রাশিয়া থেকে ৫ লাখ টন গম কিনবে বাংলাদেশ

সরকার এই গমের দাম রাশিয়াকে পরিশোধ করবে ডলারে।

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 31 August 2022, 11:15 AM
Updated : 31 August 2022, 11:15 AM

ইউক্রেইন যুদ্ধের মধ্যেই রাশিয়া থেকে সরকারিভাবে পাঁচ লাখ মেট্রিক টন গম আমদানির অনুমোদন দিয়েছে সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটি।

এক্ষেত্রে প্রতি টনের দাম পড়বে ৪৩০ ডলার। মোট খরচ হবে ২১ কোটি ৫০ লাখ ডলার। সরকার এই গমের দাম রাশিয়াকে ডলারেই পরিশোধ করবে।

অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামালের সভাপতিত্বে বুধবার ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত হয়। পরে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব মো. আব্দুল বারিক ভার্চুয়াল প্রেস ব্রিফিংয়ে বৈঠকের সিদ্ধান্ত জানান।

তিনি বলেন, “রাশিয়া থেকে সরকার মোট ৫ লাখ টন গম আমদানি করবে। প্রতি কেজি ৪০ টাকা ধরে এই গম কেনা হবে।

এক প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, “রাশিয়া থেকে যে গম কেনা হবে, তার মূল্য ডলারে পরিশোধ করা হবে।”

অবশ্য ইউক্রেইন যুদ্ধের জেরে রাশিয়ার সঙ্গে লেনদেনে যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞার মধ্যে বাংলাদেশ কীভাবে ডলারে দাম পরিশোধ করবে, তার ব্যাখ্যা অতিরিক্ত সচিবের কথায় পাওয়া যায়নি।

তবে নিষেধাজ্ঞা এড়িয়ে বিকল্পভাবে রাশিয়া থেকে কীভাবে আমদানি করা যায় তা নিয়ে গত ২৫ অগাস্ট মন্ত্রিপরিষদ বিভাগে আন্তঃমন্ত্রণালয় বৈঠকে আলোচনা হয়েছিল।

ভারত ও ভিয়েতনাম থেকে কেনা হবে চাল

অতিরিক্ত সচিব বলেন, বুধবারের বৈঠকে মোট ১৫টি প্রস্তাব অনুমোদন দিয়েছে ক্রয় কমিটি। এর মধ্যে ১১টি প্রস্তাব এজেন্ডায় ছিল, বাকি চারটি প্রস্তাব টেবিলে উপস্থাপন করা হয়।

টেবিলে উপস্থাপিত তিনটি প্রস্তাবের মাধ্যমে রাশিয়া, ভারত ও ভিয়েতনাম থেকে মোট ৮ লাখ ৩০ হাজার টন চাল ও গম কেনা হবে।‘জি টু জি’, অর্থাৎ দুই দেশের সরকারি পর্যায়ে এই কেনাকাটা হবে।

ভারত থেকে দুটি লটে এক লাখ টন সেদ্ধ চাল কেনার প্রস্তাব অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। এর একটি লটে ৭০ হাজার টন আসবে সমুদ্র বন্দর হয়ে। প্রতিকেজিতে দাম পড়বে ৪২ টাকা ১৩ পয়সা। অন্য লটে রেলের মাধ্যমে ৩০ হাজার মেট্রিক টন চাল আনতে প্রতি কেজিতে ৪০ টাকা ৭০ পয়সা খরচ পড়বে। তাতে মোট ১ লাখ মেট্রিক টন চালের দাম পড়বে ৪১৭ কোটি ৫ লাখ টাকা।

ভিয়েতনাম থেকে কেনা হবে মোট ২ লাখ ৩০ হাজার মেট্রিক টন চাল। এর মধ্যে ২ লাখ মেট্রিক টন সেদ্ধ চালে প্রতি কেজির দাম পড়বে ৪৯ টাকা ৪৯ পয়সা। বাকি ৩০ হাজার মেট্রিক টন হবে আতপ চাল, তাতে প্রতি কেজির দাম পড়বে ৪৬ টাকা ৯৩ পয়সা। সব মিলিয়ে মোট খরচ হবে ১ হাজার ১৩০ কোটি ৬৯ লাখ টাকা।

মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব জানান, বুধবারের বৈঠকে টেবিলে উপস্থাপিত আরেকটি প্রস্তাবের মাধ্যমে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান টানেলের রক্ষণাবেক্ষণ ও টোল আদায়ের কাজ চায়না কমিউনিকেশন কনস্ট্রাকশন কোম্পানি লিমিটেডকে দেওয়ার প্রস্তাব অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।

চীনের এ কোম্পানিকে ৯৮৩ কোটি ৮২ লাখ ৬২ হাজার টাকায় এই কাজ দেওয়ার জন্য ক্রয়সংক্রান্ত মন্ত্রিপরিষদ কমিটি সুপারিশ করেছে।

বৈঠকে অনুমোদন পাওয়া অন্য প্রস্তাবগুলো হল-

# ঢাকা-চট্টগ্রাম জাতীয় মহাসড়কে তিনটি আন্ডারপাস এবং পদুয়ার বাজার ইন্টারসেকশন ইউলুপ নির্মাণ প্রকল্প: ডাব্লিউ পি ০১ প্যাকেজ এর পূর্ত কাজে প্রায় ২৮৯ কোটি ৭৫ লাখ টাকায় দেওয়া হয়েছে। যৌথভাবে ন্যাশনাল ডেভেলপমেন্ট ইঞ্জিনিয়ার্স লি. এবং হাসান টেকনো বিল্ডার্স লিমিটেডকে এই কাজ দেওয়া হয়েছে।

# কুমার নদ পুনঃখনন (প্রথম সংশোধন) প্রকল্পের পূর্ত কাজের ভেরিয়েশন বাবদ ২১ কোটি ১৪ লাখ ২৩ হাজার ৩৯১ টাকা ব্যয় কমিয়ে সংশোধিত ১৫৪ কোটি ৪৩ লাখ ১২ হাজার ৫৪৭ টাকার ক্রয় প্রস্তাব অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।

# বে-টার্মিনাল নির্মাণ প্রকল্পে পরামর্শক প্রতিষ্ঠান হিসেবে যৌথভাবে সেল হর্ন ডাব্লিউএসপি, কেএস এবং এক্যুয়া জার্মানিকে ৫১ কোটি ২৯ লাখ ৯৯ হাজার ৯৯৯ টাকায় নিয়োগের অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।

# এক লাখ মেট্রিক টন এমওপি (মিউরেট অব পটাশ) সার আমদানি হবে সরাসরি ক্রয় চুক্তির মাধ্যমে। ৯৩১ কোটি ৪৯ লাখ টাকায় দুবাই ভিত্তিক ফ্যালকন জেনারেল ট্রেডিং এলএলসি এই সার সরবরাহ করবে।

# সৌদি আরব থেকে ষষ্ঠ লটে ৩০ হাজার মেট্রিক টন বাল্ক গ্র্যানুলার ইউরিয়া সার ১৭৭ কোটি ৯৮ লক্ষ ২০ হাজার ৭৫৫ টাকায় আমদানির অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। বাংলাদেশ কেমিকেল ইন্ডাস্ট্রিজ কর্পোরেশন (বিসিআইসি) সাবিক এগ্রো নিউট্রিয়েন্টস কোম্পানির কাছ থেকে এই সার কিনবে।

# ঢাকা ওয়াসার ‘ঢাকা ওয়াটার সাপ্লাই নেটওয়ার্ক ইম্প্রুভমেন্ট‘প্রকল্পের ১.১১ প্যাকেজের লট-১ এর আাওতায় আরএফএল এর কাছ থেকে ১ লাখ ১১ হাজার ৬৫৩ মিটার এইচডিপিই পাইপ এবং প্রয়োজনীয় ফিটিংস কেনা হবে। এর দাম প্রায় ২৪ কোটি ৪৩ লাখ ৫৭ হাজার ৭৩৭ টাকা।

# ঢাকা ওয়াসার ‘ঢাকা ওয়াটার সাপ্লাই নেটওয়ার্ক ইম্প্রুভমেন্ট‘ প্রকল্পের ১.১১ প্যাকেজের লট-২ এর আাওতায় আরএফএল এর কাছ থেকে ২ লাখ ৪৪ হাজার ৪৭৫ মিটার এইচডিপিই পাইপ এবং প্রয়োজনীয় ফিটিংস সংগ্রহ করা হবে। আরএফএল প্লাস্টিক লিমিটেডের কাছ থেকে ৪৫ কোটি ২৭ লাখ ১২ হাজার ৭৪৬ টাকায় এসব সরঞ্জাম কেনা হবে।

# বাংলাদেশ টেলিভিশনের দেশব্যাপী ডিজিটাল টেরিস্ট্রিয়াল সম্প্রচার প্রবর্তন প্রকল্পের জিডি৭ প্যাকেজ লট-১ এর আওতায় যন্ত্রপাতি সংগ্রহ ও সংস্থাপন কাজ করা হবে বেলজিয়ামের স্টুডিওটেক এর মাধ্যমে। ব্যয় হবে ৮১ কোটি ৩৭ লাখ ১ হাজার ৮৪৩ টাকা।

# বাংলাদেশ টেলিভিশনের দেশব্যাপী ডিজিটাল টেরিস্ট্রিয়াল সম্প্রচার প্রবর্তন প্রকল্পের জিডি৭ প্যাকেজ, লট-২ এর আওতায় ৩৬ কোটি ৬২ লাখ ৮৭ হাজার ৯২০ টাকায় যন্ত্রপাতি সংগ্রহ ও সংস্থাপন কাজ দেওয়া হয়েছে বেলজিয়ামের স্টুডিওটেককে।

# বাংলাদেশ টেলিভিশনের দেশব্যাপী ডিজিটাল টেরিস্ট্রিয়াল সম্প্রচার প্রবর্তন প্রকল্পের জিডি৭ প্যাকেজ, লট-৩ এর আওতায় ইতালির গ্রিন পাওয়ার সিস্টেমস এসআরএলকে ২৯ কোটি ৬৫ লাখ ১৮ হাজার টাকায় যন্ত্রপাতি সংগ্রহ ও সংস্থাপনের কাজ দেওয়া হয়েছে।

Also Read: বিকল্প উপায়ে রাশিয়া-ইউক্রেইন থেকে আমদানির ভাবনা

Also Read: গম কিনতে রাশিয়ার সঙ্গে আলোচনায় বাংলাদেশ

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক