৩৪ রানের ওভার নিয়েই আক্ষেপ মোসাদ্দেকের

এই ম্যাচের অধিনায়কের মতে, ওই এক ওভারই ব্যবধান গড়ে দিয়েছে।

ক্রীড়া প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 2 August 2022, 06:17 PM
Updated : 2 August 2022, 06:17 PM

দুই দল মিলিয়ে ৪০ ওভারের ম্যাচে বাঁক বদল আছে বেশ কিছু। তবে ম্যাচ শেষে পেছন ফিরে তাকিয়ে মোসাদ্দেক হোসেনের চোখে ভাসছে একটি ওভার। যে ওভারে নাসুম আহমেদকে তুলাধুনা করে ৩৪ রান নিলেন রায়ার্ন বার্ল। যেখানে খেলার মোড় ঘুরে গেল চোখের পলকে। এই ম্যাচের বাংলাদেশের অধিনায়কের মতে, ওই ওভারই পার্থক্য গড়ে দিয়েছে।

সিরিজের শেষ টি-টোয়েন্টিতে মঙ্গলবার টস জিতে ব্যাটিংয়ে নেমে জিম্বাবুয়ে প্রথম ৩ ওভারে তোলে ২৯ রান। পরে দারুণভাবে ঘুরে দাঁড়ায় বাংলাদেশ। একের পর এক উইকেট হারিয়ে ১৪ ওভারে জিম্বাবুয়ের রান দাঁড়ায় ৬ উইকেটে ৭৬। এরপরই সেই বিস্ফোরক ওভার।

তখনও পর্যন্ত ১৪ বলে ৯ রান নিয়ে ক্রিজে থাকা বার্ল হঠাৎ জ্বলে ওঠেন। নাসুম আহমেদের একের পর এক বল উড়িয়ে আছড়ে ফেলতে থাকেন মাঠের নানা প্রান্তে। এক ওভারেই মারেন ৫ ছক্কা ও ১ চার।

বদলে যায় ম্যাচের মোমেন্টাম। বেদম মারের ধারা চলতে থাকে পরের কয়েক ওভারও। লুক জঙ্গুয়ের সঙ্গে ৭৯ রানের জুটি গড়েন বার্ল স্রেফ ৩১ বলে।

যে দলের ১০০ হওয়া নিয়ে ছিল টানাটানি, তারা করে ফেলে ১৫৬! রান তাড়ায় ১০ রানে হেরে সিরিজও হেরে যায় বাংলাদেশ।

ম্যাচের পর হারারেতে সংবাদ সম্মেলনে মোসাদ্দেকের কণ্ঠে ফুটে উঠল ওই এক ওভার নিয়ে আফসোস।

“হতাশ তো অবশ্যই (ম্যাচের ফলে)। প্রথম ১৪ ওভার পর্যন্ত আমরাই এগিয়ে ছিলাম খেলায়। একটি ওভারই ম্যাচে পার্থক্য গড়ে দিয়েছে, আমার কাছে যা মনে হয়েছে। হয়তো ওই ওভারে ২০ রান হলেও আমরা ম্যাচে থাকতাম।”

ওই ওভার জিম্বাবুয়ের ইনিংসের চেহারা পাল্টে দিয়েছে বটে, তবে ব্যাটিং উইকেটে ১৫৭ রানের লক্ষ্য খুব কঠিন হওয়ার কথা ছিল না। বাংলাদেশ পারেনি সেখানেও। ব্যাটিংয়ের সেই ব্যর্থতাও মেনে নিচ্ছেন অধিনায়ক।

“টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে খুব দ্রুত উইকেট হারাতে থাকলে রান তাড়া করা কঠিন হয়ে যায়। টি-টোয়েন্টিতে এটা আশা করা যায় না যে আপনি গেলেন আর ম্যাচ জিতলেন। এখানে হিসাব করে খেলা লাগবে। যেটা আমরা পারিনি ব্যাটিংয়ে, এজন্য ম্যাচ হেরেছি।”

জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ৭টি টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলে প্রথমবার সিরিজ হারল বাংলাদেশ। এই সংস্করণে দলের দুঃসময় দীর্ঘায়িত হলো আরও একটু। মোসাদ্দেকের মতে, ব্যাটিং-বোলিং দুই ক্ষেত্রেই মাঝের ওভারগুলোয় পথ হারাচ্ছে বাংলাদেশ।

“আমরা পুরো ম্যাচ থেকে সরে যাচ্ছি মাঝের ওভারগুলোয়। বোলিংয়ে আমরা মাঝের ওভারগুলোয় উইকেট বের করতে পারছি না। ব্যাটিংয়েও আমরা মাঝের সময়ে খেলা যেভাবে বানানো দরকার, সেটা হচ্ছে না। যে কারণে হয়তো শেষের দিকে চাপে পড়ছি। এই জায়গাটায় ভালোভাবে উন্নতি করতে পারলে হয়তো এখান থেকে বের হতে পারব।”

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক