বাংলায় এল ‘শাহেনশাহ-এ-কাওয়ালি: নুসরাত ফতেহ আলী খান’

ফরাসি লেখক পিয়্যের-অ্যাঁলা বো এর লেখা বইটি বাংলায় অনুবাদ করেছেন কাজী আব্দুল্লাহ আল মুক্তাদির; প্রকাশ করেছে পাঠক সমাবেশ।

নিজস্ব প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 16 Sept 2022, 07:34 PM
Updated : 16 Sept 2022, 07:34 PM

সুফিবাদী সংগীত কাওয়ালিকে আন্তর্জাতিক উচ্চতায় নিয়ে যাওয়া খ্যাতনামা শিল্পী নুসরাত ফতেহ আলী খানের ওপর লেখা একটি বইয়ের বাংলা অনুবাদ প্রকাশ করা হয়েছে।

শুক্রবার ঢাকার আলিয়ঁস ফ্রঁসেজে ফরাসি লেখক পিয়্যের-অ্যাঁলা বো এর লেখা ‘শাহেনশাহ-এ-কাওয়ালি: নুসরাত ফতেহ আলী খান’ বইটির বাংলা অনুবাদের প্রকাশনা উৎসব অনুষ্ঠিত হয়।

শাহেনশাহ-ই-কাওয়ালি এর অর্থ ‘কাওয়ালি গানের রাজাধিরাজ’। আক্ষরিত অর্থেই মাত্র ৪৯ বছরে প্রয়াত পাকিস্তানি শিল্পী নুসরাত ফতেহ আলি খান মরমী ও সুফীবাদী ঘরানার সংগীত কাওয়ালির বেলা ছিলেন কিংবদন্তি।

তার বের করা তিন শতাধিক গানের অ্যালবাম বিপুল পরিমাণ বিক্রি হয়। সুফি কবিদের ভাব ও বাণী প্রসারে তিনি সংগীত পরিবেশন করেছেন বিশ্বজুড়ে।

বইটিতে তার ব্যক্তিগত জীবন উঠে এসেছে ফরাসী লেখক পিয়্যের বো এর লেখায়। যিনি দশ বছরেরও বেশি সময় নুসরাত ফতেহ আলী খানের জীবন ও সংগীতের সঙ্গে ঘনিষ্ঠভাবে যুক্ত ছিলেন।

পাঠক সমাবেশ প্রকাশিত বইটি ফরাসি ভাষা থেকে অনুবাদ করেছেন কাজী আব্দুল্লাহ আল মুক্তাদির।

শুক্রবার সন্ধ্যায় প্রকাশনা অনুষ্ঠানে ছিল আলোচনা ও সঙ্গীত পরিবেশন বলে আলিয়ঁস ফ্রঁসেজের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়।

অধ্যাপক কায়সার হক বইটি নিয়ে আলোচনা করেন। সঙ্গীত পরিবেশন করেন দেশের লালন শিল্পী ফরিদা পারভীন।

অনুষ্ঠানে নুসরাত ফতেহ আলীর উপর চলচ্চিত্রও দেখানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ফরাসি প্রকাশনা সংস্থা ‘এদিসিয়ঁ দোমি লুন’ থেকে ফরাসি ভাষায় প্রথম প্রকাশের পর বইটি ফ্রান্সে বেশ জনপ্রিয়তা পায়, কিছু পুরস্কারও ঘরে তোলে। এর আগে বইটি ফরাসি ভাষার পাশাপাশি ইংরেজি ও উর্দু ভাষায় প্রকাশিত হয়েছে।

বইটির বাংলা অনুবাদ প্রসঙ্গে পাঠক সমাবেশ লিখেছে, ১৯৮৫ সালে ফ্রান্সে নুসরাত ফতেহ আলী খানের প্রথম কনসার্ট শোনার পর থেকেই বিমোহিত পিয়্যেরে বো প্রায়ই এই শিল্পীর সঙ্গে ভ্রমণ করেছেন। সেই সঙ্গে ১৯৯৭ সালে তার অকালমৃত্যুর আগ পর্যন্ত সারা বিশ্বে ও পাকিস্তানে বহু অনুষ্ঠান আয়োজনে সহায়তা করেছেন।

“অন্তর্দৃষ্টিসম্পন্ন এই বর্ণনা সেসব ভ্রমণের নানান ঘটনা আর মহান এই শিল্পীর বন্ধুবান্ধব, পরিবার ও সহকর্মীদের কাছ থেকে শোনা ছোটো ছোটো অনেক গল্পে সমৃদ্ধ।“

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক