সামনে নিয়ে যাওয়ার সুযোগ রয়েছে। সামনের প্রজন্মের জন্য আমাদেরকেই পরিবেশ ও সুযোগ তৈরি করতে হবে।”

জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব মোহাম্মদ মেজবাহ উদ্দিন চৌধুরী বলেন, পর্যটন যাতে অর্থনৈতিক বিকাশে ভূমিকা রাখতে পারে, সেই ব্যবস্থা করতে হবে। ফুল উৎসবের এ উদ্যোগ যেন ‘ক্ষণিকের উদ্যোগ’ না হয়, এর ধারাবাহিকতা যাতে বজায় থাকে, তা নিশ্চিত করতে হবে।

চট্টগ্রামের জেলা প্রশাসক আবুল বাসার মোহাম্মদ ফখরুজ্জামানের সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে চট্টগ্রামের বিভাগীয় কমিশনার তোফায়েল ইসলামও উপস্থিত ছিলেন।

জেলা প্রশাসক বলেন, প্রধানমন্ত্রী ডিসি পার্ক, নৌকা জাদুঘর, পর্যটন বাস ও ফুল ডে ট্যুর, স্কুল বাস, বার্ড পার্ক এই ছয়টি প্রকল্পের উদ্বোধন করেছেন।

“এরই ধারাবাহিকতায় আমরা এগিয়ে যাচ্ছি। এছাড়া প্রতি উপজেলায় পার্ক, খেলার মাঠ করার মহাপরিকল্পনা হাতে নেওয়া হয়েছে। সরকারি জমি উদ্ধার করে এই সব প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হচ্ছে।”

‘ফুলের মতো আপনি ফোটাও গান' স্লোগান নিয়ে দ্বিতীয়বারের মত আয়োজিত মাসব্যাপী এই ফুল উৎসব চলবে ২৩ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত।

ডালিয়া, চন্দ্রমল্লিকা, ম্যাগনোলিয়া, শিউলি, হাসনাহেনা, অপরাজিতা, চেরি, জাকারান্ডা, উইলো, টিউলিপ, উইস্টেরিয়াসহ দেশি-বিদেশি ১২৭ রকম ফুলে সেজেছে ডিসি পার্ক।

হরেক রকম ফুলের সাথে পরিচয় করিয়ে দিতে প্রত্যেক প্রজাতির নামসহ বিস্তারিত তথ্যও উল্লেখ করা হয়েছে।

এছাড়া রয়েছে পর্যটকদের জন্য সাম্পান বাইচ, বাংলার ঐতিহ্য রক্ষায় বিভিন্ন সময়ের ১৫টি নৌকা প্রদর্শনী। চট্টগ্রামের চিত্রশিল্পীদের আঁকা ২০০ চিত্রকর্ম নিয়ে প্রদর্শনীরও আয়োজন করা হয়েছে।

প্রতিদিন সকাল ৯টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত ৩০ টাকায় টিকিট কেটে দর্শনার্থীরা পার্কে প্রবেশ করে ফুল উৎসব উপভোগ করতে পারবেন।