জয়সওয়ালকে অতি ওপরে না তুলতে সতর্ক করে দিলেন গাম্ভির

সংবাদমাধ্যমে নায়ক বানিয়ে তোলার পর অতি প্রত্যাশার চাপে তরুণরা ভেঙে পড়ে, বলছেন ভারতের বিশ্বকাপজয়ী সাবেক ব্যাটসম্যান।

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 4 Feb 2024, 04:59 AM
Updated : 4 Feb 2024, 04:59 AM

ইংল্যান্ডের বিপক্ষে অসাধারণ ডাবল সেঞ্চুরির পর ইয়াশাসবি জয়সওয়ালের বন্দনা চলছে ক্রিকেট বিশ্বজুড়ে। বর্তমান-সাবেক ক্রিকেটার ও বিশ্লেষকরা বলছেন তাদের মুগ্ধতার কথা। বিরেন্দর শেবাগ থেকে সাচিন টেন্ডুলকার, অ্যালেস্টার কুক থেকে মাইক আথারটন, কে নেই এই দলে! সংবাদমাধ্যম তো আছেই। তবে একটু উল্টো ভাবনার দোলাও দিলেন গৌতাম গাম্ভির। সবার প্রতি ভারতের সাবেক এই ব্যাটসম্যানের আহবান, নায়ক বানাতে গিয়ে যেন চাপে ফেলে দেওয়া না হয় তরুণ জয়সওয়ালকে।

চলতি বিশাখাপাত্নাম টেস্টের প্রথম ইনিংসে ইংলিশ বোলারদের ওপর ছড়ি ঘুরিয়ে ২০৯ রানের দুর্দান্ত ইনিংস খেলেন জয়সওয়াল। তার ২৯০ বলের ইনিংসে ১৯ চারের সঙ্গে ছক্কা ছিল ৭টি। ভারতের আর কোনো ব্যাটসম্যান লম্বা সময় টিকতে পারেননি। দলের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ রান ছিল শুবমান গিলের ৩৪। কিন্তু আরেক প্রান্তে জয়সওয়াল ছিলেন যেন ভিন্ন এক গ্রহে।

তাকে নিয়ে মুগ্ধতার শুরু অবশ্য এখানেই নয়। বয়সভিত্তিক ক্রিকেট থেকেই তাকে মনে করা হয়েছে ভারতীয় ব্যাটিংয়ের ভবিষ্যৎ মহাতারকা। প্রতিভা আর সামর্থ্যের ঝলক দিয়ে তিনি মাতিয়েছেন আইপিএল। গত বছর টেস্ট অভিষেকেও খেলেন ১৭১ রানের ইনিংস। তবে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে এই ইনিংসটি খেলে নিজেকে যেন আরও নতুনভাবে জানান দিয়েছেন ২২ বছর বয়সী ব্যাটসম্যান।

তাতেই তাকে নিয়ে তোলপাড় চলছে। সংবাদমাধ্যমে চলছে স্তুতির জোয়ার। কিন্তু গাম্ভির বরাবরই একটু আলাদা। ভিন্ন ভাবনার খোরাক জোগান তিনি প্রায়ই। ভারতীয় সংবাদ সংস্থা পিটিআই-এর সঙ্গে কথোপকথনে অন্য এক স্রোত বইয়ে দিলেন ভারতের হয়ে দুটি বিশ্বকাপ জয়ের নায়কদের একজন।

“তরুণ এই তারকাকে তার অর্জনের জন্য অভিনন্দন জানাতে চাই, তবে আরও বেশি গুরুত্বপূর্ণ, সবার কাছে অনুরোধ করতে চাই যে, ছেলেটিকে খেলতে দিন। আগেও দেখেছি যে ভারতের একটি রীতি আছে, বিশেষ করে সংবাদমাধ্যমে, তরুণদের অর্জন নিয়ে অতি শোরগোল তোলা হয়, তাদেরকে নানারকম তকমা দেওয়া হয় এবং তাদেরকে নায়কের মতো উপস্থাপন করা যায়।”

“পরে প্রত্যাশার চাপে তারা ভেঙে পড়ে এবং নিজের সহজাত খেলা খেলতে পারে না। তাদেরকে বেড়ে উঠতে দিন এবং খেলা উপভোগ করতে দিন।”

প্রথম ইনিংসে ডাবল সেঞ্চুরির পর দ্বিতীয় ইনিংসে রোববার তিনি ১৭ রান করে আউট হন আলগা শটে।

জয়সওয়ালের মতোই দারুণ সাড়া ফেলে এগিয়ে যাচ্ছিলেন শুবমান গিল। কিন্তু সম্প্রতি টেস্টে সময়টা ভালো কাটছে না তার। আরেক প্রতিভাবান ব্যাটসম্যান শ্রেয়াস আইয়ারও চলতি সিরিজে এখনও পর্যন্ত নিজেকে মেলে ধরতে পারেননি প্রত্যাশিত চেহারায়।

জয়সওয়ালের সাফল্য নিয়ে যেমন বাড়াবাড়ি করতে না করলেন গাম্ভির, তেমনি এই দুজনের ব্যর্থতাও নিয়ে বেশি দুর্ভাবনার কিছু দেখেন না তিনি।

“ওদেরকে সময় দেওয়া উচিত আমাদের। দুজনই মানসম্পন্ন ক্রিকেটার এবং পারফরম্যান্স দিয়েই আগে তা দেখিয়েছে। এজন্যই তারা ভারতের হয়ে খেলছে।”