তৃতীয় দেশে পণ্য রপ্তানির নীতিমালা করল কেন্দ্রীয় ব্যাংক

লেনদেনের বেলায় এডি শাখাগুলোকে প্রতিটি শিপমেন্ট প্রয়োজনে অনলাইনে নজরদারি করতে হবে।

নিজস্ব প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 14 Sept 2022, 06:10 PM
Updated : 14 Sept 2022, 06:10 PM

এক দেশ থেকে পণ্য এনে তা আরেক দেশে রপ্তানির ক্ষেত্রে বাণিজ্যিক ব্যাংকের অথোরাইড ডিলার (এডি) শাখাগুলোকে লেনদেন নিষ্পত্তি করার নীতিমালা করে দিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক।

দেশের রপ্তানি নীতিমালার সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে ব্যবসায়ীদের তৃতীয় দেশে পণ্য পাঠনোর লেনদেন সহজ করতে বুধবার এ নীতিমালা প্রকাশ করেছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক।

এতে বলা হয়েছে, বিভিন্ন ব্যাংকের এডি শাখাগুলো (ব্যাংকের যেসব শাখায় বৈদেশিক মুদ্রা লেনদেন হয়) এসব লেনদেন থেকে কমিশন পাবে।

আমদানি করা মালামাল শুধু বন্দরে প্রবেশ করে আবার ভিন্ন কোনো দেশে রপ্তানি করার নামই হচ্ছে তৃতীয় দেশে রপ্তানি, যা আন্তর্জাতিক অঙ্গনে ‘পোর্ট এন্ট্রি মার্চেন্টিং ট্রেড’ নামে পরিচিত।

তৃতীয় দেশে রপ্তানি করার শর্তেই এসব পণ্য আমদানি করা হয়। সেক্ষেত্রে ‘ট্রান্সফারেবল এলসি’ ব্যবহার করে এডি ব্যাংকগুলো।

এ নীতিমালায় বলা হয়েছে, এক্ষেত্রে স্বাভাবিক নিয়মে পণ্য রপ্তানির জন্য ব্যবহৃত ‘ইএক্সপি ফরম’ ও আমদানিতে ব্যবহৃত ‘আইএমপি ফরম’ ব্যবহার করা লাগবে না। তবে রপ্তানিতে ব্যবহৃত অন্যান্য নির্দেশনা ও নীতিমালা যথাযথভাবে মেনে চলতে হবে।

আর তৃতীয় কোনো দেশে পণ্য রপ্তানির বেলায় যেসব দেশে এফএটিএফ (ফাইন্যান্সিয়াল অ্যাকশন টাস্কফোর্স) নীতিমালা কার্যকর রয়েছে এমন দেশেই শুধু বাণিজ্য করা যাবে।

লেনদেনের বেলায় এডি শাখাগুলোকে প্রতিটি শিপমেন্ট প্রয়োজনে অনলাইনে নজরদারি করতে হবে।

পণ্য আমদানি-রপ্তানির বেলায় গ্রাহক ও গ্রহীতা প্রতিষ্ঠান সম্পর্কে ভালোভাবে জানতে হবে। এক্ষেত্রে কেওয়াইসি ফরম ও অ্যান্টি মানি লন্ডারিং পরিপালন নিশ্চিত করতে হবে এডি শাখাকেই। এ কাজে এডি শাখা স্থানীয় উৎস থেকে কোনো প্রকার অর্থায়ন করতে পারবে না।

স্থানীয় ব্যবসায়ীদের এ ধরনের রপ্তানি কার্যক্রম পরিচালনা করার মত সক্ষমতা রয়েছে কি না তা যাচাই করার দায়িত্বও দেওয়া হয়েছে ব্যাংকের এডি শাখাকে।

তৃতীয় দেশে রপ্তানি সংক্রান্ত তথ্য কেন্দ্রীয় ব্যাংককে জানাতে বলা হয়েছে নীতিমালায়।

এতে ব্যবসায়ীদের এ বাবদ ‘রিটেনশন’ কোটার বৈদেশিক মুদ্রা ব্যবহার করার সুযোগ রাখা হয়েছে শুধু সংশ্লিষ্ট পণ্যের রপ্তানি আয়ের বেলায়।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক