লাবুশেনের কীর্তির পর ব্র্যাথওয়েটের লড়াই

অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে টেস্টে রান তাড়ার রেকর্ড গড়তে হবে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে।

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 3 Dec 2022, 12:46 PM
Updated : 3 Dec 2022, 12:46 PM

ক্রেইগ ব্র্যাথওয়েটকে টানা দুই চার মেরে কাঙ্ক্ষিত ঠিকানায় পৌঁছে হেলমেট-ব্যাট উঁচিয়ে ধরলেন মার্নাস লাবুশেন। জড়িয়ে ধরলেন সতীর্থ স্টিভেন স্মিথকে। প্রথম ইনিংসে ডাবল সেঞ্চুরি উপহার দেওয়া ব্যাটসম্যানের এবার এই উদযাপন শতকের। তার দারুণ কীর্তিতে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে রেকর্ড গড়ার চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিল অস্ট্রেলিয়া। ব্র্যাথওয়েটের ব্যাটে সেই লক্ষ্যে এগোচ্ছে ক্যারিবিয়ানরা।

পার্থ টেস্টের চতুর্থ দিন ২ উইকেটে ১৮২ রান নিয়ে দ্বিতীয় ইনিংস ঘোষণা করে অস্ট্রেলিয়া। ৪৯৮ রানের লক্ষ্য তাড়ায় ওয়েস্ট ইন্ডিজ দিন শেষ করেছে ৩ উইকেটে ১৯২ রান নিয়ে। এখনও ৩০৬ রান চাই সফরকারীদের।

প্রথম ইনিংসে ২০৪ রান করা লাবুশেন দ্বিতীয়ভাগে করেন অপরাজিত ১০৪। দুই ছক্কা ও ১৩ চারে সাজান ১১০ বলের ইনিংস। ৫ চারে ৪৮ রানে আউট হন ডেভিড ওয়ার্নার।

অস্ট্রেলিয়ার তৃতীয় ব্যাটসম্যান হিসেবে একই টেস্টে ডাবল সেঞ্চুরি ও সেঞ্চুরি করার কীর্তি গড়লেন লাবুশেন; বাকি দুইজন হলেন গ্রেগ চ্যাপেল ও ডগ ওয়াল্টার। সব দেশ মিলিয়ে এই অর্জনে নাম লেখানো অষ্টম ব্যাটসম্যান তিনি।

চারশর বেশি রান এর আগে কেবল একবার সফলভাবে তাড়া করেছিল ওয়েস্ট ইন্ডিজ। অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষেই ২০০৩ সালে ৪১৮ রানের লক্ষ্যে জিতেছিল তারা। সেই জয় এখনও বিশ্ব রেকর্ড।

প্রায় অসম্ভব এক চ্যালেঞ্জে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে টানছেন অধিনায়ক ব্র্যাথওয়েট। ১১ চারে ক্যারিয়ারের একাদশ সেঞ্চুরিতে ১০১ রানে অপরাজিত আছেন তিনি।

অপ্টাস স্টেডিয়ামে শনিবার ১ উইকেটে ২৯ রান নিয়ে খেলা শুরু করা অস্ট্রেলিয়া দিনের পঞ্চম ওভারে হারাতে পারত লাবুশেনকে। কিন্তু আলজারি জোসেফ ফ্রন্ট ফুট ‘নো’ বল করায় গালিতে ক্যাচ দিয়েও ১৯ রানে বেঁচে যান তিনি।

এরপর আর প্রতিপক্ষকে তেমন কোনো সুযোগ দেননি লাবুশেন। ওয়ার্নারকে নিয়ে কাটিয়ে দেন প্রথম ঘণ্টা। বিরতির পরের ওভারেই রোস্টন চেইসের বলে শর্ট লেগে ধরা পড়েন ওয়ার্নার। 

জেডন সিলসকে ওভারে দুই চার মেরে ৭১ বলে ফিফটি স্পর্শ করেন লাবুশেন। পরের পঞ্চাশ রান তুলে ফেলেন তিনি স্রেফ ৩৮ বলে। ক্যারিয়ারের নবম টেস্ট সেঞ্চুরিতে ডানহাতি এই ব্যাটসম্যান পা রাখেন ১০৯ বলে। এরপরই ইনিংস ঘোষণা করে দেয় অস্ট্রেলিয়া। স্মিথ অপরাজিত থাকেন ২০ রান করে।

এই ইনিংসের পথে অস্ট্রেলিয়ায় ৩১ ইনিংসে ২ হাজার রান পূর্ণ করেন লাবুশেন। একটি দেশে যা তৃতীয় দ্রুততম। অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে ১৯ ইনিংসে স্যার ডন ব্র্যাডম্যান ও ওয়েস্ট ইন্ডিজে ২৯ ইনিংসে স্যার গ্যারি সোবার্স করেছিলেন ২ হাজার রান।

বিশাল লক্ষ্য তাড়ায় ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ভালো শুরুই এনে দেন ব্র্যাথওয়েট ও তেজনারাইন চন্দরপল। উদ্বোধনী জুটিতে ১১৬ রান তোলেন দুইজন। মিচেল স্টার্কের বলে চন্দরপল বোল্ড হলে ভাঙে তাদের প্রতিরোধ।

ক্যারিবিয়ান ব্যাটিং গ্রেট শিবনারাইন চন্দরপলের ছেলে তেজনারাইন অভিষেক টেস্টেই নিজের সামর্থ্যের কিছুটা ঝলক দেখান। প্রথম ইনিংসে ফিফটি করা বাঁহাতি এই ব্যাটসম্যান এবার ৪ চারে ৪৫ রান করেন ১২৬ বল খেলে।

এনক্রুমা বনারের কনকাশন সাব শামার ব্রুকসকে দ্রুত ফিরিয়ে দেন ল্যাথান লায়ন। জার্মেইন ব্ল্যাকউডকে নিয়ে দিন শেষ করে দেওয়ার আভাস দেন ব্র্যাথওয়েট। কিন্তু শেষের দুই ওভার আগে ২৪ রান করা ব্ল্যাকউডকে বিদায় করে অফস্পিনার লায়ন। ভাঙে ৫৮ রানের জুটি।

এক প্রান্ত আগলে রেখে ১৫৭ বলে কাঙ্ক্ষিত তিন অঙ্কের উষ্ণ ছোঁয়া নেন ব্র্যাথওয়েট। উইকেটে তার সঙ্গী কাইল মেয়ার্স।

চোট সমস্যায় বোলিংয়ে অস্ট্রেলিয়া পায়নি অধিনায়ক প্যাট কামিন্সকে। তার অনুপস্থিতিতে দলকে নেতৃত্ব দিচ্ছেন স্মিথ।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

অস্ট্রেলিয়া ১ম ইনিংস: ৫৯৮/৪ ডিক্লে

ওয়েস্ট ইন্ডিজ ১ম ইনিংস: ২৮৩

অস্ট্রেলিয়া ২য় ইনিংস: ৩৭ ওভারে ১৮২/২ ডিক্লে (আগের দিন ২৯/১) (ওয়ার্নার ৪৮, লাবুশেন ১০৪*, স্মিথ ২০*; রোচ ৭-২-৩০-২, জোসেফ ১০-১-৪২-০, হোল্ডার ৮-১-৩৯-০, চেইস ৬-০-৩১-১, সিলস ৩-০-১৮-০, ব্র্যাথওয়েট ৩-০-২০-০)

ওয়েস্ট ইন্ডিজ ২য় ইনিংস: (লক্ষ্য ৪৯৮) ৬২ ওভারে ১৯২/৩ (ব্র্যাথওয়েট ১০১*, চন্দরপল ৪৫, ব্রুকস ১১, ব্ল্যাকউড ২৪, মেয়ার্স ০*; স্টার্ক ১৩-৩-৩৬-১, হেইজেলউড ১৩-৩-৩৯-০, লায়ন ২২-৬-৫৪-২, গ্রিন ১০-০-৪২-০, লাবুশেন ২-০-৯-০, হেড ২-১-৬-০)

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক